বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

যন্ত্রপাতি বাক্সে বন্দী রোগী ছুটছে বাইরে

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৫৭

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেকনিশিয়ানের অভাবে কয়েক বছর ধরে কোটি টাকার এক্স-রে, ইসিজি ও ডিজিটাল আলট্রাসনোগ্রাফি যন্ত্র বাক্সবন্দী অবস্থায় রয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে জনবলসংকট। এতে করে এ উপজেলার রোগীরা এসব যন্ত্রের সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য ২০১৫ সালে ডিজিটাল আলট্রাসনোগ্রাফি, ২০১৭ সালে ইসিজি এবং ২০১৮ সালে ডিজিটাল এক্স-রে যন্ত্র সরবরাহ করে সরকার। কোনো টেকনিশিয়ান (সনোলিস্ট/কোরিওগ্রাফার) পদে জনবল না থাকায় কোটি টাকার এ মেশিনগুলো সরবরাহের পর থেকে এখন পর্যন্ত কাজে আসেনি। বছরের পর বছর মেশিনগুলো বাক্সবন্দী অবস্থায় এক্স-রে রুমে তালাবদ্ধ করে রাখায় নষ্ট হওয়ার উপক্রম হচ্ছে। আর বারবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরে টেকনিশিয়ানের জন্য পত্র পাঠানো হলেও এ পদে কোনো জনবল পদায়ন করা হচ্ছে না। যন্ত্রগুলোর ব্যবহার না হওয়ায় এ যন্ত্রপাতি সচল না বিকল, তা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে জানা যায়, সার্জারি অ্যানেসথেসিয়া ও গাইনিসহ জুনিয়র কনসালট্যান্টের পদ শূন্য রয়েছে। সার্জারি ও অ্যানেসথেসিয়া চিকিৎসক ও ডিজিটাল আলট্রাসনোগ্রাফি টেকনিশিয়ান (সনোলিস্ট/কোরিওগ্রাফার) না থাকায় অপারেশন থিয়েটারও আলোর মুখ দেখেনি।

এলাকার লোকজন বলছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনবল কম থাকায় তাঁদের সেবা নিতে অন্যত্র যেতে হচ্ছে। আর এ জন্য গুনতে হচ্ছে বাড়তি টাকা, যা গরিব রোগীদের সামর্থ্যের বাইরে। আর এভাবে তাঁরা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তাই জনবল বাড়ানোর দাবি উপজেলাবাসীর।

ইছাপুরা গ্রামের বাসিন্দা মুক্তা আক্তার বলেন, ‘এ হাসপাতালে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকলেও আমরা কোনো সুবিধা পাচ্ছি না। তাই বেসরকারি হাসপাতাল থেকে আমাদের বিভিন্ন সেবা নিতে হচ্ছে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবা নিতে আসা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘আমি শুনেছি হাসপাতালে অনেক যন্ত্রপাতি রয়েছে। কিন্তু জনবলের অভাবে সেই যন্ত্রপাতিগুলো তালাবদ্ধ করে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই লাখ লাখ টাকার যন্ত্রপাতি নষ্ট না করে সরকার জনবল বাড়িয়ে দিলে উপজেলাবাসী উপকৃত হবে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আঞ্জুমান আরা বলেন, এক্স-রে, ইসিজি, ডিজিটাল আলট্রাসনোগ্রাম যন্ত্র দিয়েছে সরকার, কিন্তু টেকনিশিয়ান নেই। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরে বরাবর পত্র পাঠিয়েছি।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতআলোচিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

    আগাম শীতের সবজি চাষ

    হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি

    পুকুর থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

    পশ্চিম তীরে ৩ হাজার বসতি স্থাপনের অনুমোদন দিল ইসরায়েল

    ব্যবসায়িক স্বার্থে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়ে, শ্রমিকদের বেতন বাড়ে না: নজরুল ইসলাম খান

    চাকরির জন্য যৌতুকের টাকা না দেওয়া অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে মারধর

    ভারতকে বিশ্বকাপ এনে দেওয়া কোচকেই নিয়ে আসছে পাকিস্তান! 

    বিধবা নারীর বাড়িতে ঢুকে হামলার অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে

    আনোয়ারায় চার দিনে ৮টি গরু চুরি