Alexa
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

বিজ্ঞাপন ছাড়া বাংলাদেশে ফিরল জি বাংলা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৪৭

‘জি বাংলা’ চ্যানেলের লোগো। ছবি: ইনস্টাগ্রাম ক্লিন ফিড বাস্তবায়ন করে ১৪ দিন পর বাংলাদেশে সম্প্রচারে ফিরেছে ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল জি বাংলা। গতকাল শুক্রবার থেকে বাংলাদেশে সম্প্রচার হচ্ছে চ্যানেলটি। সে ক্ষেত্রে চ্যানেলটিতে এখন আর বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে না।

কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) সভাপতি এস এম আনোয়ার পারভেজ এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘জি বাংলা কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে ‘ক্লিন ফিড’ পেয়ে পরিবেশকেরা পরীক্ষামূলকভাবে সম্প্রচার শুরু করেছেন। ঢাকায় সম্প্রচার শুরু হলেও দেশের অন্যান্য এলাকায় তা শুরু হতে দু-এক দিন লাগতে পারে।’ বন্ধ থাকা বাকি চ্যানেলগুলোও পর্যায়ক্রমে সম্প্রচারে ফিরবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানের ফাঁকে বিজ্ঞাপন প্রচার করে- এমন বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেল সম্প্রচার করার সুযোগ বাংলাদেশের আইনে নেই। সেই নিয়ম বাস্তবায়নে সরকার কঠোর অবস্থানে গেলে পরিবেশক ও কেবল অপারেটররা গত ১ অক্টোবর জি বাংলা, স্টার জলসা, স্টার স্পোর্টসসহ ৬০টির মত বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়। ২০০৬ সালের কেবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরিচালনা আইনের ১৯ (১৩) ধারায় বলা হয়েছে, বিদেশি কোনো চ্যানেলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন সম্প্রচার বা সঞ্চালন করা যাবে না। 

বাংলাদেশে জি নেটওয়ার্কের সব চ্যানেলের পরিবেশক মিডিয়া কেয়ার নামের একটি প্রতিষ্ঠান। তবে ওই প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মকর্তা এই বিষয়ে এখন কথা বলতে রাজি হননি।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    কাজী হায়াৎ হাসপাতালে ভর্তি

    শাকিব-নিশোকে নিয়ে ছবি নির্মাণের ইঙ্গিত দিলেন ‘মিশন এক্সট্রিম’ নির্মাতা

    পাঁচ ধারাবাহিকে শ্রাবন্তী

    জন্মদিনে ফ্যাশন হাউস শুরুর ঘোষণা দিলেন স্পর্শিয়া

    ‘জাগো বাহে’ সিরিজে বাঙালির জেগে ওঠার গল্প

    ঘুমন্ত অবস্থায় এসআইয়ের ‘বিশেষ অঙ্গ’ কেটে দিলেন স্ত্রী

    'টাকা না দিয়ে ষড়যন্ত্র করায় আত্মহত্যার পথ বেছে নিলাম'

    টেকনাফে নবজাতকের পরিত্যক্ত মরদেহ উদ্ধার

    করোনায় আরও একটি মৃত্যুশূন্য দিন

    স্বামী বদলানো যায় কিন্তু প্রতিবেশী না—ভারত সম্পর্কে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী    

    দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি