Alexa
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

পদত্যাগ করলেন সেই পর্নোগ্রাফি দেখা সাংসদ

আপডেট : ০১ মে ২০২২, ১৪:৪৩

নিল প্যারিস। ছবি: ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বসে পর্নোগ্রাফি দেখা সেই সংসদ সদস্য নিজের অপরাধ স্বীকার করে পদত্যাগ করেছেন। গতকাল শনিবার নিল প্যারিস বলেন, ‘তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে তাঁর মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি দেখেছিলেন।’ এরপর তিনি পদত্যাগ করার ঘোষণা দেন। বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

এএফপি জানিয়েছে, নিল প্যারিস ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির একজন আইনপ্রণেতা। তিনি দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ডের একটি আসনের প্রতিনিধি ছিলেন। 

পদত্যাগের ঘোষণা দেওয়ার পর বিবিসির এক সাক্ষাৎকারে নিল প্যারিস বলেন, ‘সেটি ছিল একটি অসতর্ক মুহূর্ত। আমি মনে করি, সে সময় আমার ইন্দ্রিয়ের ওপর কোনো নিয়ন্ত্রণ ছিল না। একটি পাগলামির মুহূর্তে আমি ভুল করেছিলাম। এ জন্য আমি আত্মপক্ষ সমর্থন করতে চাইছে না। ঘটনার ভুল স্বীকার করে আমি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ 

নিল প্যারিসের বয়স ৬৫। তিনি ২০১০ সাল থেকে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট হাউস অব কমন্সের একজন সদস্য। ইতিমধ্যে তিনি কনজারভেটিভ পার্টি থেকে বহিষ্কৃত হয়েছেন। শুক্রবারে তাঁর কেলেঙ্কারি প্রকাশ্যে আসার পর দুটি সংসদীয় তদন্তের মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। 

প্যারিসের পদত্যাগের ঘোষণার পর ডেভনের টিভারটন এবং হোনিটন নির্বাচনী এলাকায় একটি উপনির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ২০১৯ সালে তিনি এই আসনে ২৪ হাজারেরও বেশি সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছিলেন। 

গত ২৮ এপ্রিল নিল প্যারিসের বিরুদ্ধে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট হাউস অব কমন্সে বসে পর্নোগ্রাফি দেখার অভিযোগ ওঠে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ডলারের বিপরীতে সর্বকালের সর্বনিম্ন ব্রিটিশ পাউন্ড

    প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী পেতে চলেছে ইতালি 

    কী আছে সিআইয়ের গোপন জাদুঘরে

    ভারতে বিজেপি নেতার ছেলের রিসোর্টে তরুণী খুন, ছেলেকে ‘সহজ-সরল’ দাবি বাবার

    উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন পুতিন

    রাশিয়ায় যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভে শত শত মানুষ গ্রেপ্তার

    ভোটে ‘লড়তে’ হচ্ছে আ.লীগের পিকুলকে

    ভোটে হেরে গিয়ে লেবু চাষ বুলবুলের বাজিমাত

    ধুঁকছে কমিউনিটি ক্লিনিক

    দেড় বছরে রডে মরিচা অতঃপর কাজ শুরু

    আফিফ বলছেন, তাঁদের ওপর চাপ নেই

    ঘরে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষার হলে মাকসুদা