Alexa
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

সেকশন

 

নালার ওপর গরুর খামারসহ নানা দোকানপাট

একদিনে উচ্ছেদ ৩ শতাধিক স্থাপনা

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৫

নগরীর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডে গতকাল উচ্ছেদ অভিযান চালায় চসিক। এ সময় এক্সকেভেটর দিয়ে এক দোকান ভাঙা হয়। ছবি: আজকের পত্রিকা নগরীর হাটহাজারীর মুখ থেকে পাহাড়িকা আবাসিক পর্যন্ত ৩০০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। সেখানে বড় বড় নালার উপর গরুর খামারও গড়ে তুলেছিলেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। সে গুলোও উচ্ছেদ করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১ পর্যন্ত চসিকের ৭ নম্বর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডের আওতাধীন রৌফাবাদ ও পাহাড়িকা আবাসিক কাঁচাবাজারে দিনভর এই অভিযান চালানো হয়।

হাটহাজারীর মুখ অক্সিজেন মোড়ে ২০-৩০টি অবৈধ কাঁচা দোকান। এসব দোকানগুলো ছিল অস্থায়ী। দোকানদারের কাছ থেকে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি চাঁদা তুলতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তাঁদের ছত্রচ্ছায়ায় দীর্ঘদিন ধরে এখানে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিলেন ওই ব্যবসায়ীরা। সড়কের পাশে দোকানের কারণে প্রতিদিনই যানজট লেগে থাকত। মঙ্গলবার সকালে সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এসব দোকান উচ্ছেদ করা হয়।

একই ভাবে ষোলোশহর নালার পাশে অবৈধ গড়ে ওঠা দোকানপাটও উচ্ছেদ করা হয়। ষোলোশহর ছাড়াও রৌফাবাদ, পাহাড়িকা আবাসিক ও কাঁচাবাজার মোড়ে শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ও গরুর খামারও উচ্ছেদ করে সিটি করপোরেশন। তবে দুপুরে অভিযান শেষ করলেও বিকেলে আবারও অস্থায়ীভাবে দোকান বসতে দেখা গেছে।

পাহাড়িকা আবাসিক এলাকার দোকানদার আবুল কালাম বলেন, ‘ছোট এই চায়ের দোকানের আয় দিয়ে সংসার চলে। দোকানটি উচ্ছেদ করায় পরিবার নিয়ে চলব কীভাবে?’

সিটি করপোরেশনের উপপ্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলম চৌধুরী আজকের পত্রিকাকে বলেন, অবৈধ দোকানপাট-তো আছেই কোনো কোনো জায়গায় নালার উপর গরুর খামারও গড়ে তুলেছেন কেউ কেউ। সেগুলোও উচ্ছেদ করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘কাজীর দেউড়ি থেকে নিউমার্কেট যাওয়ার পথে সড়কের উপর গড়ে ওঠা স্থাপনাও কিছুদিন আগে উচ্ছেদ করা হয়েছে। এদিকে উচ্ছেদ করি, অন্যদিকে আবারও দোকানপাট বসে যায়। তারপরও আমরা তদারকি করছি।’ ফুটপাত দখল করে থাকা অবৈধ সব দোকানপাট উচ্ছেদ করা হবে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, নগরের পরিচ্ছন্নতার অভিযানও অব্যাহত থাকবে।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, নগরের চকবাজার, কাজীর দেউড়ি থেকে নিউমার্কেট, ৩৬ নম্বর গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডে কিছুদিন আগে অভিযান চালানো হয়েছিল।

মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, বর্তমানে সড়ক দখল করে অবৈধ স্থাপনার বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। পাশাপাশি যেসব সড়ক গর্ত ও চলাচলে কষ্ট ওই সব সড়কও সংস্কার করা হচ্ছে।

চসিক মেয়র বলেন, ‘এমনও হয়েছে রাতে আমাকে জানানোর পর সকালেই পশ্চিম ষোলোশহর এলাকায় কার্পেটিং কাজ করেছি। আমরা চেষ্টা করছি, বাসযোগ্য একটি শহর বাসিন্দাদের উপহার দিতে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    রসায়নের মূল হলো সমীকরণ

    কোনো বাধ্যতামূলক প্রশ্ন থাকবে না

    পাঁচটি অধ্যায় থেকে প্রশ্ন হবে

    সময়টা কাজে লাগাতে হবে

    সময়ের দিকে লক্ষ রাখবে

    তোমরাই সফল হবে

    ধুনটে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হলেন যারা

    দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে

    ডিএসইতে সাত মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন

    চলতি বছরে ঢাকার সড়কে প্রাণ ঝরেছে ১১৯টি

    নরসিংদীতে নির্বাচনী সহিংসতায় আরও একজনের মৃত্যু  

    উত্তরখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও পুলিশ ক্যাম্প তৈরির নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর