Alexa
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর দখলের অভিযোগ 

আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:০৮

বরাদ্দপত্র হাতে সালমা খাতুন। ছবি: আজকের পত্রিকা সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার বিড়ালাক্ষী গ্রামে সালমা খাতুন নামের এক বিধবা নারীকে বরাদ্দ দেওয়া সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর দখলের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য সৈয়দ কামাল হোসেন কৌশলে ওই ঘর ছিনিয়ে নিয়ে নিজের পাতানো বোনের কাছে বিক্রি করেছেন বলে ওই বিধবা অভিযোগ করেছেন।

সালমার দাবি, ইউপি সদস্যের ইন্ধনে স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী ব্যক্তিরা দখলদারদের সহায়তা করছেন। এ জন্য তিনি নিজের ঘর ফেরত না পেয়ে আশ্রয়হীনভাবে দিন কাটাচ্ছেন।

সালমা খাতুন জানান, অল্প বয়সের দুই সন্তান রেখে তাঁর স্বামী সিরাজুল ইসলামের মৃত্যু হয়। স্থানীয় লোকজনের সাহায্যে দুই সন্তান নিয়ে তিনি বহু কষ্টে জীবনযাপন করে আসছেন। একপর্যায়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ভূমিহীন হিসেবে তাঁকে বিড়ালাক্ষী আশ্রয়ণ প্রকল্পের সরকারি একটি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়।

সালমা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, দুই সন্তান নিয়ে বরাদ্দের ঘরে তিনি কয়েক মাস বসবাসও করেন। এরপর তাঁর অসুস্থ বড় মেয়ের চিকিৎসার জন্য এক সপ্তাহ বাড়িতে না থাকার সুযোগে স্থানীয় ইউপি সদস্য সৈয়দ কামাল হোসেন ঘরটি দখল করে ক্লাব তৈরি করেন।

এক সপ্তাহ পর ফিরে নিজের ঘরে উঠতে চাইলে আশ্রয়ণ প্রকল্পের সভাপতি ফারুক হোসেন তাঁকে জানান, কয়েক দিন ব্যবহারের পর ঘরটি আবার তাঁকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় পার হলেও ঘর ফিরিয়ে না দিয়ে প্রকল্পের সভাপতি ও ইউপি সদস্য টালবাহানা শুরু করেন। একপর্যায়ে সালমা জানতে পারেন, ওই ইউপি সদস্য অর্থের বিনিময়ে ঘরটি তাঁর এক পাতানো বোনকে দিয়েছেন। 

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা মিলন হোসেন বলেন, সালমা খাতুন তাঁর সন্তানদের নিয়ে ঘর হওয়ার শুরুতে বসবাস করতেন। পরে সৈয়দ কামাল হোসেন তাঁর এক আত্মীয়কে সালমার ঘরে তুলে দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা বলেন, সালমা দীর্ঘদিন ধরে এই ঘরে বসবাস করতেন। পরে সালমাকে বের করে দিয়ে মেম্বারের পাতানো বোনকে ঘরে তোলা হয়। 

আশ্রয়ণ প্রকল্পের সভাপতি ফারুক হোসেন বলেন, ‘ইউপি সদস্য সৈয়দ কামালের পরামর্শে তাঁর পাতানো বোনকে ঘরে তুলে দেওয়া হয়।’

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য সৈয়দ কামাল হোসেন বলেন, ‘প্রায় পাঁচ বছর আগে তাঁকে বের করে দেওয়া হয়। তখন অনেক দিন ঘর খালি ছিল। পরে কিছুদিন ক্লাব হিসেবে ব্যবহারের পর এক গরিব মানুষকে দেওয়া হয়েছে।’

আটুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু সালেহ বাবু বলেন, ‘সালমা বিধবা মানুষ ও ভূমিহীন দেখে সরকারিভাবে ঘর দেওয়া হয়। দুঃখজনক হলেও সত্য, স্থানীয় ইউপি সদস্য তাঁর সেই ঘর দখল করে তাঁর এক আত্মীয়কে দিয়েছেন। বিধবা সালমাকে ঘরটি ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    প্রধান শিক্ষক ও স্কুল কমিটির বিরুদ্ধে অভিভাবকদের মানববন্ধন

    রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছাদ থেকে পড়ে শিশুসহ দুজনের মৃত্যু

    মৃত্যুর ২ দশক পর আপিল নিষ্পত্তি

    শিশু ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

    একসঙ্গে বিষপান, স্ত্রী রক্ষা পেলেও মারা গেছেন স্বামী

    চুয়াডাঙ্গায় বিভিন্ন ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযান, সাড়ে ৮ লাখ টাকা জরিমানা

    প্রধান শিক্ষক ও স্কুল কমিটির বিরুদ্ধে অভিভাবকদের মানববন্ধন

    রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছাদ থেকে পড়ে শিশুসহ দুজনের মৃত্যু

    আগামী নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে সংলাপ করার আহ্বান হারুনের 

    নাচ শেখার অনুষ্ঠান ‘নাচের ইশকুল’

    দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত আফ্রিদি

    করোনা আক্রান্ত সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়, গুরুতর অসুস্থ