Alexa
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

সেকশন

 

বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিপক্ষীয় সভা

বাংলাদেশের সমস্যাগুলো গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে ভারত

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৯

ভারত-বাংলাদেশ মহাপরিচালক পর্যায়ের ৭ম দ্বিপক্ষীয় আলোচনা সভা। ছবি: আজকের পত্রিকা ভারত থেকে বাংলাদেশে ফেনসিডিল, গাঁজা ও হেরোইন আসার বিষয়টি দু-দেশের দ্বিপক্ষীয় আলোচনা সভায় এবার সর্বোচ্চ গুরুত্ব পেয়েছে। বাংলাদেশে কোন কোন পথে মাদক আসছে এ বিষয়ে ভারত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে আশ্বস্ত করেছেন। এ ছাড়া মাদক ধরা পড়লেই যাতে উভয় দেশের মধ্যে তাৎক্ষণিক তথ্য আদান-প্রদানের জন্য কর্মকর্তা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আব্দুস সবুর মণ্ডল। 

আজ বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কনফারেন্স রুমে সকাল সাড়ে ১১ থেকে শুরু হয়ে বেলা ৩টা পর্যন্ত ভারত-বাংলাদেশ মহাপরিচালক পর্যায়ের ৭ম দ্বিপক্ষীয় আলোচনা সভা ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিকেল ৪টায় দ্বিপক্ষীয় আলোচনা সভা নিয়ে অধিদপ্তরের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সংস্থার মহাপরিচালক আব্দুস সবুর মণ্ডল। 

আব্দুস সবুর মণ্ডল বলেন, এখন থেকে মাদক ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভারত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে। তা ছাড়া গত ছয়টি আলোচনা সভায় যে বিষয়গুলো আমরা তুলে ধরেছি, এর মধ্যে সীমান্তে ফেনসিডিলের কারখানাগুলো তাঁরা ধ্বংস করেছে। বাংলাদেশের সমস্যাগুলো ভারত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেছেন। 

মহাপরিচালক বলেন, মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে যেসব মাদক আসে। সেগুলো যদি এখনই আমরা কূটনৈতিক চ্যানেলে চাপ সৃষ্টি করতে না পারি, তাহলে আমাদের জন্য এটা কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে। যাতে আমরা বৈঠকের মাধ্যমে মিয়ানমারের ওপরে চাপ সৃষ্টি করতে পারি এ বিষয়ে ভারতকে অনুরোধ করেছি। তাঁরা আমাদের আশ্বস্ত করেছে। 

আব্দুস সবুর মণ্ডল বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত দিয়ে সড়ক পথে মাদক আসা এখন খুব কঠিন হয়ে গেছে। তবে নদী পথে কিছু ইয়াবা আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে কোস্টগার্ড সতর্ক আছে। এ ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে আইস নিয়ে আমরা অনেক গুলো অভিযান করছি। পাশাপাশি পুলিশও করেছে। এরই মধ্যে অনেক আইস জব্দ করা হয়েছে। এটা নিয়ে শুধু বাংলাদেশের জন্য সমস্যা না। এটা পুরো বিশ্বের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আইস ইয়াবার চেয়েও মারাত্মক আর এটা যাতে দেশে আসতে না পারে সে জন্য দেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। 
 
ইয়াবা দেশের সব সীমান্ত দিয়ে আসে না বলে জানিয়ে ডিজি বলেন, ইয়াবা আসে মিয়ানমার থেকে টেকনাফ দিয়ে। ভারত থেকে যে ইয়াবা আসে তার রুট আলাদা। কক্সবাজার দিয়ে ভারত থেকে কোনো ইয়াবা আসে না। সীমান্তে মাদক ধরা পড়লেই বিজিবি-বিএসএফ বৈঠক করে। তাদের নির্দিষ্ট করে কোনো সমস্যা নেই। আর মাদক দমনে ডিএনসি, পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি ও কোস্টগার্ডসহ আমরা সবাই মিলে কাজ করছি। 

এবারের আলোচনা সভায় গুরুত্ব দিয়ে তুলে ধরা বিষয়গুলো হলো, উভয় পক্ষই সমুদ্র পথকে ব্যবহার করে মাদক চোরাচালান এবং মাদক সন্ত্রাসীদের উদ্ভাবিত নতুন নতুন রুট সম্পর্কিত তথ্য বিনিময়, প্রিকারসর কেমিক্যাল ব্যবস্থাপনা বিষয়ক নীতিমালা ও বিধি-বিধান নিয়ে তথ্য বিনিময়, অপারেশনের মাধ্যমে অর্জিত অভিজ্ঞতা বিনিময়, মাদক বিষয়ক প্রাসঙ্গিক অপরাপর সম্যক তথ্য বিনিময় এবং সঠিক সময়ে তথ্য প্রদানের বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। 

সরকারের মাদকের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স' বাস্তবায়নে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরা হয় বৈঠকে। উভয় দেশের প্রতিনিধিদের পক্ষ থেকেই বিষয়ভিত্তিক তথ্য উপস্থাপন করা হয় এবং আঞ্চলিক পর্যায়ে মাদক নিয়ন্ত্রণে দুই দেশ কীভাবে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের দীর্ঘ সীমান্ত থাকায় আন্তঃরাষ্ট্রীয় মাদকে চোরা চালান, পাচার ও অপরাধ দমনে উভয় দেশের কার্যকর পদক্ষেপ কেবল দুটি দেশের জন্যই নয় বরং আঞ্চলিক নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। 

অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে উভয় দেশের অংশগ্রহণে কার্যকর ও ফলপ্রসূ আলোচনার মাধ্যমে এবারের আলোচনা সভা সমাপ্ত হয়। আগামী মহাপরিচালক পর্যায়ের ৮ম দ্বিপক্ষীয় আলোচনা সভাও বাংলাদেশে হবে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    এসিআর দাখিলে এবার স্বাস্থ্য প্রতিবেদন লাগবে না

    শেষ হলো সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশন

    কুয়েতে পাপুলের আপিল খারিজ, ৭ বছরের জেল বহাল

    বাংলাদেশে ইউনিলিভারের বিজ্ঞাপন বন্ধে অ্যাটকোর প্রতিবাদ

    তৃতীয় ধাপের ভোট গ্রহণ সহিংসতাহীন নির্বাচনের মডেল: ইসি সচিব

    বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে স্বাধীনতার ১০ বছরেই বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হতো: প্রধানমন্ত্রী

    উত্তরখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও পুলিশ ক্যাম্প তৈরির নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

    ক্ষীণ আশা নিয়ে শুরু হচ্ছে ইরান পরমাণু আলোচনা

    তৃতীয় লিঙ্গের চেয়ারম্যান প্রার্থীর কাছে নৌকার ভরাডুবি

    নীলফামারীতে ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষে বিজিবি সদস্য নিহত

    ‘গায়ের রং কালো বলে আমাকে আক্রমণ করা হয়েছে’

    মুহুর্মুহু বোমাবাজিতে শেষ হলো গোসাইরহাটের ভোটগ্রহণ