মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

সেকশন

 

ঝড়ে উড়ে গেছে স্কুলভবনের চাল, পাঠদান বন্ধ এক সপ্তাহ

আপডেট : ২৪ মে ২০২৩, ১৭:৪৭

যশোরের মনিরামপুরের গোপিকান্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চালা ছাড়া শ্রেণিকক্ষ। ছবি: আজকের পত্রিকা যশোরের মনিরামপুরের গোপিকান্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভবনের টিনের চালা গত ১৭ মে ঘূর্ণিঝড়ে উড়ে গেছে। এরপর থেকে প্রতিষ্ঠানটিতে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। 

আজ বুধবার বেলা ১১টায় বিদ্যালয়টিতে গিয়ে কোনো শিক্ষার্থীকে পাওয়া যায়নি। কয়েকজন শিক্ষককে অফিসকক্ষে বসে থাকতে দেখা গেছে। 

বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা বলছেন, ১৭ মে রাতের ঘূর্ণিঝড়ে বিদ্যালয়ের সব শ্রেণিকক্ষের টিনের চালা উড়ে গেছে। পরের দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) দপ্তরে সহায়তা চেয়ে আবেদন দেওয়া হয়েছে। এখনো কোনো সহযোগিতা পাননি তাঁরা। 

চাল উড়ে যাওয়ায় শ্রেণিকক্ষে বসার কোনো পরিবেশ নেই। এ কারণে এক সপ্তাহের জন্য শিক্ষার্থীদের ছুটি দেওয়া হয়েছে বলে জানান শিক্ষকেরা। তাঁরা বলেন, ‘শিক্ষকেরা টাকা দিয়ে টিন কিনে শ্রেণিকক্ষ ঠিক করার চেষ্টা করছি। আগামী রোববার থেকে নিয়মিত ক্লাস করাতে পারব বলে আশা করছি।’ 

চাল উড়ে যাওয়ায় পাঠদান বন্ধ রাখার বিষয়ে বিদ্যালয়টির পক্ষ থেকে ইউএনও বা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে কোনো তথ্য জানানো হয়নি বলে জানা গেছে। 

গোপিকান্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক অসীম রায় বলেন, ‘ঝড়ের পর দু-এক দিন শিক্ষার্থীরা এসেছিল। চাল মেরামত কাজ চলার কারণে ক্লাস নেওয়া যাচ্ছে না। আগামী রোববার থেকে ক্লাস শুরু করার আশা আছে। পাঠদান বন্ধ রাখার বিষয়টি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে জানানো হয়নি।’ 

যশোরের মনিরামপুরের গোপিকান্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ঝড়ে চালা উড়ে যাওয়া ভবন। ছবি: আজকের পত্রিকা  মনিরামপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিকাশ চন্দ্র সরকার বলেন, ‘ঝড়ে গোপিকান্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চালা উড়ে যাওয়ার বিষয়টি আমার জানা আছে। চাল উড়ে গেলেও বিকল্পভাবে ক্লাস চালু রাখার কথা। শিক্ষকেরা যে পাঠদান পুরোপুরি বন্ধ রেখেছে তা আমার জানা নেই।’ 

এদিকে, ১৭ মে রাতের ঝড়ে উপজেলার দূর্গাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষের চালা উড়ে যায়। তবে, কর্তৃপক্ষ বিদ্যালয়ের বারান্দায় পাঠদান অব্যাহত রেখেছে বলে জানা গেছে। 

ওই ঘূর্ণিঝড়ে উপজেলার মনোহরপুর বালিকা বিদ্যালয়, টুনিয়াঘরা আলিম মাদ্রাসা, জামজামি দাখিল মাদ্রাসা ও কামালপুর দাখিল মাদ্রাসার চাল উড়ে গেছে। এর মধ্যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান নিজ খরচে তা মেরামত করে নিয়েছে বলে জানা গেছে। 

মনিরামপুরের ইউএনও জাকির হোসেন বলেন, ‘ঝড়ে পাঁচ-ছয়টি শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের ভবনের চালা উড়ে যাওয়ার খবর পেয়েছি। প্রতিষ্ঠানগুলোর পক্ষ থেকে সহায়তার জন্য আবেদন করা হয়েছে। এসব আবেদন জেলা প্রশাসকের দপ্তরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     

    ধূমপান করতে নিষেধ করায় স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

    ২৩ বছরের কারাজীবনে হারিয়েছেন মা–বাবাসহ ২৫ স্বজন, মাথা গোঁজার ঠাঁইও নেই রেখার

    হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির দায়ে দুই যুবকের ৬ মাসের কারাদণ্ড

    চট্টগ্রামে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

    মাদারীপুরে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু

    সড়ক কার্পেটিংয়ের সময় বিটুমিনের ড্রাম বিস্ফোরণে ছয়জন দগ্ধ

    প্রেমের টানে ভারতে আসা সেই পাকিস্তানি নারীকে এবার আদালতে তলব

    ধূমপান করতে নিষেধ করায় স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

    সাকিব-মিরাজদের নতুন কোচ পাকিস্তানের মুশতাক

    ২৩ বছরের কারাজীবনে হারিয়েছেন মা–বাবাসহ ২৫ স্বজন, মাথা গোঁজার ঠাঁইও নেই রেখার

    হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির দায়ে দুই যুবকের ৬ মাসের কারাদণ্ড

    শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালককে অপসারণ