মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

সেকশন

 

নাইকো দুর্নীতি মামলা: খালেদা জিয়াসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে আংশিক সাক্ষ্যগ্রহণ

আপডেট : ২৩ মে ২০২৩, ১৫:৫৪

খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ আটজনের বিরুদ্ধে আংশিক সাক্ষ্য দিয়েছেন মামলার বাদী। আজ মঙ্গলবার ঢাকার কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রধান ফটকে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর অস্থায়ী এজলাসে সাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

মামলার বাদী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম সাক্ষ্য দেন। কিন্তু সাক্ষ্য শেষ না হওয়ায় বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান আগামী ২০ জুন পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন।

আজ সকালেই মামলার বাদী সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য হাজির হন। আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার সময়ের আবেদন করেন। তিনি আদালতকে বলেন, অভিযোগ গঠনের বিরুদ্ধে মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে। উক্ত আবেদন শুনানির অপেক্ষায় আছে। এ কারণে সাক্ষ্যগ্রহণ স্থগিত রাখা হোক। তার পরও আদালত সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। কিছুক্ষণ পর অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার আদালতকে আবার বলেন, খালেদা জিয়ার আবেদন শুনানির জন্য হাইকোর্টের কার্যতালিকায় রয়েছে। তিনি আদালতকে কার্যতালিকা দেখান। পরে আদালত সাক্ষ্যগ্রহণ স্থগিত করে পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের বিশেষ পিপি মোশারফ হোসেন কাজল আজকের পত্রিকাকে বলেন, নাইকো দুর্নীতির মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। আগামী তারিখে বাদীর পুরো স্বাক্ষর গ্রহণ করা হবে।

গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ আটজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন একই আদালত। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে মামলা দায়েরের ১৫ বছর পর খালেদা জিয়াসহ অন্যদের বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতির মামলার বিচার শুরু হয়।

অন্য আসামিরা হলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, বাগেরহাটের সাবেক সংসদ সদস্য এম এ এইচ সেলিম এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।

আজ খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার হাজিরা দেন। আসামি গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। খন্দকার শহিদুল ইসলাম সময়ের আবেদন করেন। অন্যরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

কানাডীয় প্রতিষ্ঠান নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) তৎকালীন সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম তেজগাঁও থানায় খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলাটি করেন।

২০১৮ সালের ৫ মে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। এতে তাঁদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়।

সাবেক মন্ত্রী মওদুদ আহমদ, এ কে এম মোশারফ হোসেন ও বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান মৃত্যুবরণ করায় ইতিপূর্বে তাঁদের মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    পাসপোর্ট অফিসের কর্মচারী ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

    ব্যক্তিগত কাজে অফিসের গাড়ি, অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

    গজারিয়ায় আওয়মী লীগের ২ পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে গুলি, আহত ৯

    স্বাধীনতার পরাজিত শক্তিরা ষড়যন্ত্র করে চলছে: ক্রীড়া মন্ত্রী 

    বুয়েট উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা

    এমপি আনোয়ারুল হত্যা: কামালকে ১০ দিনের মধ্যে ঝিনাইদহ কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

    দেশের শীর্ষ করদাতা কাউছ মিয়া মারা গেছেন

    চাঁদপুরে দুই বাড়ি থেকে ৮৩ বস্তা প্রকল্পের চাল উদ্ধার, আটক ২ 

    সীমান্তে চিনি চোরাচালানে সিলেট ছাত্রলীগ

    ‘বিপদে’ সাহায্য চাওয়া অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশকে ডাকে না ১৬ বছর

    প্রভাসে আশায় বুক বাঁধছে ভারতীয় বক্স অফিস