Alexa
শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

নিরাপদ সবজির গ্রাম ‘পাতেলডাঙি’

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৪৩

খেতে ফুলকপি পরিচর্যা করছেন পাতেলডাঙির অরুণ মোদক পিচঢালা সরু রাস্তা। এই রাস্তা ধরে যতই গ্রামের ভেতরে এগোনো যায় রাস্তার দুই পাশে শুধু সবজি আর সবজি। নানা জাতের সবজিতে ভরপুর গ্রাম। শুধু জমিতেই নয়, গ্রামের কৃষকদের বাড়ির আঙিনায়, ঘরের চালা ও গাছে ঝুলে আছে নানা জাতের সবজি।

কৃষকেরা ব্যস্ত সবজি খেতে। কেউ সবজি খেতে নিড়ানি, কেউ জমি তৈরি, কেউ আবার সেচ দিচ্ছেন। এমনই দৃশ্য চোখে পড়বে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার পাতেলডাঙি গ্রামে। উপজেলায় গ্রামটি সবজির গ্রাম নামেই পরিচিত।

খোকসা বাসস্ট্যান্ড থেকে এ গ্রামের দূরত্ব ১ কিলোমিটার। সরেজমিনে দেখা যায়, কৃষকেরা মাঠের পর মাঠ ফুলকপি, বাঁধাকপি, ওলকপি, পটল, টমেটো, পালং শাক, মরিচ, শিম, লাল শাকসহ বিভিন্ন সবজি চাষে ব্যস্ত। কয়েকজন কৃষক সবজি তুলে বাজারে নিচ্ছেন।

প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে বিভিন্ন এলাকার পাইকারেরা এখান থেকে গাড়িবোঝাই করে সবজি কিনে নেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, পাতেলডাঙি গ্রামটি নিরাপদ সবজি গ্রাম। এ গ্রামের পরিবারগুলো সবজি চাষের ওপর নির্ভরশীল। বংশ পরম্পরায় ১৫ বছর ধরে তারা সবজি চাষ করছেন। এ বছর গ্রামটির ২৫ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ হয়েছে।

কৃষক অতুল পরামানিক (৬৫) বলেন, নিরাপদ সবজি উৎপাদনের জন্য এখন আমরা জমিতে জৈব সার, গোবর, বিষটোপ, জৈব কীটনাশক, হলুদ ট্র্যাপ, সেক্স ফেরোমন ট্র্যাপ ব্যবহার করছি। আগে রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করতাম।

এবার আড়াই বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করছেন চৈতন্য মোদক (৬৫)। ৪০ বছর যাবৎ সবজি চাষের সঙ্গে সম্পৃক্ত। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘গত বছর সেচ দিতে বিঘাপ্রতি খরচ হতো ৬০০ টাকা। তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে এ বছর খরচ পড়ছে ১ হাজার টাকা। এমনিভাবে গত বছর পাওয়ার টিলার দিয়ে চাষ দিতে বিঘাপ্রতি খরচ হয়েছে ৬০০ টাকা। তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে এ বছর খরচ পড়ছে ১ হাজার টাকা। কিন্তু সে তুলনায় সবজির দাম বাড়েনি। এ জন্য আমরা ক্ষতির মুখে পড়ছি।’

পাতেলডাঙি গ্রামের সুকুমার মন্ডল ও মিঠুন শেখ অন্যের জমিতে কাজ করেন। প্রতিদিন তাঁরা ৩০০ টাকার করে হাজিরা পান। তাঁরা জানান, ধান, পাট, গমে লোকসান গুনতে গুনতে কৃষক যখন দিশেহারা তখন বিকল্প উপায়ে সবজি চাষে বেছে নিয়েছেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সবুজ কুমার সাহা বলেন, পাতেলডাঙি গ্রামে কৃষকেরা ১৫ বছর ধরে নিরাপদ বিষমুক্ত সবজি চাষ করছেন। এ বছর এই গ্রামে ২৫ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ হচ্ছে। বর্তমানে ৫৫ জন কৃষক বিষমুক্ত সবজি চাষ করছেন। নিরাপদ সবজি চাষের জন্য কৃষকদের পরিবেশবান্ধব কৌশল শিখিয়ে দিতে গ্রামে একটি ‘কৃষক মাঠ স্কুল’ খোলা হয়েছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    এবার পূজায় ইশা সাহার বাজিমাত

    বিতর্কে বিভক্ত ঢাকাই সিনেমা

    নিয়ন্ত্রণহীন বাজারে অসহায় বাণিজ্যমন্ত্রী

    অসততা

    শেষযাত্রা

    সার সংকট নিরসনে ৩৩ ডিলারকে ৩ দিনের সময়সীমা

    জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্র পরিদর্শনের অনুমতি দেওয়া হবে: পুতিন

    তকদীর সিরিজের চেয়ে ভিন্ন কিছু বানাতে পেরেছি

    আষাঢ়ে নয়

    এ লড়াই এগিয়ে যাওয়ার

    বিতর্কে বিভক্ত ঢাকাই সিনেমা

    এবার পূজায় ইশা সাহার বাজিমাত