Alexa
মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

ঈদের ছুটিতে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা

আপডেট : ০৬ জুলাই ২০২২, ০৮:৪৪

প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী। গতকাল রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালের ডেঙ্গু ওয়ার্ডে। ফাইল ছবি দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েই চলেছে। চলতি মাসে দিনে গড়ে ৩৯ জন করে রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। এর মধ্যে বেশির ভাগ রোগীই রাজধানীতে। তবে বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, ঈদের ছুটিতে মানুষ বাড়িতে গেলে সারা দেশেই ছড়িয়ে পড়তে পারে ডেঙ্গু।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. কবিরুল বাশার বলেন, রাজধানীতে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশি। তবে ঈদের ছুটিতে দেশের ৬৪ জেলার মানুষ গ্রামের বাড়িতে যাবেন। এ সময় কেউ ডেঙ্গুর জীবাণু নিয়ে গ্রামে গেলে সেখান থেকে ছড়িয়ে পড়তে পারে অন্যদের মধ্যে। এ জন্য আক্রান্ত ব্যক্তিকে মশারি ব্যবহার করতে হবে। একই সঙ্গে যাঁরা ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাচ্ছেন, তাঁদের বাসাবাড়ির কোনো পাত্রে যাতে বৃষ্টির বা অন্য পানি জমতে না পারে, সে বিষয়ে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে।

কবিরুল বাশার আরও জানান, ২০১৯ সালে সারা দেশে ডেঙ্গু আশঙ্কাজনকভাবে ছড়িয়ে পড়ার অন্যতম কারণ ছিল ঈদের ছুটিতে মানুষের গ্রামমুখী হওয়া। ওই বছর মৃত্যু ও শনাক্ত এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি হয়েছিল। ফলে এ বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তিনি ধারণা করছেন, ডেঙ্গুর প্রকোপ আগামী আগস্টে চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে। আবার সেটি সেপ্টেম্বরেও হতে পারে। এ জন্য সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে গত সোমবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ৪৬ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাদের মধ্যে ঢাকায় ৪৩ জন এবং অন্যত্র তিনজন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের প্রতিবেদন অনুযায়ী এই তথ্য পাওয়া গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের ৫ দিনে দেশে মোট ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয় ১৯৫ জন। অর্থাৎ গড়ে ৩৯ জন রোগী দৈনিক ভর্তি হচ্ছে। গত মে মাসের ৩১ দিনে ডেঙ্গু নিয়ে ভর্তি হয়েছিল ১৬৩ জন। আর জুনে ভর্তি হয়েছিল ৭৩৭ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয় ৪৩ জন। আগের দিন ভর্তি হয়েছিল ৩১ জন এবং তার আগের দিন ভর্তি হয় ৩২ জন। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত মোট রোগী শনাক্ত ও ভর্তি হয়েছে ১ হাজার ২৮৪ জন। তাদের মধ্যে রাজধানীতে রোগী শনাক্ত ও ভর্তি হয় ১ হাজার ১৩৩ জন। এ পর্যন্ত একজন ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নিশ্চিত করেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গতকাল পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি ছিল ১৫২ জন। আগের দিন ছিল ১৪৪ জন। বর্তমানে ভর্তি রোগীদের মধ্যে রাজধানীর ৪৭টি সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে ১৩৯ জন। ঢাকার বাইরে চিকিৎসা নিচ্ছে ১৩ জন।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চলতি বছর ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়বে। রাজধানী ঢাকা অপরিকল্পিত নগরায়ন। ফলে এখানে এডিসের জন্ম বেশি হচ্ছে। এডিস মশার আক্রমণ থেকে বাঁচতে সচেতনতার বিকল্প নেই। বাড়ি বা বাসার আঙিনায় কোনো পানি যাতে জমে না থাকে সেদিকে দৃষ্টি দেওয়ার আহ্বান জানান তাঁরা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    সময়টা অনুধাবন করে সহনশীল হতে হবে

    কারাগারে না পাঠিয়ে সংশোধনের সুযোগ অপরাধীদের

    বাসে বাড়তি ভাড়ায় বিপাকে যাত্রী, বাধছে তর্কবিতর্ক

    ভোগান্তির আরেক নাম ফতেপুর বেইলি সেতু

    এখনো বই পায়নি সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীরা

    শিশুর চুল থাকুক খুশকিমুক্ত

    পার্বত্য চট্টগ্রামে সামরিক শাসন চলছে: সন্তু লারমা

    মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন বিবাহিতরাও

    অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড হাতিয়ে উপবৃত্তির টাকা হাপিস

    ঢামেক হাসপাতালে অন্তঃসত্ত্বার মৃতদেহ রেখে পালিয়েছে ২ নারী

    পুরোনো কথা মনে করে আমিরের চোখে জল