সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

সেকশন

 

টিকটক ‘ভয়ংকর’ কনটেন্টে সয়লাব বলছে ইতালি 

আপডেট : ২২ মার্চ ২০২৩, ২০:৪৬

টিকটকের বিষয়বস্তু বা কনটেন্ট নিয়ে উদ্বিগ্ন ইতালি। ছবি: ফাইল ছবি  নিরাপত্তা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ সরকারি ডিভাইসে নিষিদ্ধ করে টিকটক। এবার চীনা মালিকানাধীন শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটক নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে ইউরোপের আরেক দেশ ইতালি। তবে ইতালি উদ্বিগ্ন টিকটকের বিষয়বস্তু বা কনটেন্ট নিয়ে। প্ল্যাটফর্মে ‘ভয়ংকর’ রকমের কনটেন্ট বৃদ্ধি পাওয়ায় টিকটক নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে দেশটি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি টিকটকে একটি ট্রেন্ড ভাইরাল হয় যা ‘ফ্রেঞ্চ স্কার’ নামে পরিচিত। ট্রেন্ডটির নিয়ম অনুযায়ী, নিজের মুখে নিজেকেই আঘাত করতে হবে। টিকটকে এই ট্রেন্ড ভাইরাল হওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসে ইতালির প্রশাসন

ইতালির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কনটেন্টবিষয়ক টিকটকের নিয়মাবলি দিয়ে রেখেছে, সেদিকে নজর দিচ্ছে না। টিকটক নিজেদের নিয়ম নিজেরাই ভাঙছে বলেও অভিযোগ জানায় ইতালি। আত্মহত্যা, নিজেকে কষ্ট দেওয়া, দারিদ্র্য, খেতে না পাওয়া— এই সমস্ত বিষয়ের ওপর টিকটকে কনটেন্ট রয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এত অভিযোগ সত্ত্বেও কনটেন্টগুলো প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানো হয়নি।  

সম্প্রতি, যুক্তরাজ্যের মন্ত্রীদের কাছে থাকা সরকারি ফোনে টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হয়। নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে ১৬ মার্চ এই সিদ্ধান্ত নেয় যুক্তরাজ্য সরকার। এদিকে টিকটকের চীনের মালিকানা বিক্রি করতে বাইটড্যান্সের ওপর চাপ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি ইউরোপের আরেকটি দেশ বেলজিয়ামের সরকারি ফোনেও নিষিদ্ধ হয় টিকটক।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্রিটিশ সরকার আশঙ্কা করছে টিকটকের মাধ্যমে সরকারি ফোনে থাকা সংবেদনশীল তথ্য চীন সরকারের হাতে চলে যেতে পারে। যুক্তরাজ্যের ক্যাবিনেট মন্ত্রী অলিভার ডাউডেন বলেন, টিকটক অ্যাপে জারি করা এই নিষেধাজ্ঞা ‘সতর্কতামূলক’ পদক্ষেপ হিসেবে নেওয়া হয়েছে এবং তা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

এদিকে ব্যবহারকারীদের তথ্য চীন সরকারের কাছে হস্তান্তর করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে টিকটক। টিকটকের গভর্নমেন্ট রিলেশনস অ্যান্ড পাবলিক পলিসি ইন ইউরোপের ভাইস-প্রেসিডেন্ট থিও বার্ট্রাম বলেন, ‘মূলত ভূ-রাজনীতিকে প্রাধান্য দিয়েই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে আমরা মনে করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভয় নয়, বাস্তবতার ভিত্তিতে আমরা তাদের সবকিছু বিবেচনা করতে বলেছি।’

লন্ডনে অবস্থিত চীনা দূতাবাস জানায়, ব্রিটিশ সরকারের এই পদক্ষেপ কোনো তথ্যের ভিত্তিতে নয়, বরং এটি একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। এই সিদ্ধান্ত যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়িক পরিবেশ নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আস্থাকে ক্ষুণ্ন করবে। ব্রিটিশ ক্যাবিনেট মন্ত্রী অলিভার ডাউডেন বলেন, ‘আমি জনসাধারণকে টিকটক ব্যবহার করার বিরুদ্ধে কোনো পরামর্শ দেব না।’

এদিকে টিকটকের ওপর ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এরই মধ্যে টিকটক বিক্রি করে দিতেও চাপ দিচ্ছে বাইডেন সরকার। বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, টিকটকের মালিক ‘বাইটড্যান্স’ মূলত চীনা প্রতিষ্ঠান। কমিটি অন ফরেইন ইনভেস্টমেন্ট ইন দ্য ইউনাইটেড স্টেটস (সিএফআইইউএস) চাচ্ছে বাইটড্যান্স যেন টিকটকে নিজের মালিকানা বিক্রি করে দেয়। অন্যথায় প্ল্যাটফর্মটিকে যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয়ভাবে নিষিদ্ধ করা হবে।

টিকটক জানিয়েছে, ‘বাইটড্যান্স’ থেকে আলাদা হয়ে গেলেই যে যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের ডেটা নিরাপত্তাসংশ্লিষ্ট উদ্বেগ কমে যাবে, বিষয়টি এমন নয়। এদিকে, সিএফআইইউএসের সঙ্গে আলোচনা এগোতে ‘বাইটড্যান্স থেকে আলাদা হওয়ার সম্ভাবনা’ নিয়ে আলোচনা করেছেন টিকটকের নির্বাহীরা। যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের বাইটড্যান্সকে চাপে ফেলে বাধ্য করার প্রথম চেষ্টা নয় এটি। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও একই প্রচেষ্টা চালিয়েছেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     

    ব্যক্তিগত এআই ডিভাইস উদ্ভাবনে স্যাম অল্টম্যান ও জনি আইভের জুটি

    ইসরায়েলে ১২০ কোটি ডলারের প্রকল্প, গুগলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ কর্মীদের 

    ধৈর্য ও দক্ষতায় ফ্রিল্যান্সিংয়ে সাফল্য আসে

    ঈদে কোন মোবাইল ফোন

    ঘুমাতে সাহায্য করবে যেসব হেডফোন

    হোয়াটসঅ্যাপে এক মিনিটের ভিডিও

    যুক্তরাষ্ট্রের ‘সম্মতিতে’ ইসরায়েলে ইরানের হামলা, দূতিয়ালি করেছে তুরস্ক

    ক্রিস্টালের কাছে হেরে শিরোপা জয়ের স্বপ্নে ধাক্কা খেল লিভারপুল

    আড়িয়াল খাঁ নদে গোসল করতে নেমে ২ তরুণী নিখোঁজ 

    সাতক্ষীরায় ভাড়া বাড়িতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

    প্রেমিকার অন্যত্র বিয়ে ঠিক হওয়ায় যুবকের আত্মহত্যা

    পিরোজপুরে কর্মচারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ দোকানমালিকের বিরুদ্ধে