এম. এ. আর. শায়েল
সিনিয়র সাব এডিটর

বাজেট পেশ করছেন ভারপ্রাপ্ত মেয়র।

নতুন কোন করারোপ ছাড়াই ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য হবিগঞ্জ পৌরসভার সোয়া ৮৫ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছেন হবিগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র দীলিপ দাস।

১৯ জুন বুধবার পৌরসভার সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।

বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ৮৫ কোটি ২২ লক্ষ ৯৩ হাজার ৭ শ ৭৩ টাকা, ব্যয় দেখানো হয়েছে ৮৩ কোটি ৩৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৭ শ ৩৬ টাকা। উদ্বৃত্ত রয়েছে ১ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪৫ হাজার ৩৭ টাকা।

পৌরসভার নিজস্ব খাতে মোট আয় রয়েছে ৮ কোটি ৮২ লক্ষ ৮৬ হাজার টাকা, ব্যয় রয়েছে ৮ কোটি ৭৮ লক্ষ ৪৮ হাজার ৭শ ৩৬ টাকা। উন্নয়ন খাতে আয় রয়েছে ৭৬ কোটি ৪০ লক্ষ ৭ হাজার ৭শ ৭৩ টাকা, ব্যয় রয়েছে ৭৪ কোটি ৫৮ লক্ষ টাকা।

ইউজিপ-৩ এর আওতায় আসছে অর্থবছরে ১৮ কোটি টাকার রাস্তা উন্নয়ন, পনেরো কোটি টাকার ড্রেন উন্নয়ন, ডাম্পিং স্পটের জমি অধিগ্রহণ এক কোটি টাকা, ৩ কোটি টাকার ৪র্থ ওয়াটার ট্রিটম্যান্ট প্ল্যান্ট, এক কোটি টাকার কিবরিয়া অডিটরিয়াম সংস্কার, ২ কোটি টাকার পানির মিটার স্থাপন, ১০ কোটি টাকার পৌরশপিং মল নির্মাণ যা বাস্তবায়ন হবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সামনে, এক কোটি টাকার কাচামাল বাজার মার্কেট নির্মাণ, ২ কোটি টাকার মোদন মোহন বাজার মার্কেট নির্মাণ, ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পুরাতন পৌরসভায় ল চেম্বার, বাসস্থান ও মার্কেট নির্মাণ ও ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে পৌর কিচেন মার্কেটের উর্ধ্বমূখী সম্প্রসারণের কাজ।

বিএমডিএফের আওতায় রয়েছে এক কোটি টাকা ব্যয়ে ভূমি প্রাপ্তি সাপেক্ষে পৌর শিশুপার্ক নির্মাণ ও ২ কোটি টাকা ব্যয়ে ভূমিপ্রাপ্তি সাপেক্ষে পৌর ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ।

পৌরসভার বাজেট ঘোষনাকল্পে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে ভারপ্রাপ্ত মেয়র দীলিপ দাস বলেন, হবিগঞ্জ পৌরসভাকে আধুনিক ও বাসযোগ্য শহর হিসেবে আরো উচ্চতর আসনে অধিষ্ঠিত করতে বড় বড় চ্যালেঞ্জ রয়েছে। চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে মাষ্টার প্ল্যান বাস্তবায়নের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসন, যাতায়ত ব্যবস্থা, অবকাঠামো উন্নয়ন, যান চলাচলে শৃংখলা, পার্ক উদ্দ্যানসহ শহরের সবুজায়ন ইত্যাদি অগ্রগতির কথা তুলে ধরেন। জলাবদ্ধতা নিরসন ও পরিচ্ছন্নতা কাজে বাজেটে গুরুত্বসহকারে বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি পৌরসভাকে এগিয়ে নিতে সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহির, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যাহ, পৌরএলাকার ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ ও পৌরবাসীর সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত মেয়র দীলিপ দাস সাংবাদিক ও সুধিসমাজের প্রতিনিধিবৃন্দের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পৌরকাউন্সিলর মো. আবুল হাসিম, মো. জাহির উদ্দিন, গৌতম কুমার রায়, শেখ নূর হোসেন, মো. আলমগীর, শেখ মো. উম্মেদ আলী শামীম, পিয়ারা বেগম, খালেদা জুয়েল, অর্পনা পাল পৌরসচিব মো. ফয়েজ আহমেদ প্রমুখ।