বক্তব্য রাখছেন মন্ত্রী আ.স. ম রেজাল করিম

গৃহায়ন ও গনপূর্ত মন্ত্রী শ.ম.রেজাউল করিম বলেছেন, নৈতিকতা আর মূল্যবোধ যদি না থাকে তাহলে সেই শিক্ষাই কোন শিক্ষাই না। সেই কু শিক্ষা দিয়ে জাতি কিছুই করতে পারে না। আমরা অবাক হয়ে যাই যখন একজন শিক্ষক নামের কোন কলঙ্কজনক ব্যক্তির হাতে কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা নিগ্রিহিত হয়। তখন লজ্জায় ঘৃণায় মাথা অবনত হয়ে আসে।

তিনি বলেন, এরা দেশ ও রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর মানুষ। এদের আশ্রয় প্রশ্রয় না দিতে তিনি শিক্ষকসহ সকলের প্রতি আহবান জানান।

তিনি শুক্রবার পিরোজপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তনে আয়োজিত বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিসি) পিরোজপুর জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

শিক্ষকদের শিক্ষা জাতীয়করনের দাবির কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আপনাদের শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রাখতে হবে। কোন আমলাতান্ত্রিক জটিলতা এদেশের শিক্ষদের ন্যায় সঙ্গত যে পাওয়া এবং মর্যাদা সেই মর্যাদাকে কোন ভাবেই বিঘ্নিত করবে না। এই আত্মবিশ্বাস আপনারা রাখেন।

তবে মনে রাখতে হবে রাতারাতি সব কিছু হয় না। শেখ হাসিনা কিন্তু টাকশালে টাকা ছপিয়ে এনে সব কিছু করতে পারবেন না। বাংলাদেশে যে সম্পদ আছে এই সম্পদের মধ্য দিয়েই কিন্তু সকলকে সুষমভাবে তিনি বন্টনের কথা তিনি ভাবেন। এই প্রথম বাজেটে সর্বোচ্চ বরাদ্দ রাখা হলো শিক্ষা খাতে।

মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের ১০০ বছরের সুদূরপ্রসারী দৃষ্টির প্রতিফলন বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে আগামী প্রজন্মকে দক্ষ করে তোলা। এ জন্যই দেশের প্রতিটি বিভাগে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়, টেক্সটাইল ও সিরামিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হচ্ছে।

এসময় পুলিশ সুপারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমাদের জেলায় কেউ অনাকাঙ্খিত অস্থিতিশীলতা পূর্ণ পরিস্থিতি যদি করতে চায় সে কোন দলের সেটা দেখবেন না। সে কার লোক দেখবেন না। আইন তার নিজস্ব গতিতে আপনি চালাবেন।

মন্ত্রী বলেন, দূর্নীতি বিরুদ্ধে আমার একই কথা। দূর্নীতিবাজ কোন সভ্য সমাজে গ্রহণ করা যাবে না। যিনিই দূর্নীতি করবেন তাকে ছাড় দেয়া যাবে না। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

আমরা ইভটিজিং,মাদক,দূর্নীতি,সন্ত্রাস এই জাতীয় বিষয় গুলোকে যে কোন মূল্যে আমরা শুণ্যের কোঠায় নিয়ে এসে একটা গুড গভার্মেন্টস একটা সুশাসনে ফিরিয়ে আনতে চাই।

আয়োজিত এ সম্মেলনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি পিরোজপুর জেলা শাখার সভাপতি সুখরঞ্জন বেপারীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিসি)র কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যক্ষ মোহাম্মদ বজলুর রহমান, সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ কাওসার আলী শেখ, জেলা শিক্ষা অফিসার সুনিল চন্দ্র সেন, কেন্দ্রীয় শিক্ষক নেতা কাজী মজিবুর রহমান, মোস্তফা জামান খান, সুনীল বরণ হালদার প্রমূখ।

মশিউর রহমান রাহাত/পিরোজপুর