Alexa
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

প্রেম থেকে প্রতারণা, প্রেমিকের বন্ধুসহ গ্রেপ্তার ২ 

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০২

গ্রেপ্তারকৃত মো. আলমগীর (২২) ও মো. আনোয়ার (২৬)। ছবি: আজকের পত্রিকা ১৫ বছর বয়সী কিশোরীর সঙ্গে যুবকের প্রেম। সেই সুবাদে বেড়ানোর কথা বলে হোটেলে নিয়ে রাতযাপন। প্রেমিকাসহ অন্তরঙ্গ সেই দৃশ্য মোবাইল ফোনে কৌশলে ধারণ করে রাখে প্রেমিক। কিছুদিন পর ভিডিওচিত্রটি হস্তান্তর করে কথিত বন্ধুকেও। এরপর আপত্তিকর ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে বন্ধুর প্রেমিকাকে কয়েক বার ধর্ষণ করে কথিত বন্ধুও। এ দুই যুবকের নির্যাতনের ধকল সইতে না পেরে অবশেষে আইনের আশ্রয় নেয় নেয় ভুক্তভোগী কিশোরী। 

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের মহেশখালীতে। এ ঘটনার পর ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের পর কথিত প্রেমিকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বুধবার রাতে কালারমারছড়া ইউনিয়নের অফিসপাড়া থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। মহেশখালী থানার ওসি মো. আবদুল হাই গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, অফিসপাড়ার মো. রফিকের ছেলে মো. আলমগীর (২২) ও মোহাম্মদ শাহ ঘোনার মোহাম্মদ হোছাইনের ছেলে মো. আনোয়ার (২৬)। 

ভুক্তভোগীর বরাতে পুলিশ জানিয়েছে, উপজেলার এক কিশোরীর (১৫) সঙ্গে মো. আলমগীরের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের সুবাদে ভ্রমণের কথা বলে কথিত প্রেমিক আলমগীর কিশোরীকে গত ১১ অক্টোবর চকরিয়া উপজেলার বদরখালীর বাজারে একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে যান। সেখানে তাঁরা রাতযাপন করেন এবং শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হন। সেদিনের অন্তরঙ্গ দৃশ্য কিশোরীর অজান্তে মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখেন আলমগীর। 

পুলিশ জানায়, ঘটনার কয়েক দিন পর ভিডিওটি আলমগীরের বন্ধু মো. আনোয়ারকে দেখায় এবং আনোয়ারও সংরক্ষণ করে রাখে। পরে ওই কিশোরীকে ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে কুপ্রস্তাব দেন আনোয়ার। প্রস্তাবে রাজি না হলে ছড়িয়ে ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। একপর্যায়ে লোকলজ্জার ভয়ে মেয়েটি রাজি হয়ে যায়। এভাবে বিভিন্ন সময় তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন অনোয়ার। 

পুলিশ আরও জানায়, গ্রেপ্তারকৃত দুজনের মানসিক ও শারীরিক চাপ সইতে না পেরে একপর্যায়ে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। পুরো ঘটনা তার মাকে খুলে বলেন। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার মহেশখালী থানায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন। এতে প্রেমিক আলমগীর ও তাঁর বন্ধু আনোয়ারকে আসামি করা হয়। 

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল হাই জানান, বিষয়টি খুব গুরুতর অপরাধ। গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে মায়ের জিম্মায় বাড়ি পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    শিবচরে কুপিয়ে পা বিচ্ছিন্ন করে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ১ 

    বন্ধুর সহযোগিতায় এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী চয়ন

    দেশে বহু গণমাধ্যম গড়ে উঠলেও পেশাদারিত্ব নিশ্চিত হয়নি: টিআইবি 

    দুর্গাপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক আরজ আলী স্মৃতি রক্ষায় মানববন্ধন

    ৪ শিক্ষার্থীকে অপহরণের অভিযোগ ‘রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের’ বিরুদ্ধে, ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

    প্রিয় বালিশ নিয়েই দেশে ফিরলেন রিজওয়ান

    হেডের সেঞ্চুরিতে বড় লিড অস্ট্রেলিয়ার

    শিবচরে কুপিয়ে পা বিচ্ছিন্ন করে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ১ 

    খালেদার চিকিৎসা নিয়ে আইন মন্ত্রণালয় থেকে কোনো ইঙ্গিত আসেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

    আলালকে ক্ষমা চাইতে বললেন কাদের 

    ল্যাবেক্স মিলয়ন স্কলারশিপ