Alexa
রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

বাইকারদের শীতপোশাক

আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৩:১১

মডেল: রুমা, ছবি: মনজু আলম চলছে ডিসেম্বর মাস, বাংলায় পৌষ মাস। তবে কারও সর্বনাশ যেন না হয়, সেদিকে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। শীতকালে পোশাক-আশাকে ভিন্নতা আসে সবার। বাইকারদের তো বটেই। যাঁরা গাড়ি চালান, তাঁদের চেয়ে বাইকারদের শীতকালে পোশাক সম্পর্কে বেশি সচেতন হতে হয়।
ধরা যাক, ডিসেম্বর মাসে শীতের রাতে আপনি প্রায় ৬০ কিলোমিটার বেগে মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন। এ ক্ষেত্রে শীতের ঠান্ডা বাতাস আপনার শরীরের দিকে প্রায় ৮০-৯০ কিলোমিটার বেগে বইতে থাকে, যা আপনার শরীরের জন্য বিপজ্জনক। ফলে এই বাতাস থেকে রক্ষা পেতে বাইকারদের জন্য বিশেষ পোশাক খুব গুরুত্বপূর্ণ।

শীতের পোশাক
গরম পোশাক
এ ক্ষেত্রে শীতকালে পলিয়েস্টার বা রেওনের কাপড় পরিধান করা ভালো। সিনথেটিক পোশাক শীতের রাতে ভালো কাজ করে। সুতির কাপড় পরলে শরীরের তাপ বের হয়ে যায় অনেক। সিনথেটিক কাপড় পরলে শীতের ঠান্ডা বাতাস শরীরের ভেতর চলাচল করতে পারে না, ফলে শরীর তাপ হারায় না। হাফ হাতা পোশাক না পরে শীতে ফুল হাতা পোশাক ব্যবহার করুন। চাদরজাতীয় পোশাক গায়ে জড়িয়ে বাইক চালানো বিপজ্জনক হতে পারে। তাই সোয়েটার বা জ্যাকেটজাতীয় পোশাক ব্যবহার করুন শীত থেকে রক্ষা পেতে।
মোটরসাইকেল চালক ও আরোহীদের জন্য শীতের আরেকটি চমৎকার পোশাক হতে পারে চামড়ার জ্যাকেট। এটি শরীরের তাপ খুব ভালো ভাবে ধরে  রাখতে পারে। তা ছাড়া, এটি মোটা হওয়ায় অনেক দুর্ঘটনায় আপনাকে কিছুটা হলেও বাঁচিয়ে দিতে পারে।

চেস্ট প্রটেক্টর
বাইক চালানোর সময় শরীরের সামনের দিকে লাগে বাতাস। অনেক সময় জ্যাকেট, সোয়েটার বা চাদর সে বাতাস ঠেকাতে পারে না। বুকে লাগা বাতাস ঠেকানোর জন্য পাওয়া যায় চেস্ট প্রটেক্টর। জ্যাকেটের পিঠ সামনের দিকে রেখে চেন পেছনে রাখলে যে অবস্থা হয়, চেস্ট প্রটেক্টর সে রকমই। তবে সোয়েটার, শার্ট বা চাদরের নিচে ব্যবহার করা হয় বলে এগুলো হাফ হাতা হয়ে থাকে। রেক্সিন বা লেদারের তৈরি চেস্ট প্রটেক্টর ব্যবহার করতে হবে।

এগুলো বানিয়েও নেওয়া যায় খুব অল্প টাকা ব্যয় করে।

মডেল: সানিয়াৎ, ছবি: মনজু আলম এয়ার প্রটেক্টর জ্যাকেট
শীতের বাতাস থেকে বাঁচতে ভালো মানের একটি এয়ার প্রটেক্টর জ্যাকেট সংগ্রহ করে নিন। ভালো মানের রেইনকোট ভালো মানের এয়ার প্রটেক্টর জ্যাকেট হিসেবে কাজ করতে পারে। এ ছাড়া বিভিন্ন ব্র্যান্ডের এয়ার প্রটেক্টর জ্যাকেটও পাওয়া যায় বাজারে। এগুলো দেখতে অনেকটাই রেইনকোটের মতো।

জুতা ও মোজা
শুধু জুতা বা স্যান্ডেল পরলে শরীরের তাপ ধরে রাখা যায় না; বরং শরীর দ্রুত তাপ হারায়। কিন্তু মোজা পরলে শরীরের এই তাপ কমে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে না। সুতি বা সিনথেটিক যেকোনো আরামদায়ক মোজা ব্যবহার করতে পারেন।
শীতের দিনে বাইক চালানোর সময় স্যান্ডেল ব্যবহার না করে জুতা ব্যবহার করা ভালো।

গ্লাভস
শীতে হাতে অবশ্যই গ্লাভস পরে নেবেন। গ্লাভস শীতকালে হাত ঠান্ডা হওয়া থেকে রক্ষা করে ও হাতের তাপ ধরে রাখে। সাধারণত হাতের তাপ সহজে কমে না। কিন্তু একবার কমতে থাকলে তা নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়ে। এমনকি গ্লাভস পরলেও স্বাভাবিক তাপ ফিরে আসে না। কারণ, মোটরসাইকেল চালানোর সময় হাতের তাপ ধারণক্ষমতা অনেক কমে যায়। ফলে হাতের তাপ ধরে রাখার জন্য গ্লাভসের কোনো বিকল্প নেই। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের গ্লাভস পাওয়া যায়। হাতের মাপমতো পছন্দের গ্লাভসটি 
কিনে নেবেন।

হেলমেট
শীত, গ্রীষ্ম বা বর্ষা—ঋতু যাই হোক না কেন, হেলমেট পরতে একদমই ভুলবেন না। হেলমেট আপনাকে যেমন দুর্ঘটনার ক্ষতি থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা করবে, তেমনি শীতের ঠান্ডা থেকেও রক্ষা করবে। সামনে ভিজরস বা হালকা গ্লাসযুক্ত হেলমেট ব্যবহার করলে মাথা ও কানের সঙ্গে আপনার মুখমণ্ডলও ঠান্ডা থেকে সুরক্ষিত থাকবে। বাইক চালানোর সময় অবশ্যই ভালো মানের হেলমেট ব্যবহার করবেন।

লেখক: সিইও ও ফাউন্ডার বাংলা অটোমোবাইল স্কিলস

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    আজকের রাশিফল

    আজকের রাশিফল

    আজকের রাশিফল

    পাহাড়ে মিষ্টি বিতরণ পুরস্কার ঘোষণা

    কৃষ্ণার গ্রামে জয়োল্লাস

    আনন্দের বন্যা সাতক্ষীরায়

    টিকিটসহ ধরা বুকিং সহকারী, বরখাস্ত

    শিল্পবর্জ্যে শীতলক্ষ্যার সর্বনাশ

    বঙ্গবন্ধু সেতুতে গাছবোঝাই ট্রাক উল্টে রেললাইন ব্লক, ট্রেন চলাচল বন্ধ

    মধ্যরাতে উত্তপ্ত ইডেন, গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ায় হল ছাড়া ছাত্রলীগ নেত্রী

    রাজধানীতে গৃহকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু, গৃহকর্তার দাবি আত্মহত্যা

    ফুটবলারদের জন্য বিশেষ অ্যাপ আনছে ফিফা