Alexa
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

সেকশন

 

বিদ্রোহীদের নিয়ে শঙ্কা আ.লীগে

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩১

সখীপুরে চারটি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ইতিমধ্যেই দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। এ দিকে নির্বাচনে আসেনি বিএনপি। এ কারণে অনেকটা ফাঁকা মাঠ ছিল আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীদের জন্য। কিন্তু প্রতিটি ইউনিয়নেই শক্তিশালী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বিদ্রোহীদের আনাগোনা আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের শঙ্কায় ফেলে দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন যাদবপুর ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান এ কে এম আতিকুর রহমান আতোয়ার, কাঁকড়াজানে ইউপিতে তারিকুল ইসলাম বিদ্যুৎ, বহুরিয়া ইউপিতে গোলাম কিবরিয়া সেলিম ও বহেড়াতৈল ইউপিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াদুদ হোসেন।

অপরদিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে কাঁকড়াজান, যাদবপুর ও বহুরিয়া ইউপিতে আরও চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বহেড়াতৈল ইউপিতে দলীয় মনোনয়ন না চাইলেও বর্তমান চেয়ারম্যান গোলাম ফেরদৌস স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই তাঁরা বিদ্রোহী হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছেন।

এদিকে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যেও ব্যাপক আগ্রহের সৃষ্টি হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বিদ্রোহী প্রার্থীদের মনোনয়ন প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা। তাঁরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন কি না, তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত।

এদিকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। চারটি ইউপিতে বইছে উৎসবের আমেজ। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশাপাশি চলছে সংরক্ষিত নারী ও ইউপি সদস্য পদপ্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা। সাধারণ ভোটার থেকে শুরু করে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে চলছে প্রার্থীদের নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘চার ইউপি নির্বাচনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের সমন্বয়ে একাধিক প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল। এঁদের মধ্যে ১০ অক্টোবর দলের মনোনয়নপ্রাপ্তদের নাম প্রকাশ করা হয়েছে। বর্তমানে আমরা দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্তদের নিয়েই কাজ করছি।’

স্থানীয় একটি বিশ্বস্ত সূত্রমতে, চারটি ইউপিতে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে অস্বস্তিতে রয়েছেন দলটির ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতারা। অনেক দফায় বৈঠক করেও বিদ্রোহী প্রার্থী ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছেন তাঁরা। কোনোভাবেই প্রার্থিতা প্রত্যাহার করাতে পারছেন না।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত শিকদার বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন বোর্ড যাদের যোগ্য মনে করেছেন তাঁরাই মনোনয়ন পেয়েছেন। বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অনেকে মনোনয়নপত্র কিনলেও শেষ পর্যন্ত তাঁরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেবেন বলে আশা করছি। দল থেকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে অবশ্যই ইউনিয়নবাসীর বহুমুখী উন্নয়ন হবে। ইতিমধ্যে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে যাদবপুর ইউপিতে সাবেক চেয়ারম্যান খন্দকার বজলুর রহমান বাবুল ও হাফিজুর রহমান পলাশ, কাঁকড়াজান ইউপিতে মো. দুলাল হোসেন, বহুরিয়া ইউপিতে ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি নূরে আলম মুক্তা ও বহেড়াতৈল ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান গোলাম ফেরদৌস।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চিত্রা শিকারী বলেন, এবার উপজেলার চারটি ইউপিতে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হবে। সাধারণ ভোটাররা যাতে তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারেন এ জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    রসায়নের মূল হলো সমীকরণ

    কোনো বাধ্যতামূলক প্রশ্ন থাকবে না

    পাঁচটি অধ্যায় থেকে প্রশ্ন হবে

    সময়টা কাজে লাগাতে হবে

    সময়ের দিকে লক্ষ রাখবে

    তোমরাই সফল হবে

    ডিএসইতে সাত মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন

    চলতি বছরে ঢাকার সড়কে প্রাণ ঝরেছে ১১৯টি

    নরসিংদীতে নির্বাচনী সহিংসতায় আরও একজনের মৃত্যু  

    উত্তরখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও পুলিশ ক্যাম্প তৈরির নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

    ক্ষীণ আশা নিয়ে শুরু হচ্ছে ইরান পরমাণু আলোচনা

    তৃতীয় লিঙ্গের চেয়ারম্যান প্রার্থীর কাছে নৌকার ভরাডুবি