Alexa
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

সংবিধানে ৭০ অনুচ্ছেদ থাকলে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে না: জিএম কাদের

আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ২২:৫৭

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদ উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের। ফাইল ছবি সংবিধানে ৭০ অনুচ্ছেদ থাকলে কোনো সময়েই আমাদের দেশে সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে না বলে জাতীয় সংসদকে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদ উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

আজ বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে জাতীয় সংসদে বিশেষ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন। 

জিএম কাদের বলেন, ‘দেশের গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে। এই কথাটি এখনো আমরা দাবি হিসেবে শুনি। আমি মনে করি, সংবিধানে ৭০ অনুচ্ছেদ থাকলে কোনো সময়েই আমাদের দেশে সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে না। আজ আমরা আনন্দ উৎসাহ নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করছি। আমি চাই, তার চেয়ে বহুগুণ বেশি আনন্দ উৎসাহ নিয়ে যাতে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম স্বাধীনতার হীরক জয়ন্তী উদ্‌যাপন করতে পারে। সে পথ প্রশস্ত করে যেতে হবে আমাদেরই। আজ আমাদের সকলেরই অঙ্গীকার হোক বিগত দিনের সকল ব্যর্থতা গ্লানি মুছে ফেলে এগিয়ে যাব ঐক্যবদ্ধভাবে।’ 

সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ অনুসারে, কোনো নির্বাচনে কোনো রাজনৈতিক দলের প্রার্থী মনোনীত হয়ে কোনো ব্যক্তি সংসদ-সদস্য নির্বাচিত হলে তিনি যদি-ওই দল থেকে পদত্যাগ করেন, অথবা সংসদে ওই দলের বিপক্ষে ভোট দেন, তালে সংসদে তাঁর আসন শূন্য হবে। 

জিএম কাদের বলেন, ‘জাতির পিতা কোনো বিশেষ দলের নিজস্ব সম্পদ নয়। তিনি এ দেশের সব দলের সব মানুষের জাতির পিতা। তাকে কুক্ষিগত করে রাখতে চাইলে তার সর্বজনীন চরিত্রকে খাটো করা হয়। বিশ্বে অনেক দেশে জাতির পিতা আছে। তারা তাদের জাতির পিতাকে যেভাবে সর্বজনীন ভাবে সম্মান দিয়ে রাখে আমাদেরও গোটা জাতির সেভাবে জাতির পিতাকে সর্বোচ্চ সম্মান দিয়ে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করে রাখতে হবে।’ 

জাপা নেতা বলেন, ‘আজ আমরা এক সুন্দর অসুন্দরের সন্ধিক্ষণে অবস্থান করছি। একদিকে উন্নয়নের চাকা এগিয়ে চলছে আর এক দিকে দুর্নীতি আমাদের পিছিয়ে নিচ্ছে। এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে প্রয়োজন। বঙ্গবন্ধু ঔপনিবেশিক শাসন ব্যবস্থা যার মূলে ছিল শাসকেরা প্রশাসনের মাধ্যমে শাসনের নামে জনগণকে শোষণ করবে। সেটাকে ভেঙে জনগণের নির্বাচিত শাসকেরা প্রশাসনের নিম্নতম ইউনিট পর্যন্ত প্রশাসনকে ব্যবহার করে জনগণকে সেবা করবে-শোষণ নয়, সে ব্যবস্থা করেছিলেন।’ 

তিনি বলেন, ‘সে উদ্দেশ্যে তিনি মহকুমাকে জেলা করে তার প্রধান করেছিলেন জনপ্রতিনিধিদের। তাঁদের অধীনে প্রশাসনকে ন্যস্ত করে তাঁদের দ্বারা জবাবদিহিমূলক শাসন নিশ্চিত করেছিলেন। এ ব্যবস্থায় কখনই শোষণ হবে না, হবে সেবা। আমাদের নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ উপজেলা ও জেলা পরিষদ প্রবর্তন অনেকটা সে ভাবধারায় অনুপ্রাণিত হয়ে। কিন্তু পরবর্তী সরকারগুলো বঙ্গবন্ধুর সে ভাবধারা ধরে রাখেনি বা ধরে রাখার কোনো উদ্যোগ নেননি। বর্তমান জেলা পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বের পরিবর্তে প্রশাসনিক কর্মকর্তা দ্বারা পরিচালিত। সেখানে সেবার পরিবর্তে শোষণের সুযোগ থাকে। কেননা সরকারি কর্মকর্তাদের জনগণের কাছে সরাসরি জবাবদিহি করার কোনো ব্যবস্থা নেই। করতে হয় না। এ বিষয়টি বঙ্গবন্ধুর ধ্যান ধারণার ব্যত্যয়, বলে মনে করি।’ 

জাপার চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমার মনে হয়, স্বাধীনতার ৫০ বৎসর অতিক্রান্ত হলেও আজও সম্পূর্ণভাবে তা অর্জন করা সম্ভব হয়নি। না হলে এখনো জনগণকে দাবি করতে হয় নির্বাচন ব্যবস্থা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে হবে। আমরা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি, বিভিন্ন স্থান থেকে আমরা যেটা অভিযোগ পাচ্ছি, আমাদের যারা প্রার্থী তারা সব সময় আমাদের কাছে একটা কথাই বলছেন, আমরা অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। আমরা অন্য কোনো সুযোগ-সুবিধা চাই না। আমরা যাতে সঠিকভাবে নির্বাচন করতে পারি সেই ব্যবস্থা চাই। তার মানে এই ব্যবস্থাটি এখন কাজ করছে না।’ 

সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা বলেন, ‘আমি মনে করি, আমাদের সংবিধানের ১১৮ এবং ১২৬। ১১৮-এর অধীনে আইন করে একটি কমিটি যারা যোগ্য এবং নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠনের আইন যেটা আমাদের এখনো করা হয় নাই। এটা করা দরকার। ১২৬ এ আছে নির্বাহী বিভাগে নির্বাচন কমিশনকে প্রয়োজন মতো সকল সহায়তা দিতে বাধ্য থাকবে। এটি কার্যকর হলে আমি মনে করি নির্বাচন ব্যবস্থা সুষ্ঠু করার জন্য সুযোগ সৃষ্টি হবে।’ 

মন্তব্য ( ১ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    চলতি অধিবেশনেই ইসি আইন পাস করতে চায় সরকার

    স্কুল পর্যায়ের ৬৪ ভাগ শিক্ষার্থীকে করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে: শিক্ষা উপমন্ত্রী

    গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করতে রাষ্ট্রপতির আহ্বান

    সংলাপে ইসি আইন চাইল জাতীয় পার্টি (জেপি) 

    সংবিধান অনুযায়ী আইন প্রণয়নের প্রস্তাব গণফোরামের 

    ১৬ জানুয়ারি বসছে সংসদের ১৬তম অধিবেশন

    উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফের আগুন

    মেসিকে টপকে টানা দ্বিতীয়বার ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় হলেন লেভানডফস্কি

    করোনার সঙ্গে ইনফ্লুয়েঞ্জা ইউরোপে ‘টুইন্ডেমিক’

    অভিনয়শিল্পী শিমুর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    নীলফামারীতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, যুবক আটক