বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

সেকশন

 

ব্যক্তিগত এআই ডিভাইস উদ্ভাবনে স্যাম অল্টম্যান ও জনি আইভের জুটি

আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ২২:২৯

জনাথন আইভ ও স্যাম অল্টম্যান। ছবি: সংগৃহীত  অ্যাপলের সাবেক প্রধান ডিজাইন কর্মকর্তা (সিডিও) জোনাথন (জনি) আইভ ও ওপেন এআইয়ের প্রধান নির্বাহী স্যাম অল্টম্যান একসঙ্গে কাজ শুরু করেছেন। মূলত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন ব্যক্তিগত ডিভাইসের ডিজাইন করার লক্ষ্যেই তাঁদের এই জোট। দ্য ইনফরমেশনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পরবর্তী প্রজন্মের ‘কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক ডিভাইস’ তৈরির লক্ষ্যে এই জুটি ১০০ কোটি ডলার তহবিল সংগ্রহ করছেন। 

নতুন ডিভাইসটি ঠিক কেমন হবে সে বিষয়ে খুব বেশি কিছু জানা না গেলেও একটা বিষয় নিশ্চিত যে ২০০৭ সালে প্রযুক্তি জগতে আইফোনের নকশা করে গন্ডগোল পাকানোর পর আইভ আরও একটি স্মার্টফোন ডিজাইনে আগ্রহী নন। স্যাম অল্টম্যান নিজেও হিউম্যান এআই কোম্পানির প্রধান বিনিয়োগকারী। 

জোনাথন আইভের সাবেক সহকর্মী, ইমরান চৌধুরী ও বেথানি বন্জিওর্নোর প্রতিষ্ঠিত কোম্পানি সম্প্রতি বাজারে আসা ‘হিউম্যান এআই পিন’ ডিভাইসের উদ্ভাবক। উল্লেখ্য যে, ইমরান ও বেথানি আইফোন, আইপ্যাড ও অ্যাপল ওয়াচ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। 

২০২৩ থেকেই অল্টম্যান ও আইভের পার্টনারশিপের গুজব শোনা গেলেও এবারই প্রথম তাঁরা আনুষ্ঠানিকভাবে যৌথ উদ্যোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তাদের স্টার্টআপ কোম্পানির এখনো নাম ঠিক হয়নি তবে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের জন্য তারা বিশ্বের প্রধান প্রধান মূলধনী কোম্পানিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওপেন এআইও এই স্টার্টআপে বিনিয়োগ করতে পারে। এ ছাড়া অল্টম্যান ও আইভ সফট ব্যাংকের সিইও মাসাইয়োশি সন ও থ্রাইভ ক্যাপিটালের সঙ্গেও বিনিয়োগের জন্য আলোচনা করছেন। অ্যাপলের সহপ্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবসের স্ত্রী লরেন পাওয়েলের যৌথ মূলধনী উদ্যোগ ‘দ্য এমারসন কালেকটিভ’ও এই প্রকল্পে যুক্ত আছে। 

২০১৯ সালে অ্যাপল ছাড়ার পর মার্ক নিউসনকে সঙ্গে নিয়ে ‘লাভ ফ্রম’ নামে একটি ডিজাইন কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন আইভ। ২০১১ সালে স্টিভ জবস মারা যাওয়ার পর থেকে আইভ ক্রমান্বয়ে অ্যাপলে তাঁর কার্যক্রম গুটিয়ে নিতে শুরু করেন। ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠানটির হিউম্যান ইন্টারফেস ও হার্ডওয়্যার ডিজাইন টিম একত্র করে তাঁর অধীনে দেওয়ার পর দায়িত্ব বাড়লেও আইভ ক্রমেই নিঃসঙ্গচারী হতে থাকেন। 

ধীরে ধীরে আইভের মনোযোগের কেন্দ্রে চলে আসে ‘অ্যাপল পার্ক’ নির্মাণ। অ্যাপলে তাঁর শেষ প্রকল্প ছিল গত ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশিত ‘ভিশন প্রো’ ডিভাইসটি। নিজের কোম্পানি ‘লাভ ফ্রমে’ থেকেই তিনি এই ডিভাইস নিয়ে কাজ করছিলেন। যদিও ২০২২ সালে লাভ ফ্রমের সঙ্গে অ্যাপল আর চুক্তি নবায়ন করেনি। 

স্টিভ জবসের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন আইভ ও এমনকি লরেন পাওয়েলের সঙ্গেও তাঁর সুসম্পর্ক আছে। দ্য এমারসন কালেকটিভ, থ্রাইভ ক্যাপিটাল ও মাসাইয়োশি সনের অংশগ্রহণে আইভ ও অল্টম্যানের নতুন ডিভাইস কি রূপ নেবে তা জানতে উৎসুক এখন প্রযুক্তিপ্রেমীরা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট লিংকড ডিভাইস থেকেও লক করা যাবে

    আইফোন ১৬ প্রোতে নীল রং থাকছে না, পরিবর্তে যা আসছে 

    বিল্ড সম্মেলনের প্রথম দিনে যা যা উন্মোচন করল মাইক্রোসফট 

    অর্থনীতির বিভিন্ন খাতে উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সাহায্য করছে এআই: জরিপ

    বিএমডব্লিউ-জাগুয়ারে নিষিদ্ধ চীনা কোম্পানির যন্ত্রাংশ ব্যবহারের অভিযোগ  

    আইফোনের যে ত্রুটি সংশোধনে আইওএস ১৭.৫.১ আপডেট আনল অ্যাপল

    উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

    দ্বিতীয় ধাপের ভোটে যাঁরা চেয়ারম্যান হলেন

    সিলেটে নির্বাচনে হেরে আ.লীগ নেতাকে বেইজ্জতি করার হুমকি

    সিলেট থেকে সরাসরি হজ ফ্লাইট চালু

    পুনের পোর্শেকাণ্ড: আড়াই হাজার টাকার জন্য লাইসেন্স ছিল না সাড়ে ৩ কোটির গাড়িটির

    এমপি আনোয়ারুল আজীমকে খুন করতে ৫ কোটি টাকার চুক্তি

    যেসব কারণে ভ্রমণ ও পর্যটন সূচকে তলানিতে বাংলাদেশ