Alexa
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

লাঞ্চের আগেই থামল বাংলাদেশ

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১৫:২৬

প্রথম দিনের রানের সঙ্গে আর ৭৭ রান যোগ করে ৩৩০ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। ছবি: সংগৃহীত  চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন বাংলাদেশ বিপদে পড়েছিল সকালের ঝড়ে! সকালের ৫৮ মিনিটেই মুছে যায় টপ অর্ডার। চার উইকেট হারানোর পরও অবশ্য দিনটি বাংলাদেশের ছিল মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের কল্যাণে। আজ টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুতে দুই অপরাজিত ব্যাটারের ব্যাটে চড়ে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছে, তখন আবারও এলোমেলো। প্রথম সেশনেই ৩৩০ রানে অলআউট মুমিনুল হকের দল।

৪ উইকেটে ২৫৩ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আগের দিনের সেঞ্চুরিয়ান লিটন দ্বিতীয় ওভারে হাসান আলীর বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়লে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ। আগের দিনের সঙ্গে ৭৭ রান যোগ করতেই বাকি ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এর আগে আজ সকালে নোমান আলীর প্রথম ওভারে ১ রান নিয়ে দিনটা শুরু করেন আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটার। তবে পরের ওভারেই শেষ লিটন দাসের দুর্দান্ত ইনিংসটা। হাসান আলীর করা ৮৭তম ওভারের শেষ বলটা লিটনের প্যাডে আঘাত করে। পাকিস্তানের ফিল্ডাররা এলবিডব্লুর আবেদন করলেও সাড়া দেননি আম্পায়ার। পরে বাবর আজম রিভিউ নিলে ফিরতে হয় লিটনকে। গতকালের রানের সঙ্গে মাত্র ১ রান যোগ করে ১১৪ রানে ফেরেন লিটন।  

ইয়াসির আলী রাব্বির সামনে সুযোগ আসে ঘরের মাঠে সকালেই ক্যারিয়ারের প্রথম ইনিংস শুরু করার। বেশ কিছু বল দেখেশুনে খেলে সেট হয়ে নিচ্ছিলেন রাব্বি। পরে শাহিন শাহ আফ্রিদিকে দুর্দান্ত এক কাভার ড্রাইভে প্রথম আন্তর্জাতিক রানের খাতা খুলে দারুণ কিছুরই যেন ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন চট্টগ্রামের তরুণ। কিন্তু পরের ওভারেই ফিরতে হয় রাব্বিকে। এবারও হন্তারকের নাম হাসান আলী। পাকিস্তানি পেসারের বলে তিনটা স্টাম্পই এলোমেলো হয়ে যায় রাব্বির। 

অন্য প্রান্তে মুশফিকুর রহিম ছুটছিলেন সেঞ্চুরির পথে। শতরানটা যখন দৃষ্টিসীমায়, তখনই ভুল করে বসেন মুশফিক। অবশ্য বোলার ফাহিম আশরাফকেও কৃতিত্ব দিতে হবে। পাকিস্তানি পেসার প্রথম দিন বল মুশির লেগ স্ট্যাম্পে ফেলে বিভ্রান্ত করেন। পরে হুট করে অফ স্ট্যাম্পের পাশ ঘেঁষে বল করেন ফাহিম। বলটি ব্যাটের কানায় লেগে জমা হয় রিজওয়ানের গ্লাভসে। মুশফিক অবশ্য আত্মবিশ্বাসী ছিলেন বল ব্যাটে নয়, প্যাডে লেগেছে, তাই রিভিউও নিয়েছিলেন। তবে বড় স্ক্রিনে দেখা যায় গ্লাভসে যাওয়ার আগে ব্যাটেই ছুঁয়েছিল বল। 

নার্ভাস নাইনটিজের শিকার হয়ে মুশফিক ফিরেছেন ৯১ রানে। আর এক রান যোগ করতে পারলে এই ইনিংসেই তামিম ইকবালকে ছাড়িয়ে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ টেস্ট রানের মালিক হয়ে যেতেন মুশফিক। এখন তাঁকে দ্বিতীয় ইনিংসের অপেক্ষায় থাকতে হবে। 

মূল ব্যাটারদের হারিয়ে বিপদে পড়া বাংলাদেশকে পথ দেখাচ্ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তাঁকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি এই স্পিনার ১১ রান করে শাহিন আফ্রিদির বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। তাইজুল ফেরার পর নবম উইকেট জুটিতে রাহীকে নিয়ে এগোতে থাকেন মিরাজ। ৮ রান করা রাহী এবার হাসান আলীর বলে স্লিপে ক্যাচ দেন। পরের বলে বোল্ড হয়ে যায় উইকেটে আসা এবাদত হোসেন। ৩৩০ রানে থামে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    এক বছরের বেশি সময় পর মাঠে ফিরলেন মাশরাফি

    বার্সেলোনায় সাবেক সতীর্থদের সঙ্গে মেসির নৈশভোজ

    খেলা দেখতে গিয়ে হুড়োহুড়িতে ৬ দর্শকের মৃত্যু

    মৃত্যুকে জয় করে যেভাবে মাঠে ফিরলেন এই নারী ফুটবলার

    গোল করে স্ত্রীকে স্মরণ, জবাবে পেলেন ভালোবাসা

    শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সমর্থন দিল বাম গণতান্ত্রিক জোট

    শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের সংহতি জানাতে একাই দাঁড়ালেন চবি শিক্ষক মাইদুল ইসলাম

    পুলিশের ‘বাধায়’ ছাত্রদলের প্রতীকী অনশন পণ্ড করার অভিযোগ 

    বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোতে চাকরি

    শক্তিশালী ইসি গঠনে আইন প্রণয়ন করছে সরকার: কাদের

    হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি