Alexa
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

কর্মস্থলের ঠিকানা চরফ্যাশন, কর্মরত অন্য জেলায় 

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩২

চরফ্যাশন উপজেলার তথ্য বাতায়ন পোর্টালে নিয়মিত তথ্য হালনাগাদ না হওয়ায় তথ্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন স্থানীয়রা। ছবি: সংগৃহীত বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়নের ওয়েব পোর্টালে চরফ্যাশন উপজেলার তথ্য নিয়মিত হালনাগাদ না হওয়ায় তথ্যসুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুরোনো তথ্যে বিভ্রান্তিতেও পড়ছেন তাঁরা। সংশ্লিষ্টদের উদাসীনতার কারণেই তথ্য বাতায়ন ওয়েব পোর্টাল থেকে তথ্যসুবিধা না পাওয়ার অভিযোগ স্থানীয়দের। তবে উপজেলা প্রশাসন বলছে, হালনাগাদের বিষয়টি দেখা হচ্ছে। 

জানা যায়, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ২০১৪ সালের দিকে কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আইন, পর্যটন ইত্যাদি তথ্যসেবা জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে ‘জাতীয় তথ্য বাতায়ন’ ওয়েব পোর্টাল চালু করে সরকার। যে পোর্টালের মাধ্যমে জনগণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞপ্তি, গেজেট, ই-সেবা, সরকারি ফরমসমূহ, বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের তালিকা, ই-ডিরেক্টরি, মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, বিভিন্ন প্রকল্পের বিবরণ, জনপ্রতিনিধিদের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বরসহ ইত্যাদি তথ্য পাওয়া যাবে। সারা দেশের ন্যায় চরফ্যাশনে রয়েছে জাতীয় তথ্য বাতায়ন। কিন্তু সেসব তথ্য বাতায়নে হালনাগাদ কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। 

গত কয়েক দিনের অনুসন্ধানে দেখা যায়, বিভিন্ন সরকারি অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নাম আছে, কিন্তু বাস্তবে তিনি সেখানে নেই। এমনও দেখা গেছে, ওই কর্মকর্তা কয়েক বছর আগেই অন্য জেলায় বদলি হয়ে গেছেন। যোগাযোগের জন্য ফোন নম্বর দেওয়া আছে, কিন্তু তা অকেজো। মোবাইল নম্বর দেওয়া আছে একজনের, কল রিসিভ করছেন অন্যজন। এমন তথ্যবিভ্রাটের মধ্যে পড়ে ভোগান্তি পোহাচ্ছে জনসাধারণ। 

বিশেষ করে উপজেলা শিক্ষা অফিসের তিন কর্মকর্তার কর্মস্থল চরফ্যাশন উপজেলা তথ্য বাতায়নে উল্লেখ থাকলেও কর্মরত আছেন অন্য জেলায়। এদের মধ্যে তুষিত কুমার চৌধুরী নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলায় ২০২১ সালের জুন মাসে, মো. রফিকুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায় ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে, মো. খালিদ হোসেন পটুয়াখালী জেলার দশমিনা উপজেলায় ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বদলি হয়েছেন। একইভাবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের দুই কর্মকর্তার মধ্যে একজন মো. জিয়াউল হক মিলন বরগুনা জেলার আমতলি উপজেলায় বদলি হয়েছেন ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে। অন্যজন মো. খলিলুর রহমানের উল্লেখিত মোবাইল নম্বরটি বন্ধ রয়েছে। এ উপজেলার শিক্ষা অফিস ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের ওয়েবসাইট ঘেঁটে এমন অবস্থা দেখা গেছে। 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মহিউদ্দিন বলেন, ‘এ উপজেলায় আমি ১১ অক্টোবর ২০২০ যোগদান করেছি। অথচ উপজেলা তথ্য বাতায়নে আমার নাম এখনো ইনপুট দেয়নি।’ 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল নোমান বলেন, `চরফ্যাশন উপজেলার তথ্য বাতায়ন ওয়েব পোর্টালটি হালনাগাদ করতে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলব। যেসব সমস্যা আছে সেগুলো দ্রুত সমাধান করা হবে।'

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ভান্ডারিয়ায় নিখোঁজের ১ দিন পর স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

    ‘রাইতের ভোটের এমপি’ বলায় ডিজিটাল আইনে মামলা খেলেন আ.লীগের ইউপি চেয়ারম্যান

    উত্তরা থেকে আগারগাঁও মেট্রোরেল চলবে ১২ ডিসেম্বর

    পোশাকশ্রমিক সাবিনা হত্যার নেপথ্যে পরকীয়া, দাবি ভাইয়ের

    ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহসভাপতি জাকির হোসেন মারা গেছেন 

    প্রথম অনুপস্থিত ২৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১০ জনেরই বিয়ে

    ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের রক্তের সম্পর্কটা অক্ষুণ্ন থাকবে: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী 

    কলকাতায় মুক্তিযুদ্ধের ওপর মোবাইল চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

    খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ইউপি নির্বাচনে আ. লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত  

    মেসির ৩০০ কোটির হোটেল ভেঙে ফেলার নির্দেশ

    ভান্ডারিয়ায় নিখোঁজের ১ দিন পর স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার