রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

পলিথিনের ঝুপড়িতে বিদ্যুতের আলো

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:১৩

পীরগাছা উপজেলার দেউতি বাজার এলাকায় বেদেদের ঝুপড়িতে বিদ্যুতের সুবিধার জন্য লাগানো সোলার প্যানেল। ছবি: আজকের পত্রিকা পলিথিনে মোড়ানো ছোট ছোট ঝুপড়ি। তবে প্রতিটি ঘর ঝলমল করছে বিদ্যুতের আলোতে। আর বাসিন্দাদের অনেকের হাতেই মোবাইল ফোন। যা যোগাযোগের পাশাপাশি পূরণ করছে বিনোদনের চাহিদা। এসবই সম্ভব হয়েছে সৌরবিদ্যুতের কল্যাণে।

পীরগাছা উপজেলার দেউতি বাজার এলাকায় ঝুপড়িগুলোতে বাস করেন বেদে সম্প্রদায়ের লোকজন। প্রতিটি অস্থায়ী ঘরের ওপরে ও পাশে লাগানো আছে সোলার প্যানেল। যার আলোয় রাতের আঁধার কেটে আলোকিত হয়ে ওঠে যাযাবর পরিবারগুলো।

দেউতি বাজারে ১৭টি বেদে পরিবার অস্থায়ীভাবে বসবাস করছে। যেখানে মোট সদস্য আছেন ৭৫ জন। এখানকার বাসিন্দাদের ফোনে চার্জ দেওয়া হয় সৌরবিদ্যুতে। সেই ফোনে মেমোরি কার্ড লাগিয়ে ছোট ঘরে চলে বিনোদনের ব্যবস্থা। সেই সঙ্গে সৌরবিদ্যুতের আলোতে পড়ালেখা করছে বেদে পরিবারের ছেলেমেয়েরা।

বংশ পরম্পরায় বেদে সম্প্রদায়ের লোকজনের পেশা সাপ ধরা, সাপের খেলা দেখানো এবং নানা তাবিজ-কবচ ও কবিরাজি ওষুধ বিক্রি করা। তবে সময়ের স্রোতে বেদেরা পাল্টে ফেলছেন তাঁদের জীবনযাত্রা। নৌকার ভাসমান জীবন ছেড়ে এখন উঠে এসেছেন ডাঙায়।

বেদেরা জানান, অনেকে এখন বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে অন্য কাজ করছেন। সাপ কেনাবেচা ও সাপের খেলা দেখানো আগের মতো চলে না। ছেলেমেয়েরাও আর এ পেশায় আসতে চায় না। তাঁরা পড়ালেখা করে মানুষের মতো মানুষ হতে চায়। ভবঘুরে জীবন ছেড়ে নিয়মিত স্কুলে যেতে চায়।

বাবুল মিয়া নামে একজন বেদে বলেন, ‘খোলা আকাশের নিচে বিভিন্ন গাছের নিচে, ছোট ঝোপঝাড়ে এবং পুকুর পাড়ে আমরা দল বেঁধে বসবাস করি। আগে অন্ধকার রাতে কুপির আলো ছিল আমাদের ভরসা। কিন্তু এখন সৌরবিদ্যুতের আলো আছে।’

বেদেরা বছরের ১০ মাস দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ান আর দুই মাস ঢাকার সাভারে থাকেন বলে জানান বেদে ইয়াউল মিয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা যখন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অস্থায়ীভাবে বসবাস করি তখন রাতে কেরোসিনের বাতিই ভরসা ছিল। এখন রাতে সৌরবিদ্যুতের বাতি জ্বলে। এখান থেকে মোবাইলে চার্জ দিতে পারি। মেমোরি কার্ড দিয়ে নাটক ও সিনেমার ভিডিও দেখতে পারি।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    খেতের পেঁপে খেতেই নষ্ট

    ২১ হাজারে চিকিৎসক ১

    নিজ ক্যাম্পাসে ভর্তি পরীক্ষা শুরু আজ

    ৫৭৮ দিন পর খুলল রাবির আবাসিক হল

    চট্টগ্রাম কমনওয়েলথ যুদ্ধ সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে ভারত

    দেড় বছর পর শ্রেণিকক্ষে ফিরল ঢাবি শিক্ষার্থীরা

    অনেক কিছু দেখছি, প্রমাণের অপেক্ষায় আছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

    মেসিকে ছুঁলেন ছেত্রী

    সরকারি চাকরি

    ২২ অক্টোবর একদিনেই ১৭টি চাকরির পরীক্ষা