যুক্তরাষ্ট্রের সেরা বুদ্ধিমানদের তালিকায় ৩ বছরের শিশু

আইকিউ পরীক্ষায় ১৫০ স্কোর করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে ৩ বছরের শিশু লসন লুন্ডবার্গ। ছবি: সংগৃহীতনির্ধারিত সময়ের আগেই পৃথিবীতে ভূমিষ্ঠ হয় সে। অবস্থা এতটাই সংকটাপন্ন ছিল যে, তাকে কয়েক সপ্তাহ রাখতে হয়েছে আইসিইউতে। যখন আইসিইউ থেকে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন চিকিৎসকেরা বলেছিলেন, তার বৌদ্ধিক বিকাশ দেরিতে হতে পারে। তিন বছর পর সেই শিশুই জায়গা করে নিল যুক্তরাষ্ট্রের বুদ্ধিমানদের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সংস্থার তালিকায়। সংবাদমাধ্যম গুড নিউজ নেটওয়ার্কে তাকে নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে ফিচার।

যে বয়সে শিশুরা হাঁটাচলা শেখে, সে বয়সে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাম, পতাকা ও রাজধানীর নাম জেনে ফেলেছে ওরেগনের বিস্ময় শিশু লসন লুন্ডবার্গ। জন্মের পর প্রথম দুই বছর তেমন কিছুই বলেনি সে। তার মা সারা লুন্ডবার্গের ভাষ্যমতে, দুই বছর পার হওয়ার পর থেকেই তাঁর সন্তানের মধ্যে অদ্ভুত কিছু লক্ষ্য করেন তিনি। যে জিনিস তাঁরা লসনের সামনে কখনো বলাবলি করেননি, সেগুলোও বলতে পারত সে।

নিজে থেকে শেখার এ অবাক করা ক্ষমতা দেখে লসনের বাবা-মা সিদ্ধান্ত নেন আইকিউ টেস্ট করাবেন সন্তানের। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সংস্থা জাতীয় ইন্টেলিজেন্স সংস্থা মেনসাতে ছেলেকে নাম লেখাতে রেজিস্ট্রেশন করেন তাঁরা। এর সদস্য হতে হলে আইকিউ টেস্টে ১৩০ পেতে হয়।

সবাইকে অবাক করে দিয়ে ৩ বছরের এ শিশু সেই পরীক্ষায় পায় ১৫০ নম্বর। এই আইকিউ টেস্টে বিখ্যাত বিজ্ঞানী আইনস্টাইন পেয়েছিলেন ১৬০-১৮০ নম্বর। টেস্টে লসন প্রথম দিকে কোনো ভুল উত্তরই দেয়নি। ফলে পরে তাকে আর প্রশ্ন করার সুযোগ পায়নি বিচারকেরা। তাঁরা তাকে সদস্য হিসেবে নিয়ে নেয়। কয়েক বছর পর আবার আইকিউ টেস্ট নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা।