প্রেমিক-প্রেমিকা। ছবি : সংগৃহীত

ভিডিও কলে রেখেই- বরিশাল সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজের অনার্স চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাহীবি হাসান নামে এক যুবকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল মেঘার। দীর্ঘদিন যাবত তাদের পরিচয়। মাহীবি হাসান মেঘাকে বিয়ের কথা বলে তার সাথে একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক গড়ে তুলেছিল।

স্বপ্ন দেখিয়েছেন সুখের সংসারের। তবে শেষ পর্যন্ত প্রতারণার আশ্রয় নেন তিনি। মেঘাকে জানিয়ে দিলেন তার সঙ্গে আর সম্পর্ক রাখা সম্ভব নয়। এনিয়ে শুরু হয় বিতণ্ডা। এমন পরিস্থিতিতে বয়ফ্রেন্ডকে ভিডিও কলে রেখে আত্মহত্যা করেছেন ইডেন মহিলা কলেজের ছাত্রী সায়মা কালাম মেঘা।

অন্তরঙ্গ মুহুর্তে প্রেমিক-প্রেমিকা। ছবি : সংগৃহীত

জানা যায়, মেঘা ইডেন মহিলা কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের অনার্স দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। মেঘার বাড়ি ঝালকাঠি জেলা সদরে। তার বাবার নাম আবুল কালাম আজাদ ও মা রুবিনা আজাদ।

এ ব্যাপারে মেঘার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় তারা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। মেঘার চাচা আবুল কাশেম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ময়না তদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষায় আছি আমরা। রিপোর্ট পেলে এঘটনায় মামলা করা হবে।’

এ বিষয়ে মেঘার বড় ভাই সম্রাট জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে মেঘার নিজ জেলা ঝালকাঠিতে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

এর আগে গত রবিবার মেঘার সঙ্গে ওই যুবকের ভিডিও কলে বিয়ে নিয়ে কথা হয়। কিন্তু এতে রাজি না হওয়ায় মেঘা ভিডিও কল রেখেই আত্মহত্যা করেন। তার বোনের সঙ্গে প্রতারণার বিষয়টি মেনে নিতে পারছেন না তিনি।

জানা গেছে, ঘটনার পর থেকে আত্মগোপনে রযেছেন মেঘার প্রতারক বয়ফ্রেন্ড মাহীবি হাসান।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস