Alexa
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

সেকশন

 

গ্রামবাসীর নিজস্ব চাঁদা ও স্বেচ্ছাশ্রমে সেতু

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

মির্জাপুরের গোড়াই ইউনিয়নের মীর দেওহাটা গ্রামের বাসিন্দাদের চাঁদা ও স্বেচ্ছাশ্রমে মোল্লাবাড়ি ঘাটে লৌহজং নদীর ওপর সেতু নির্মাণ হচ্ছে। ছবিটি গতকাল সকালে তোলা। আজকের পত্রিকা মির্জাপুরে গ্রামবাসীর উদ্যোগে লৌহজং নদীর ওপর নির্মিত হচ্ছে সেতু। দুই বছর ধরে নিজেদের দেওয়া চাঁদা ও স্বেচ্ছাশ্রমে এ সেতুর নির্মাণকাজ এখনো চলছে। ইতিমধ্যে সেতুটির প্রায় ৪০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই সেতু নির্মাণে অর্ধকোটি টাকারও বেশি খরচ হবে বলে ওই গ্রামবাসী জানিয়েছেন।

গোড়াই ইউনিয়নের মীর দেওহাটা গ্রামে লৌহজং নদীর ধারা বিভক্ত হয়েছে। গ্রামের দক্ষিণ পাড়ের মানুষ নদী পার হয়ে উপজেলা সদর, দেওহাটা বাজার ও স্কুল-কলেজে যাতায়াত করে। এ ছাড়া অপর পাড়ের মানুষ নদী পার হয়ে তাঁদের আবাদি জমির ফসল আনা-নেওয়া করেন। এই গ্রামের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল লৌহজং নদীতে মোল্লাবাড়ি ঘাটে একটি সেতু নির্মাণের।

গতকাল শুক্রবার সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, লৌহজং নদীর ওপর ওই গ্রামের মানুষের টাকা ও স্বেচ্ছাশ্রমে আটটি পিলার নির্মাণ করা হয়েছে। বর্তমানে অর্থাভাবে কাজ বন্ধ। চলাচলের জন্য সেই পিলারের ওপর বাঁশের সাঁকো তৈরি করা হয়েছে। তা দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে লোকজন নদী পারাপার হচ্ছে।

গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জলিল বলেন, ‘সারা বছর নৌকায় পারাপারের জন্য আমরা ঘাটের মাঝিকে ধান ও টাকা দিই। দুই বছর আগে পাকা খুঁটি করে নদীতে কাঠের সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেই উদ্যোগে গ্রামের ধনী-দরিদ্র সবাই স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেন। প্রতি বাড়ি থেকে ন্যূনতম ২ হাজার করে চাঁদা তোলা হয়। এ ছাড়া ইটভাটার মালিকেরা এক ট্রাক করে ইট দিয়ে সহযোগিতা করেন।’

গ্রামের বাসিন্দা দুবাইপ্রবাসী রিপন ও ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন, নদীর তলদেশের ১০ ফুট নিচ থেকে ঢালাই করে ৩২ ফুট উচ্চতার ৮টি খুঁটি নির্মাণ করা হয়েছে। এতে প্রায় ২০ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। এ সেতুর দৈর্ঘ্য ১৬০ ফুট ও প্রস্থ ১১ ফুট।

ইউপি সদস্য ও গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘এই সেতুর কাজ শেষ হলে মীর দেওহাটা গ্রামের মানুষ ছাড়া আড়াইপাড়া, মন্দিরাপাড়া, বুধিরাপাড়া, পাহাড়পুর ও ভাওড়া গ্রামের মানুষ অল্প সময়ে দেওহাটা হয়ে ঢাকা ও টাঙ্গাইল যাতায়াত করতে পারবে। সেতুটি নির্মাণে স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সহযোগিতা কামনা করি।’

উপজেলা প্রকৌশলী আরিফুর রহমান বলেন, ‘আমি সদ্য যোগদান করায় বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নই। তবে খোঁজ নিয়ে টেকনিক্যাল কোনো পরামর্শ লাগলে তা দেওয়ার ব্যবস্থা করব।’

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু বলেন, ‘গ্রামবাসীর উদ্যোগে সেতু নির্মাণের বিষয়টি সম্পর্কে আমি জানি। তাঁদের ওই কাজে উপজেলা পরিষদ থেকে আর্থিক সহযোগিতা করা হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    রসায়নের মূল হলো সমীকরণ

    কোনো বাধ্যতামূলক প্রশ্ন থাকবে না

    পাঁচটি অধ্যায় থেকে প্রশ্ন হবে

    সময়টা কাজে লাগাতে হবে

    সময়ের দিকে লক্ষ রাখবে

    তোমরাই সফল হবে

    দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে

    ডিএসইতে সাত মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন

    চলতি বছরে ঢাকার সড়কে প্রাণ ঝরেছে ১১৯টি

    নরসিংদীতে নির্বাচনী সহিংসতায় আরও একজনের মৃত্যু  

    উত্তরখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও পুলিশ ক্যাম্প তৈরির নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

    ক্ষীণ আশা নিয়ে শুরু হচ্ছে ইরান পরমাণু আলোচনা