পুলিশ । প্রতীকী ছবি

বিরল থানার এক এএসআই ও দুই কনষ্টেবলের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় প্রায় তিন শতাধিক উত্তেজিত জনতা বিরল থানায় অভিযোগ দিতে এলে থানার অফিসার ইনচার্জ বিষয়টি জেনে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছেন।

জানা গেছে, গত ২৩ মে বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ৯ টার দিকে সাদা পোশাকে বিরল থানার এএসআই আনোয়ার হোসেন, কনেষ্টবল নকুল চন্দ্র ও কনেষ্টবল নাসিরুল ইসলামসহ ভবানীপুর বানিয়া পাড়া এলাকার চৌধুরী সায়েক ও মন্টু চন্দ্রকে সাথে নিয়ে উপজেলার রাণীপুকুর ইউপি’র কাজিপাড়া বাজার থেকে একই এলাকার আব্দুস সালামের পুত্র ওবাইদুর রহমান (৩৬) কে অভিযোগ ছাড়াই গ্রেফতার করতে যান।

এ সময় তাদের সাদা পোশাকে দেখে উপস্থিত লোকজন চ্যালেঞ্জ করেন।

জনসাধারণের উত্তেজনা দেখে সাদা পোশাকধারী পুলিশ তিনজনই তাৎক্ষনিক সটকে পড়েন।

পরে প্রায় তিন শতাধিক উত্তেজিত জনতা রাত ১১ টার দিকে বিরল থানায় এসে বিষয়টি অভিযোগ আকারে বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এটিএম গোলাম রসূলকে জানান।

ভুক্তভোগী অভিযোগকারীরা বলেন, এএসআই আনোয়ার, কনষ্টেবল নকুল ও কনষ্টেবল নাসিরুল গত ১৯ মে রাতে রাস্তা থেকে অনুরূপভাবে মাদকের মিথ্যা অপবাদ দিয়ে এই ওবাইদুরকে থানায় নিয়ে এসে বিভিন্ন হুমকি দিয়ে রাতের মধ্যে ৩০ হাজার টাকা উৎকোচ নিয়ে ছেড়ে দেয়।

আবার চারদিন পর ওবাইদুরকে তুলে নিয়ে আসতে গেলে স্থানীয় লোকজন ওই পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেন।

অভিযোগকারীরা বলেন, আমরা ওই পুলিশ সদস্যদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি।

আমাদের এলাকার লোকজন এভাবে ওই তিন পুলিশের হাতে জিম্মি হয়ে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। অভিযোগ শোনার পর বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এটিএম গোলাম রসূল উপস্থিত সকলকে আশ্বাস দিয়ে বিষয়টির দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো বলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি শান্ত করেন।

মোঃ আতিউর রহমান/বিরল