Alexa
শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

স্কুলের পাশে ইটভাটা, স্বাস্থ্যঝুঁকিতে শিক্ষার্থীরা

আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:২১

স্কুলের পাশেই গড়ে উঠেছে ইটভাটা। ছবি: আজকের পত্রিকা ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় ক্রমেই বেড়ে চলেছে ইটভাটার সংখ্যা। প্রভাবশালীরা ফসলি জমি থেকে শুরু করে বাসস্থানের পাশেও গড়ে তুলছেন অবৈধ ইটভাটা। বাদ যায়নি স্কুলও।

উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের ৪৩ নম্বর দাড়িয়াপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেয়াল ঘেঁষে গড়ে উঠেছে শাপলা নামের ইটভাটা। এ ছাড়া স্কুলটির ৩০০ গজের মধ্যে গড়ে উঠেছে তানিয়া ও এমকেএম নামে আরও দুটি ইটভাটা। সব সময় ইটভাটাগুলো থেকে নিঃসৃত কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে থাকে স্কুলটি। এতে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছে স্কুলের শত শত শিশু শিক্ষার্থী।

স্থানীয়দের অভিযোগ, ইটভাটা মালিকেরা প্রভাবশালী হওয়ায় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও প্রতিকার পাচ্ছেন না স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক ও অভিভাবকেরা। কাছাকাছি আর কোন স্কুল না থাকায় অভিভাবকেরা অনেকটা বাধ্য হয়েই সন্তানদের দূষিত পরিবেশে শিক্ষা গ্রহণ করতে পাঠাচ্ছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, স্কুলটির দেয়ালের পাশেই সারি সারি রাখা হয়েছে কাঁচা ইট। জ্বলছে আগুন, পোড়ানো হচ্ছে ইট। মাটি, জ্বালানি, ইট বোঝাই ট্রাক একের পর এক যাওয়া আসা করছে। উচ্চ শব্দ, ধুলা আর ধোঁয়ায় একাকার চারিদিক। এর মধ্যেই চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান আর খেলাধুলা।

শিক্ষার্থীরা জানায়, ধোঁয়া, ছাই আর ধুলোবালিতে তাদের শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। ক্লাস চলাকালীন সময়ে ইটভাটার লরি ও ট্রাকের আসা-যাওয়ার প্রচণ্ড শব্দে শিক্ষকদের কথা শুনতে পায় না তারা।

নিজের অসহায়ত্বের কথা স্বীকার করে স্কুলটির প্রধান শিক্ষক নন্দা দেবী বলেন, ‘২০০৮ সালে ইটভাটার বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলাম। এই অভিযোগের তদন্তও হয়েছে। কিন্তু ইটভাটা বন্ধ হয়নি।’

নন্দা দেবী আরও বলেন, ‘জেলা শহর থেকে টিভি সাংবাদিকেরা এসে শিক্ষার্থী, ম্যানেজিং কমিটি ও শিক্ষকদের বক্তব্য নিয়েছিলেন। কিন্তু সেই সংবাদ প্রকাশ হয়নি। ক্ষমতাবান ইটভাটা মালিকেরা অর্থ দিয়ে সবাইকে ম্যানেজ করে ফেলে। তাই এই সমস্যা নিয়ে কথা বলতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছি।’ 

স্কুলের পাশে ইটভাটা স্থাপনের কারণ জানতে চাইলে শাপলা ব্রিকসের মালিক মো. স্বপন মিয়া এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

গৌরীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিকা পারভীন বলেন, আইন অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশে ইটভাটা নির্মাণের কোন সুযোগ নেই। ওই স্কুলটির পাশে স্থাপিত ইটভাটাগুলো আইন না মেনেই স্থাপন করা হয়েছে।

গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসান মারুফ বলেন, ‘২০০৮ সালে করা অভিযোগের বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেব।’

ময়মনসিংহ পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক ফরিদ আহমদ বলেন, ‘ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন আইন-২০১৩ অনুযায়ী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এক কিলোমিটারের মধ্যে কোনো ভাটা স্থাপন করা যাবে না। গৌরীপুরে শাপলা, তানিয়াসহ বেশির ভাগ ইটভাটা অনুমোদনহীন। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ‘বাহে এবার জারোত থাকি মুই বাঁচিম বাবা’

    দক্ষিণখানে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে মেম্বর প্রার্থী গ্রেপ্তার 

    দক্ষিণখানে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

    অনশন পেরোলো ৩২ ঘণ্টা, হাসপাতালে ভর্তি ৬ শিক্ষার্থী

    চট্টগ্রামে অটোরিকশায় কিউআর কোড স্টিকার লাগানো ‍শুরু

    ‘বাহে এবার জারোত থাকি মুই বাঁচিম বাবা’

    গৃহযুদ্ধের কিনারায় যুক্তরাষ্ট্র!

    দক্ষিণখানে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে মেম্বর প্রার্থী গ্রেপ্তার 

    দক্ষিণখানে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

    রাবিতে সশরীরেই চলবে ক্লাস-পরীক্ষা