Alexa
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

সবার জন্য উচ্চশিক্ষা উন্মুক্ত রাখতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৪৩

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ফাইল ছবি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে ধরাবাঁধা নিয়ম থেকে বের হয়ে এসে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, আমাদের দেশে উচ্চশিক্ষায় নানামুখী বাধা রয়েছে। জীবনব্যাপী শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে আমাদের উচ্চশিক্ষার দেয়ালগুলো ভেঙে দিতে হবে। 

আজ রোববার রাজধানীর একটি কনভেনশন হলে রাওয়া রিসার্চ অ্যান্ড স্টাডি ফোরাম আয়োজিত শিক্ষা ও নৈতিকতা শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনো বয়সে একজন শিক্ষার্থীকে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ দিতে হবে। কেউ যদি উচ্চমাধ্যমিকের পর কর্মজীবনে জড়িয়ে পড়ে পরবর্তী সময়ে সে চাইলে তাকেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ দিতে হবে।’

নৈতিকতা বোধ না শিখে আমরা যদি অনেক বেশি শিক্ষিত হয়ে যাই, দক্ষ হই, তাহলে সেই শিক্ষার কোনো মূল্য নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এ জন্য সঠিক শিক্ষাগ্রহণের পাশাপাশি আমাদের শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধও শেখাতে হবে। 

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ইউজিসি চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম বলেন, বর্তমানে আমাদের প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় পর্যন্ত, শিক্ষার্থীদের মধ্যে মূল্যবোধের অবক্ষয় পরিলক্ষিত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের নৈতিক অধঃপতন ঠেকাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যক্রমে নৈতিক শিক্ষার বিষয়টি ‍যুক্ত করা জরুরি। পাশাপাশি বিভাগের সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের আচরণের বিভিন্ন দিক মূল্যায়নে কোর্স শিক্ষকেরা নম্বর বরাদ্দের ব্যবস্থা করতে পারেন। 

সেমিনারে নির্দিষ্ট বিষয়ের ওপর বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক, সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) সাবেক উপাচার্য লে. জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান। রাওয়ার সভাপতি মেজর জেনারেল (অব) আলাউদ্দিন এম এ ওয়াদুদের সভাপতিত্বে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক খুরশীদা বেগম। 

অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক বলেন, নানা ধারা-উপধারায় বিভক্ত হওয়ার কারণে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা অত্যন্ত জটিল হয়ে উঠেছে। এর থেকে বের হতে রাষ্ট্রের সুস্পষ্ট লক্ষ্য এবং তা বাস্তবায়নের জন্য সঠিক কর্মনীতি দরকার। পাশাপাশি স্কুলসহ উচ্চশিক্ষার সকল স্তরেও নীতিবিদ্যাকে স্থান দিতে হবে। এ সময় তিনি উন্নত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে প্রয়োজনের আলোকে গ্রহণ করে এগুলো দ্বারা পরিচালিত না হতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানান।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, নীতিশাস্ত্রের সফল বিকাশ ঘটাতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। যদি এর সঙ্গে পরিবার সংযুক্ত থাকে তাহলে বিকাশটি আশানুরূপ হয়। কিন্তু আমাদের দেশের সমাজ বাস্তবতা পাল্টেছে, পরিবারের ভেতর সুনীতির চর্চা কমেছে। কোনো কোনো পরিবারের সুনীতির জায়গা নিয়ে নিয়েছে দুর্নীতি। এ ছাড়া পরীক্ষানির্ভর ও সনদমুখী শিক্ষাব্যবস্থা থেকে বের হয়ে আসতে সঠিক পরিকল্পনা নেওয়ার কথাও উল্লেখ করেন এ শিক্ষাবিদ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     
    আষাঢ়ে নয়

    যে পথ থেকে ফেরা যায় না

    বিদ্যুতের দাম প্রতি মাসে সমন্বয় করা হবে: নসরুল হামিদ

    ভূমির কারণেই সংখ্যালঘুরা বেশি নির্যাতিত হচ্ছে: কর্মশালায় বক্তারা

    এক বছরে ৫৩২ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা: জরিপ

    ক্ষমতার অপপ্রয়োগ যেন না হয়: ডিসিদের প্রতি রাষ্ট্রপতির নির্দেশ

    বিদেশে বসে অনলাইনে জমির পর্চা পাবেন প্রবাসীরা: ভূমিমন্ত্রী

    ভালোবাসা দিবসে ‘বউ বোঝে না’

    গিটারশিল্পী‌দের মিলন‌মেলা

    ‘পান খেলেই’ মাথা দিয়ে ধোঁয়া ওঠে রব্বানীর

    ডায়াবেটিস রোগীর সংক্রমণ প্রতিরোধে

    অস্থির ব্যথা দূর করতে

    অসাবধানতায় বাড়ে স্ট্রোকের ঝুঁকি