Alexa
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

সরাইল উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি

১৯ নেতার পদত্যাগ

আপডেট : ১৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৬

সরাইল প্রেসক্লাবের সামনে পদত্যাগের ঘোষণা দেন নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির সদস্যরা। ছবি: আজকের পত্রিকা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার চুন্টা ইউনিয়ন বিএনপির নবগঠিত ৩১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি থেকে ১৯ নেতা পদত্যাগ করেছেন। গত বুধবার রাতে সরাইল প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়ে তাঁরা এ পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

এর আগে ৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় উপজেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে অ্যাডভোকেট এ কে এম শামছুল আলমকে আহ্বায়ক ও হাফেজ মনিরুল ইসলামকে সদস্যসচিব করে ৩১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর অনুমোদন দেন উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আনিছুল ইসলাম ঠাকুর ও সদস্যসচিব অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান লস্কর তপু।

নবগঠিত কমিটির সদস্য জয়নাল আবেদিন বলেন, ‘ত্যাগী নেতাদের এখানে মূল্যায়ন না করার কারণে পদত্যাগ না করে পারলাম না। যাদের কেউ চেনে না এবং সারা বছর জেলা শহরে থাকে তাকে করা হয়েছে প্রধান।’ ইউনিয়নে আরও বহু যোগ্য ও ত্যাগী নেতা আছে। তাদের আহ্বায়ক করার দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির সদস্যসচিব অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান লস্কর তপু বলেন, ‘চুন্টা ইউনিয়নের ১১ জন আহ্বায়ক কমিটিতে থাকতে অনীহা প্রকাশ করেছেন। আমরা নতুন করে ১১ জনকে কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করেছি। কিছু লোক দলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ১২ ধরে দলের নেতা-কর্মীদের মামলা-মোকদ্দমা বিনা পয়সায় পরিচালনা করছি। সরাইলের আপামর জনগণ জানে। আমরা এই প্রথম কর্মিসভা করে কমিটি দিচ্ছি।’

চুন্টা ইউনিয়ন শাখা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বলেন, ‘বিএনপির প্রতিষ্ঠাকাল থেকে আজ পর্যন্ত দলের কর্মী হিসেবে আছি। দলের জন্য জেলও খেটেছি। নির্যাতন জলুম সহ্য করেছি। গত ১৫ বছর চুন্টা ইউনিয়ন শাখা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছিলাম। অথচ আমাকে এ কমিটির সদস্যও তালিকায় রাখা হয়নি।’

চুন্টা ইউনিয়ন শাখা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির ১ নম্বর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহের আলী বলেন, ‘এটি স্বজনপ্রীতির কমিটি। নিজেদের পকেটের লোক দিয়ে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি আমরা মানি না।’ চুন্টা ইউনিয়ন বিএনপিকে বাঁচানোর জন্য জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

গত বুধবার রাতে পদত্যাগ করা ১৯ কর্মীরা হলেন—অ্যাডভোকেট জাহের আলী, লিয়াকত আলী, মো. জয়নাল আবেদীন, মো. জিন্নত আলী, ডাক্তার সোলাইমান, আব্দুস ছাত্তার, সাবেক ইউপি সদস্য ফজলু মিয়া, সাবেক ইউপি সদস্য লতিফ মিয়া, ইরন মিয়া, আকবর মিয়া, শাজাহান মিয়া, কাঞ্চন মিয়া, গজনফর মিয়া, আবদুল হাই, আরব আলী, জিয়াউর রহমান, নুর মিয়া, নায়েব আলী ও আলমগীর হোসেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    জাল সনদে ১০ বছর ধরে শিক্ষকতার অভিযোগ

    বৃষ্টিতে সরিষার ক্ষতির শঙ্কা

    রোল নম্বর লেখার পর পরীক্ষা স্থগিত

    সুন্দরগঞ্জে সাবেক ইউপি সদস্যের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

    মুরাদকে যারা সহযোগিতা করেছে তাদেরও বিচার চাইলেন নজরুল ইসলাম খান

    মিরপুরে ই-কারখানার যাত্রা শুরু

    মুরাদ হাসানের পদত্যাগ যথেষ্ট নয়: মঈন খান

    ভারতে ফের আফস্পা বাতিলের দাবি

    দুদকের মামলায় মানিকগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতা মট্টুসহ দুজন গ্রেপ্তার