Alexa
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

চার দিনের সংঘর্ষের ঘটনায় চবি ছাত্রলীগের ১২ কর্মী বহিষ্কার

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১৫:০৬

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ৪ দিনের সংঘর্ষের ঘটনায় ১২ কর্মীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তাঁদের মধ্যে সিক্সটি নাইন গ্রুপের ৬ জন ও সিএফসি গ্রুপের ৬ জন কর্মী রয়েছেন। গতকাল রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় এ বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিক্সটি নাইন গ্রুপের এক কর্মীকে মারধর করে সিএফসি গ্রুপের কর্মীরা। এ নিয়ে রাতেই সিএফসি ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা ও ইট-পাটকেল ছোড়াছুড়ি হয়। পরে প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। 

এ ঘটনার জেরে গত শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে সিএফসির কর্মী আরাফাতকে জিরো পয়েন্টে একা পেয়ে মারধর করে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা। এ সময় জিরো পয়েন্টে কয়েকজন সবজি বিক্রেতাও আহত হন। এ ঘটনা ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মী নাদিম হায়দারকে শাহজালাল হলের সামনে মারধর করে সিএফসির কর্মীরা। পরবর্তীতে নাদিম হায়দারকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও দুজনকে মারধর করে সিএফসির কর্মীরা। 

একই ঘটনার জেরে গতকাল রোববার বিকেলে শাহ আমানত হলের সামনে সাবেক সহসভাপতি আল আমিন রিমনকে একা পেয়ে মারধর করে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা। পরে পুলিশ এসে তাঁকে উদ্ধার করেন। 

সিক্সটি নাইন গ্রুপের বহিষ্কৃতরা হলেন-ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মো. নাঈম, একই শিক্ষাবর্ষের বাংলা বিভাগের সাইফুল ইসলাম, রসায়ন বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আশরাফুল আলম নায়েম, একই শিক্ষাবর্ষের পরিসংখ্যান বিভাগের আকিব জাভেদ, ইতিহাস বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের জুনায়েদ হোসেন জয় ও অর্থনীতি বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ফরহাদ। তাঁদের মধ্যে আশরাফুল আলম নায়েমকে ১ বছর ও বাকিদের ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়। 

অন্যদিকে, সিএফসি গ্রুপের বহিষ্কৃতরা হলেন-আইন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মির্জা খবির সাদাফ, একই বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের খালেদ মাসুদ, লোক প্রশাসন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অহিদুজামান সরকার, সমাজতত্ত্ব বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আরিফুল ইসলাম, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের তানজিল হোসেন ও আরবি বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের তৌহিদ ইসলাম। তাঁদের মধ্যে সাদাফদের ১ বছর ও বাকিদের ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে আজকের পত্রিকাকে বলেন, গত ৪ দিনের সংঘর্ষণের ঘটনায় দুই পক্ষের অভিযোগ, সিসিটিভি ফুটেজ ও গোয়েন্দা তথ্য যাচাইবাছাই করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় ১২ জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে দুজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করার অভিযোগে ১ বছর ও বাকিদের ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। 

প্রক্টর আরও বলেন, বহিষ্কারের মেয়াদ আজ থেকেই কার্যকর হবে। এ সময় বহিষ্কৃতরা বিশ্ববিদ্যালয় ও হলে অবস্থান করতে পারবেন না। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ঢাবির শতবর্ষ উপলক্ষে ডিইউডিএসের আয়োজনে ছাত্র-শিক্ষক প্রীতি বিতর্ক

    মাউশি পরিচালকের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠন

    কুয়েট বন্ধ ঘোষণা, হল ছাড়ার নির্দেশ

    ইবিতে ধর্মতত্ত্ব অনুষদে ২১ আসন খালি

    জাককানইবি এলাকায় লাগামহীন ভাড়ায় ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

    বাংলাদেশের ব্র্যাক ও যুক্তরাজ্যের কেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ স্নাতকোত্তর প্রোগ্রাম শুরু

    এবার ভ্যাট নিবন্ধন নিল নেটফ্লিক্স

    ‘আমার বাবা নেই, আমাদের ভালোবাসবে কে?’

    রিকশাচালককে মারধর করে ২ চীনা নাগরিক জেলহাজতে, একজন পলাতক

    নালিতাবাড়ীতে ইউনিয়ন পরিষদের ৬টি কক্ষের তালা ভেঙে চুরির অভিযোগ

    কক্সবাজারে হোটেল থেকে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার