Alexa
বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

জমে উঠেছে মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০৬

খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রিবার্ষিক নির্বাচন উপলক্ষে নগরীর সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল এলাকা ছেয়ে গেছে ব্যানার ও ফেস্টুনে। ছবিটি গতকাল দুপুরে তোলা। আজকের পত্রিকা খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রিবার্ষিক নির্বাচন জমে উঠেছে। আগামী ১৯ নভেম্বর নির্বাচনের দিন ধার্য হলেও এর প্রায় দু’মাস আগে থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা মাঠে নেমে পড়েছেন। ইতিমধ্যে প্রার্থীদের ছবি আর প্রতীক দিয়ে রংবেরঙের ব্যানার, পোস্টার, হেডিং আর ফেস্টুনে নগরীর সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনালের বিভিন্ন এলাকা ছেয়ে গেছে।

ইউনিয়ন অফিস থেকে আরম্ভ করে টার্মিনাল এলাকার বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট, চায়ের দোকান, টার্মিনাল ভবন এবং পরিবহনের বিভিন্ন কাউন্টারে এখন আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আলাপ-আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। মোটর শ্রমিকেরা ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাস টার্মিনাল এলাকা জমিয়ে রেখেছেন। গঠিত নির্বাচন কমিশন গত ১৭ অক্টোবর নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছেন।

মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, এবারের নির্বাচন প্যানেল ভিত্তিতে না হলেও তাদের ভাষায় চ্যানেল ভিত্তিতে অনুষ্ঠিত হবে। সভাপতি পদে ৪ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ২ জনসহ মোট ২৫টি পদের বিপরীতে ৭৫ জন প্রার্থী এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষিত প্যানেল না হলেও বর্তমান সভাপতি কাজী মোঃ নূরুল ইসলাম বেবী এবং সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বিপ্লবের নেতৃত্বে দুটি প্যানেলে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।

এবার বর্তমান সভাপতি নূরুল ইসলাম বেবী সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বিপ্লবের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন। মূল লড়াইটা হবে এ দু’জনের মধ্যে। সাধারণ সম্পাদক পদে তাঁরা দু’জনই প্রার্থী হয়েছেন। সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন ৪ জন। তাঁরা হলেন, মোঃ জাহিদ খান, ইলিয়াস হোসেন সোহেল, মীর মোতালেব ও মনোয়ার হোসেন মনা। তবে সভাপতি পদে মূল লড়াইটা হবে জাহিদ খান এবং মীর মোতালেবের মধ্যে।

জাহিদ খানকে সমর্থন দিচ্ছেন বর্তমান সভাপতি এবং আসন্ন নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নূরুল ইসলাম বেবী। অপরদিকে মীর মোতালেবকে সমর্থন দিচ্ছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জাকির হোসেন বিপ্লব। মোটর শ্রমিকদের রুটি, রুজিসহ বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রাম ও দাবি-দাওয়া আদায়ে এই নির্বাচনের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মোটর শ্রমিকেরা জানিয়েছেন।

আসন্ন নির্বাচন নিয়ে খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নূরুল ইসলাম বেবী’র সঙ্গে আলাপ করে জানতে চাইলে তিনি আজকের পত্রিকাকে বলেন, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনের বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও শ্রমিক স্বার্থ বিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য শ্রমিক স্বার্থে তিনি বাধ্য হয়ে এবার সভাপতি বাদ দিয়ে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, জাকির হোসেন বিপ্লব মোটর শ্রমিক ইউনিয়নে বিভিন্ন পদে ১৭ বছর ধরে রয়েছেন। এর মধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে ৬ টার্মে ১৪ বছর আঁকড়ে আছেন। অথচ এই ১৪ বছরে তিনি শ্রমিক ইউনিয়নের উন্নয়ন এবং সদস্যদের বিভিন্ন সংকটে সাহায্য-সহযোগিতা করেননি। তিনি তিনি তাঁর নিজের স্বার্থ দেখেছেন। তিনি ইউনিয়নের আয়-ব্যয়ের সন্তোষজনক কোন হিসাবপত্র দিতে পারেননি। তিনি ইউনিয়নের অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। এবারের নির্বাচনে শ্রমিকেরা তার জবাব দেবে।

বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নূরুল ইসলামের অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে সাধারণ সম্পাদক ও সম্পাদক প্রার্থী জাকির হোসেন বলেন, অডিট ফার্ম দিয়ে নিরীক্ষা করে হিসেব দেওয়া হয়েছে। সভাপতি তাঁর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছেন, তা সঠিক নয়।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    কেঁদে ফেললেন তাজউদ্দীন আহমদ

    যেখানে সবার ওপরে বার্সেলোনা

    নিরাপত্তা চায় সোহেল ও হরিপদের পরিবার

    শুরু হলো বিজয় মাসের কর্মসূচি

    রাজারবাগ পিরের বিদেশ যাত্রা ঠেকাতে হাইকোর্টে আবেদন

    ছাড়পত্র না পেয়েও ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে ইট

    শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে দাঁড়াতে দিল না পুলিশ

    ২৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন

    উন্নয়নশীল দেশের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদা প্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রী

    কেলেঙ্কারির জেরে চীনে বন্ধ হলো নারীদের টেনিস প্রতিযোগিতা