শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

সেকশন

 

পুরুষের বন্ধ্যত্বের কারণ ও লক্ষণগুলো মিলিয়ে নিন

আপডেট : ১১ মার্চ ২০২৩, ১৪:৪৫

প্রতীকী ছবি বিয়ের পর দম্পতিরা স্বাভাবিকভাবে সন্তান কামনা করে থাকেন। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সুখী দাম্পত্য জীবনের অন্যতম নিয়ামক বিবেচিত হয় সন্তান। স্বাভাবিক উপায়ে সন্তান ধারণের ঘটনা না ঘটলে ছন্দে বাঁধা জীবনে তাল কেটে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। দুঃখজনক হলেও সত্য, বর্তমানে পৃথিবীর প্রতি সাত জোড়া দম্পতির মধ্যে এক জোড়া দম্পতি বন্ধ্যত্বের শিকার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বে বর্তমানে ৪০ থেকে ৬০ শতাংশ দম্পতির ক্ষেত্রে পুরুষের সমস্যার কারণে সন্তান ধারণ হয় না। পুরুষের বন্ধ্যত্বের কারণ, লক্ষণ ও নিরাময়ে করণীয়গুলো মিলিয়ে নিন:

পুরুষের বন্ধ্যত্বের কারণ
কমপক্ষে এক বছর সন্তান ধারণে সক্ষম নারী সঙ্গীর সঙ্গে নিয়মিত অসংরক্ষিত যৌনমিলন সত্ত্বেও নারী সঙ্গীটি গর্ভধারণে ব্যর্থ হলে সে পুরুষকে বন্ধ্য বলা যাবে। পুরুষের ফার্টিলিটি বা উর্বরতার কয়েকটি প্রভাবক রয়েছে। যেমন:

১. ইরেকটাইল ডিসফাংশন বা পুরুষত্বহীনতা 
২. দুর্বল যৌনাকাঙ্ক্ষা
৩. শুক্রাণুজনিত সমস্যা। এর মধ্যে আছে—

  • শুক্রাণুর উৎপাদন কম হওয়া
  • কার্যকর শুক্রাণুর সংখ্যা কম থাকা
  •  গতিশীলতার হার কম থাকা

৪. পুরুষ হরমোন বা টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রা কম থাকা।

এ কারণগুলো কোনো কোনো ক্ষেত্রে জন্মগত, জিনগত বা দীর্ঘমেয়াদি অসুখ ও এর চিকিৎসাজনিত ফল থেকে হতে পারে। আবার কখনো ব্যক্তিগত ক্ষতিকর জীবনাচরণ, যৌনরোগ, পেশাগত ও পরিবেশগত ঝুঁকি ইত্যাদি কারণেও হতে পারে। এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ কিছু কারণ হলো—

  • ধূমপান করা
  • মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল সেবন ও অন্যান্য নেশাদ্রব্য গ্রহণ করা
  • স্থূলতা
  • ভারী ধাতু, কীটনাশক ইত্যাদির সংস্পর্শে দীর্ঘদিন থাকা
  • ডায়াবেটিস
  • ক্যানসার এবং এর চিকিৎসায় ব্যবহৃত কেমো ও রেডিওথেরাপি
  • ভ্যারিকোসিল বা অণ্ডকোষের চারদিকের শিরা ফুলে যাওয়া
  • পূর্ববর্তী বা পুনঃপুন যৌন সংক্রমণের ইতিহাস, বিপরীতমুখী বীর্যপাত
  • অণ্ডথলিতে অণ্ডকোষ অনুপস্থিত থাকা
  • বয়স ৪০ বছর বা এর বেশি
  • বিটাব্লকার, অ্যানাবলিক স্টেরয়েড ধরনের ওষুধ দীর্ঘদিন সেবন করা ইত্যাদি। 

পুরুষের বন্ধ্যত্বের লক্ষণ
বন্ধ্যত্বে আক্রান্ত পুরুষের মধ্যে যে লক্ষণগুলো প্রকাশ পেতে পারে—

  • যৌনমিলনে অনীহা বা সমস্যা
  • বীর্যপাতজনিত সমস্যা
  • অণ্ডথলিতে ব্যথা বা ফুলে যাওয়া
  • স্তনের অস্বাভাবিক বিকাশ বা গাইনোকোমাস্টিয়া
  • শরীরে বা মুখে পুরুষালি লোম কমে যাওয়া
  • পুনঃপুন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণ
  • জন্মগতভাবে ঘ্রাণ গ্রহণে অক্ষমতা।

বন্ধ্যত্ব নিরাময়ে করণীয়
সঠিক কারণ নির্ণয় সাপেক্ষে পুরুষের বন্ধ্যত্বের অধিকাংশ সমস্যাই নিরাময়যোগ্য। বিভিন্ন ধরনের আধুনিক চিকিৎসার পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপন পদ্ধতির সঠিক পরিমার্জন দরকার।

১. ওষুধ
বন্ধ্যত্ব চিকিৎসায় ওষুধের প্রয়োগ করা হয় মূলত হরমোনজনিত সমস্যার ক্ষেত্রে এবং পুরুষত্বহীনতা দূর করে শুক্রাণুর সংখ্যাকে প্রভাবিত করার জন্য। এ ছাড়া যৌননালির সংক্রমণের চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা হয়।

২. সার্জারি
পুরুষ প্রজননতন্ত্রের কিছু কিছু সমস্যায় সার্জারির মাধ্যমে বন্ধ্যত্বের চিকিৎসা করা হয়। এর মধ্যে ভ্যারিকোসিল অপারেশন, বন্ধ হয়ে যাওয়া ভাস ডিফারেন্স খুলে দেওয়া ইত্যাদি। এ ছাড়া সরাসরি অণ্ডকোষ থেকে শুক্রাণু সংগ্রহ করে প্রজননের সহায়ক বিভিন্ন পদ্ধতিতে ব্যবহার করা যায়। 

৩. সহায়ক প্রজনন পদ্ধতি
ডিম্বাণুকে যেসব পদ্ধতিতে মানবদেহের বাইরে নিষিক্ত করার ব্যবস্থা করা হয়, সে পদ্ধতিগুলোকে সহায়ক প্রজনন বলে। ইন-ভিট্রো-ফার্টিলাইজেশন, ইন্ট্রোসাইটোপ্লাজমিক স্পার্ম ইনজেকশন ইত্যাদি এ ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতির অন্তর্গত।

৪. খাদ্যাভ্যাস ও জীবনাচরণ 
উর্বরতা বৃদ্ধিকারী খাদ্য়পরিকল্পনা অনুসরণ পুরুষের বন্ধ্যত্ব প্রতিরোধ ও প্রতিকারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। প্রতিদিন সুষম ও স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ডি, ফলিক অ্যাসিড, জিংক, সেলেনিয়াম-সমৃদ্ধ খাবার, যেমন মাছ, মাংস, ডিম, দুধ ও দুধজাত খাবার, তাজা ও সবুজ শাকসবজি, ফল ইত্যাদি খাদ্যতালিকায় থাকতে হবে। 

৫. ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ নিয়মিত 
শরীরচর্চার চেষ্টা করতে হবে। ধূমপান, অ্যালকোহল ও অন্যান্য নেশাজাতীয় দ্রব্য় গ্রহণ বাদ দিতে হবে। উচ্চ তাপমাত্রার স্থানে দীর্ঘক্ষণ অবস্থান না করা, সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য যৌন অভ্য়াস গড়ে তোলায় মনোযোগী হতে হবে।

ডা. তাহমিদা খানম, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল 

ডাক্তারের পরামর্শ সম্পর্কিত আরও পড়ুন:

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     

    জেলা পর্যায়ে হৃদ্‌রোগের চিকিৎসা আরও বাড়াতে হবে: এসসিএআই সম্মেলনে বক্তারা

    বায়ুবাহিত রোগ সংক্রমণের নতুন তথ্য দিল ডব্লিউএইচও

    দাম্পত্য জীবনে সুখ আনে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ

    মৌসুমে চারজনে একজন ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত হন

    গরিব দেশে শিশুদের দুধে চিনি মেশাচ্ছে নেসলে

    মানুষ কি নিজের নাক ডাকা শুনতে পায়

    নোয়াখালীতে মিয়ানমার থেকে চোরাই পথে আসা ৫ টন কফি জব্দ, আটক ২

    কচুয়ায় বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

    ইরানে ইসরায়েলের হামলার খবর আগেই পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র

    ইসরায়েলি হামলায় ইরানের পরমাণু স্থাপনার কোনো ‘ক্ষতি হয়নি’ 

    যুক্তরাজ্যে ৫ থেকে ৭ বছর বয়সীদের এক চতুর্থাংশের হাতে স্মার্টফোন: গবেষণা 

    ‘ব্যাংক ধ্বংসে মালিকেরা সহায়তায় সরকার’