Alexa
শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

‘আলালকে যেখানে পাওয়া যাবে সেখানে গণধোলাই দেওয়া হবে’

আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:০২

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। ফাইল ছবি  প্রধানমন্ত্রীকে জড়িয়ে বিএনপির একটি আলোচনাসভায় কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ এনে সংগঠনটির যুগ্ম-মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে যেখানে পাওয়া যাবে সেখানেই গণধোলাই দেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত এক সমাবেশে এ মন্তব্য করেন জয়।

এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ‘আলালের চামড়া, তুলে নেব আমরা’ ‘জামায়াত-শিবির রাজাকার, এই মুহূর্তে বাংলা ছাড়’ ‘আলালের দুই গালে, জুতা মারো তালে তালে’ ইত্যাদি স্লোগান দেন। 

সমাবেশে শেষে মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয় এবং তাঁর প্রতিকৃতি বানিয়ে জুতাপেটা ও ঝাঁড়ুপেটা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

সমাবেশে আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আছে বিধায় জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিতে পারছে না। শান্তিতে দেশের জনগণ ঘুমাতে পারছে। বিএনপি-জামায়াত জোটের সময় কোনো নৈতিকতা ছিল না। সে জন্য বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে কোনো আপস চলবে না। তারা পাকিস্তানের প্রেতাত্মা। বর্তমানে শেখ হাসিনার আমলে আইনের শাসন চলছে, সুশাসন প্রতিষ্ঠা হয়েছে। যেকোনো অন্যায়কারী সে যেই হোক, তাকে প্রশ্রয় দেওয়া হয় না। তবে ছাত্রলীগের নাম শুনলে যাদের চুলকানি ওঠে, তাদের বলি, এই ছাত্রলীগ না থাকলে শান্তিতে ঘুমাতে পারতেন না।’

আল নাহিয়ান আরও বলেন, ‘এই আলালরা (মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল) মুক্তিযুদ্ধের সময় কোথায় ছিল! এই আলাল প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যেভাবে কুরুচিপূর্ণ কথা বলেছে, সেটা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল। অবিলম্বে তাকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে।’ 

বুয়েটের আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের রায়ের কথা উল্লেখ করে জয় বলেন, ‘আমরা মনে করি উচ্চ আদালতে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা পাবে।পাশাপাশি যারা ওই সময়ে ঘটনাস্থলে ছিল না, তারা যেন শাস্তির আওতায় না আসে, সেটাও বিজ্ঞ আদালতকে বিবেচনায় নিতে হবে।’ পাশাপাশি আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে বুয়েট ছাত্রলীগের যে ৯ জন নেতাকর্মীকে বহিষ্কার করা হয়েছে, তা পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানান জয়। 

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘বুয়েটের আবরার হত্যার ঘটনায় যে রায় গতকাল দিয়েছে, সেই আবরার হত্যার পর সর্বপ্রথম ছাত্রলীগই ঢাকা শহরে শোক মিছিল বের করেছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শক্ত নির্দেশনার মাধ্যমে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সবার দ্রুত বিচারকার্য সম্পাদন করেছেন। বুয়েটের সব শিক্ষক-শিক্ষার্থীও এই রায়কে সাধুবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু আমরা লক্ষ করে দেখি, একই দেশে দুজন শিক্ষার্থীর জন্য, একই প্রতিষ্ঠানের দুজন শিক্ষার্থীর জন্য কেন দুটি আইন বলবৎ থাকবে?’

লেখক ভট্টাচার্য আরও বলেন, ‘২০১৩ সালে বুয়েট ছাত্রলীগের কর্মী আরিফ রায়হান দ্বীপকে শিবিরের নেতাকর্মীরা নৃশংসভাবে হত্যা করেছিল, সেই মামলার রায়ের কী অবস্থা? রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ কর্মী শহীদ ফারুক হোসেন, বুয়েটের ছাত্রী সাবিকুন নাহার সনি, চট্টগ্রামের বাকলিয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের আট নেতাকর্মী হত্যার রায়ের কী অবস্থা? একই দেশে একটি ছাত্র সংগঠনের জন্য একটি আইন, আরেকটি ছাত্র সংগঠনের জন্য আরেকটি আইন হবে কেন?’ 

আজ বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বাংলাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সন্ত্রাসমুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দেখাতে পারবেন না বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মী হয়ে সাধারণ শিক্ষার্থী কিংবা অন্য কারও স্বার্থবিরোধী আচরণ করে! ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সব সময় শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন বলে উল্লেখ করেন লেখক ভট্টাচার্য। 

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। সমাবেশে কেন্দ্রীয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও তার হল এবং রাজধানীর বিভিন্ন কলেজের ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    আ.লীগ লবিস্ট নিয়োগ করে জনগণের অর্থ ব্যয় করছে: খন্দকার মোশাররফ

    ক্ষমতায় থাকতেই নির্বাচন কমিশন আইন পাস করতে যাচ্ছে আ. লীগ: মির্জা আব্বাস

    র‍্যাবকে শেষ করে পুলিশকে ধ্বংস করছে সরকার: রিজভী

    ‘বাহে এবার জারোত থাকি মুই বাঁচিম বাবা’

    গৃহযুদ্ধের কিনারায় যুক্তরাষ্ট্র!

    দক্ষিণখানে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে মেম্বর প্রার্থী গ্রেপ্তার 

    দক্ষিণখানে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

    রাবিতে সশরীরেই চলবে ক্লাস-পরীক্ষা