রামেক হাসপাতালে আরও ১৪ মৃত্যু

রামেক হাসপাতালে কমলো মৃত্যু। ছবি: আজকের পত্রিকারাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ১৪ জন। গতকাল রোববার সকাল ৮টা থেকে আজ সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে তাঁরা মারা যান। আজ সোমবার সকালে হাসপাতালের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

এতে বলা হয়, মৃত ১৪ জনের মধ্যে রাজশাহীর পাঁচজন, নাটোরের চারজন, পাবনার একজন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁর দুজন করে রোগী ছিলেন। এর মধ্যে রাজশাহীর দুজন, নওগাঁর দুজন, নাটোর ও পাবনার একজন করে মোট ছয়জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। 

রাজশাহীর দুজন এবং নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন করে রোগীর করোনা নেগেটিভ হলেও শারীরিক অন্যান্য জটিলতায় তাঁরা মারা গেছেন। অন্য চারজন মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে। এদের মধ্যে রাজশাহীর একজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন ও নাটোরের দুজন রোগী ছিলেন। 

মৃতদের মধ্যে নয়জন পুরুষ ও পাঁচজন নারী। এদের মধ্যে ২১-৩০ বছরের মধ্যে একজন নারী, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ ও তিনজন নারী; ৫১-৬০ বছরের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী এবং ষাটোর্ধ্ব পাঁচজন পুরুষ ছিলেন। হাসপাতালের করোনা ইউনিটে এ নিয়ে চলতি মাসে ২০৪ জনের মৃত্যু হলো। গত জুনে এখানে মারা গেছেন ৪০৫ জন। 

হাসপাতালে করোনা ডেডিকেটেড শয্যার সংখ্যা ৪৫৪। সোমবার সকালে ভর্তি ছিলেন ৫১৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৬৪ জন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৮ জন। সোমবার সকালে রাজশাহীর ৩০৪ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৪২ জন, নাটোরের ৬৬ জন, নওগাঁর ৪৪ জন, পাবনার ৪৫ জন, কুষ্টিয়ার সাতজন, চুয়াডাঙ্গার তিনজন, জয়পুরহাটের তিনজন এবং সিরাজগঞ্জ, নীলফামারী ও বগুড়ার একজন করে রোগী ভর্তি ছিলেন। 

নমুনা পরীক্ষায় এদের মধ্যে ২২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর ২৩৬ জন ছিলেন করোনার উপসর্গ নিয়ে। এ ছাড়া করোনা নেগেটিভ হলেও শারীরিক নানা জটিলতায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি ছিলেন ৫২ জন। 
 
রাজশাহীর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী, রোববার জেলায় মোট ১ হাজার ৭১৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ৩০৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণের হার ১৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ।