মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

সেকশন

 

ছয় মাস বেতন নেই, রেশম কারখানায় উৎপাদন বন্ধ

আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮:৪৯

বেতন পরিশোধ করার দাবিতে চলছে রাজশাহীর রেশম বোর্ড কারখানা শ্রমিকদের কর্মবিরতি। মঙ্গলবার রাজশাহী রেশম কারখানার মূল ফটকের সামনে থেকে তোলা। ছবি: আজকের পত্রিকা ছয় মাস ধরে বেতন বন্ধ থাকায় বকেয়া পরিশোধের দাবিতে কর্মবিরতিতে রয়েছেন রাজশাহী রেশম কারখানার শ্রমিকেরা। এর ফলে রাষ্ট্রায়ত্ত এই কারখানায় সাত দিন ধরে উৎপাদন বন্ধ রয়েছে।

সরকার মজুরি বাড়ানোর পর থেকে বেতন বন্ধ আছে। শ্রমিকেরা বলছেন, বর্ধিত মজুরিতে বকেয়া সব বেতন একসঙ্গে পরিশোধ না করলে তাঁরা কাজে যোগ দেবেন না।

১৯৬১ সালে রাজশাহী রেশম কারখানা প্রতিষ্ঠিত হয়। লোকসানের কারণ দেখিয়ে ২০০২ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার এটি বন্ধ করে দেয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ২০১৮ সালের জুলাইয়ে কারখানাটি চালু হলে পুরোনো কিছু দক্ষ শ্রমিক কারখানায় ফেরেন। 

ওই শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নামেমাত্র মজুরিতে তাঁরা কাজ করে আসছেন। কিন্তু ছয় মাস ধরে বেতন না পেয়ে চরম সংকটের মধ্যে পড়েছেন তাঁরা। বাধ্য হয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে কর্মবিরতি শুরু করেন তাঁরা। 

শ্রমিকেরা জানান, কারখানায় উইভার, ডাবলার ও প্রিন্টারসহ বিভিন্ন পদের ৪০ জন শ্রমিক আছেন। এর মধ্যে ১০ জন দক্ষ উইভার কাপড় বোনেন। ২০০২ সালে কারখানা বন্ধ হওয়ার আগেই ২০ থেকে ২৬ বছর ধরে কাজ করছিলেন তাঁরা। প্রতি গজ কাপড় বুননের জন্য তাঁরা ৫০ টাকা পান। দিনে সর্বোচ্চ ৫ গজ কাপড় হয়। ছুটির দিনে কোনো কাজ হয় না। মজুরিও পান না। মাসে মজুরি হয় বড়জোর সাত হাজার টাকা। 

অন্য ৩০ জন শ্রমিক কাজ করেন দৈনিক ৩০০ টাকা মজুরির ভিত্তিতে। ছুটির দিনে কারখানা বন্ধ থাকে বলে তাঁরা সেদিন মজুরিও পান না। মাসে বড়জোর সাড়ে ৭ হাজার টাকা পান। গত বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে তাঁরা মজুরির কোনো টাকা না পেয়ে বেকায়দায় পড়েছেন। 

কারখানার উইভার সানোয়ার হোসেন বলেন, ‘ছয় মাস ধরে অনেক কষ্টে বেঁচে আছি। পকেটে টাকা নেই, দোকানদার এখন বাকি দেয় না। সন্তানদের পড়াশোনা বন্ধ হওয়ার পথে। বাড়ি ভাড়া দিতে পারছি না। অনেকে চিকিৎসার খরচও জোগাড় করতে পারছেন না। কিছুদিন আগে কারখানার এক শ্রমিকের ছেলে মারা গেল বিনা চিকিৎসায়।’ 

শ্রমিকেরা আরও জানান, দীর্ঘদিন পর রেশম কারখানা চালু হচ্ছে দেখে কম মজুরিতেই তাঁরা কাজে যোগ দিতে রাজি হয়েছিলেন। ২০২০ সালের ১২ অক্টোবর অর্থ মন্ত্রণালয় এক চিঠিতে বিভাগীয় শহর এলাকার দক্ষ শ্রমিকদের মজুরি ৬০০ টাকা এবং অনিয়মিত অদক্ষ শ্রমিকের মজুরি ৫৫০ টাকা নির্ধারণ করে। কিন্তু এই চিঠির কথা তাঁদের জানতেই দেননি রেশম বোর্ডের কর্মকর্তারা। 

মঙ্গলবার দুপুরে শহরের শিরোইল এলাকায় রেশম কারখানায় গিয়ে প্রধান ফটকের সামনেই শ্রমিকদের বিক্ষোভ করতে দেখা যায়। 

কারখানার শ্রমিক আশরাফ আলী আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘আমাদের মজুরি বাড়ানোর চিঠি এলেও সেটা এখানকার কর্মকর্তারা আড়াই বছর ধরে জানতে দেননি। ধারণা করা হচ্ছে, বাড়তি মজুরির টাকা তুলে নিয়েছেন কর্মকর্তারা। ছয় মাস আগে চিঠি সংগ্রহ করে যখন থেকে বাড়তি মজুরি দাবি করছি, তখন থেকে বেতনও বন্ধ হয়ে গেছে। এর আগে কারখানা চালুর পর গত চার বছর রাজস্ব খাত থেকে নিয়মিতই বেতন পরিশোধ করা হয়েছে।’

২২ ফেব্রুয়ারি থেকে শ্রমিকেরা প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত প্রধান ফটকের সামনে বসে আন্দোলন করছেন। বকেয়া পরিশোধের দাবিতে থেমে থেমে তাঁরা নানা ধরনের স্লোগান দিচ্ছেন। শ্রমিকেরা এভাবে কর্মবিরতিতে থাকার কারণে রেশম কারখানা অচল হয়ে পড়েছে। গত সাত দিনে কারখানায় এক গজ কাপড়ও উৎপাদন হয়নি। কারখানা চালুর পর প্রতিদিন গড়ে ১৬০ গজ রেশম কাপড় উৎপাদন হতো এখানে। 

শ্রমিক শিল্পী রহমান বলেন, ‘মজুরি ৩০০ থেকে বাড়িয়ে ৫৫০ করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। কিন্তু এখানকার কর্মকর্তারা সেই বাড়তি টাকা আমাদের দেননি। বাড়তি মজুরি চাওয়ার পর থেকে ছয় মাস এক টাকাও দেওয়া হয়নি। এখন আমরা চলতে পারছি না। টাকা না পেলে আমরা কাজে ফিরব না।’

শ্রমিকদের বেতন বকেয়া থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে আঞ্চলিক রেশম সম্প্রসারণ কার্যালয়ের উপপরিচালক ও রেশম কারখানার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা ব্যবস্থাপক কাজী মাসুদ রেজা আজকের পত্রিকাকে বলেন, আগে রেশম কারখানার নিজস্ব টাকা থেকে শ্রমিকদের মজুরি দেওয়া হতো। পরে মন্ত্রণালয় মজুরি বৃদ্ধির চিঠি দিলেও সেটি আবার মন্ত্রণালয় থেকেই অনুমোদন নিতে বলা হয়েছে। এই অনুমোদন প্রক্রিয়া আটকে থাকার কারণে শ্রমিকেরা বেতন পাচ্ছেন না। 

মজুরি বৃদ্ধির চিঠি লুকিয়ে রাখার অভিযোগ নিয়ে জানতে চাইলে কোনো মন্তব্য না করে তিনি বাংলাদেশ রেশম বোর্ডের পরিচালক (উৎপাদন ও বিপণন) নাছিমা খাতুনের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন। 

নাছিমা খাতুনকে ফোন করা হলে তিনি ব্যস্ত আছেন জানিয়ে কথা বলতে চাননি। তাই এ বিষয়ে বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    অগ্রণী ব্যাংকের সঙ্গে খাদ্য অধিদপ্তরের চুক্তি স্বাক্ষর

    আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামকে এনআরবিসি ব্যাংকের অনুদান

    এয়ার অ্যাস্ট্রার বনানী সেলস অফিস উদ্বোধন করলেন মৌ

    ইসলামী ব্যাংকের সঙ্গে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির চুক্তি 

    ‘প্রযুক্তির অগ্রযাত্রায় নারীর পাশে আইএফআইসি ব্যাংক’ শীর্ষক ক্যাম্পেইন

    আর কে মিশন রোডে ব্র্যাক ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন

    ভূমধ্যসাগরে ভাসতে থাকা ৩৫ বাংলাদেশি উদ্ধার

    সিলেটে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, ৩টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ

    রেইনড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের ছবি ‘ডেথ অ্যান্ড ল্যান্ডস্কেপ’

    সপ্তাহে ২৫০-৫০০০ টাকা পর্যন্ত সেভিংস খোলা যাচ্ছে বিকাশ অ্যাপে

    রাইসির মৃত্যুতে তেল ও সোনার বাজারে প্রভাবের শঙ্কা

    ভাইরাল খুদে ভ্লগার শিরাজের সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়ার কারণ জানালেন বাবা