শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

সেকশন

 

কঠিন পরিস্থিতিতে নতুন করে বাঁচতে শিখুন

আপডেট : ২৪ মে ২০২৩, ১৩:৩২

প্রতীকী ছবি প্রশ্ন: আমি একজনকে খুব ভালোবাসি। আমাদের তিন বছরের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সে আমার সঙ্গে হঠাৎ কথা বলা ও যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। অনেকবার তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হই। বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছি না। আমার জীবনটা ওলটপালট হয়ে গেছে। অনেক চেষ্টা করেও ভালো থাকতে পারছি না। মনের শূন্যতা আমাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। সব সময় ভাবি, কেন সে আমাকে ছেড়ে চলে গেল। সে কি কখনো আমাকে ভালোবাসেনি, নাকি আমারই দোষ ছিল। আমি কি তাকে কাছে রাখতে ব্যর্থ হয়েছি। আমার জীবন থেকে আসলে আনন্দ চলে গেছে। প্রতি মুহূর্তে তাকে খুঁজে বেড়াই। জীবনটা অর্থহীন মনে হয়। 
ময়না, পটুয়াখালী

আপনার বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং চাকরি করছেন কি না—এ তথ্যগুলো পেলে ভালো হতো। বুঝতে পারছি, আপনি মানসিক কষ্টে আছেন। যে মানুষটি তিন বছরের সম্পর্ককে এভাবে ছিন্ন করে দেয়, তার মধ্যে দায়িত্ব, দায়বদ্ধতা আর সততার অভাব আছে। দেখুন, আপনার আবেগ, ভালোবাসা আর ভালো থাকার প্রতি যে মানুষটি এত নির্লিপ্ত, উদাসীন, তাকে নিয়ে ভেবে আর একটি মুহূর্তও নষ্ট করবেন না। আপনার লেখা পড়ে মনে হচ্ছে, তাকে সত্যিই ভালোবাসেন, এটা ওনার সীমাবদ্ধতা, এত সুন্দর নিঃস্বার্থ ভালোবাসা তিনি গ্রহণ করতে পারলেন না। ভালোবাসা হারালে মানুষের জীবন অর্থহীন হয় না। তাকে আর না খুঁজে, জীবনের লক্ষ্য ও অর্থ খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। আমরা সবাই ব্যক্তিগত প্রেম, ভালোবাসা নিয়ে ভালো থাকতে চাই। তবে কোনো কারণে জীবনে কাঙ্ক্ষিত সেই ভালোবাসা না পেলে আক্ষেপ করার কিছুই নেই। নিজেকে ভালোবাসুন, নিজের অর্জনগুলো নতুন করে মূল্যায়ন করুন, ইতিবাচক চিন্তার চর্চা করুন। দেখবেন আপনি অনেক ভালো আছেন।

প্রশ্ন: আমার বোনের বিয়ে হয়েছে ১৫ বছর আগে। এখন তার ধারণা, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার খাবারে বিষ মিশিয়ে দেবে। তাই সে আলাদা রান্না করে খায়। এ ছাড়া সে শ্বশুরবাড়ির লোকদের অহেতুক সন্দেহ করে। আমার বোনের আচার-আচরণে অনেক পরিবর্তন এসেছে। তার শ্বশুরবাড়িতে গেলে দেখি, প্রায়ই দরজা বন্ধ করে রাখে, চুপচাপ থাকে। কারও সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলে না। আমাকে তার শ্বশুরবাড়ি সম্পর্কে উল্টাপাল্টা কথা বলে। আমার বোনের শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাকে নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছেন। আমার বোনকে কীভাবে সুস্থ করে তুলতে পারি?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, ভোলা

আপনার বোন মানসিক সমস্যায় রয়েছেন। এসব ক্ষেত্রে দ্রুত চিকিৎসা নেওয়া জরুরি। তিনি যদি বিশ্বাস করেন, সবাই তার ক্ষতি করতে চায়, তাকে মেরে ফেলতে চায়, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে অথবা তিনি কানে স্পষ্টভাবে এ ধরনের কথা শোনেন, যা আর কেউ শোনে না অথবা তিনি তার সাংসারিক কাজকর্ম বা সম্পর্ক রাখতে পারছেন না, ছয় মাসের বেশি সময় ধরে এলোমেলো কথাবার্তা বলছেন বা আচরণ করছেন—এগুলো গুরুতর মানসিক রোগের লক্ষণ। আপনাদের পরিবারের কারও মানসিক রোগের ইতিহাস আছে কি না, জানতে পারলে ভালো হতো। চিন্তার কিছু নেই। সঠিকভাবে রোগ নির্ণয় হলে এ রোগের চিকিৎসায় রোগী সুস্থ হয়।

শুধু একটু পারিবারিক সহযোগিতা প্রয়োজন। আপনার বোনকে নিকটস্থ যেকোনো স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অথবা সরাসরি জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, শেরেবাংলা নগর, ঢাকায় নিয়ে আসুন। আশা করি উপযুক্ত চিকিৎসার মাধ্যমে তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন : ডা. ফারজানা রহমান, সহযোগী অধ্যাপক, মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    মাখো মাখো মুরগীর রোস্ট

    এবার টাইমের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির তালিকায় মেরিনা তাবাশ্যুম

    জানা গেল কারিনার রূপ রহস্য

    উজবেকের সবুজ হ্রদ শুভ্র পাহাড়

    একনজরে সিলেট

    লুই ভিতনের আজব ট্রাঙ্ক

    মায়ার ভাতিজা বউ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হচ্ছেন ভাইস চেয়ারম্যান

    ইসরায়েলি হামলার পর আবারও তেহরানে বিমান চলাচল শুরু

    মাখো মাখো মুরগীর রোস্ট

    শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোট দিতে পারছেন না যেসব তারকা শিল্পী

    টাকায় বড় হয় স্বাস্থ্যসেবা দল

    সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির নতুন প্রো ভিসি অধ্যাপক এম মোফাজ্জল হোসেন