বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

সাজার বদলে অভিযুক্তদের ফুল দিলেন আদালত

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০২

জেলা ও দায়রা জজ আদালত সুনামগঞ্জ আসন্ন বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে কারাগারে ফুল এবং ডায়েরি দিয়ে ৭০ জন অভিযুক্ত শিশুকে সংশোধনের লক্ষ্যে ৬ শর্তে বাবা মায়ের জিম্মায় দিলেন সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ও শিশু আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসেন। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় সুনামগঞ্জ জেলা জজ আদালতের নারী ও শিশু ট্রাইব্যুনাল এ রায় দেন। 

এ সময় আদালতের পক্ষ থেকে শিশুদের হাতে রজনীগন্ধা ও গোলাপ ফুল তুলে দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে একটি ডায়েরিও উপহার দেওয়া হয়। মুক্তি পাওয়া শিশুরা আদালত প্রাঙ্গণে হাতে ফুল নিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পরেন। এ সময় তাদের অভিভাবকেরা জানান শিশুদের আর এমন অপরাধমূলক কাজে জড়িত হতে দেবেন না। 

আদালত সূত্র জানায়, অভিযুক্ত এসব শিশুদের পরিবারের অন্য সদস্যের সঙ্গে মামলায় জড়ানো হয়েছিল। ক্ষুদ্র একটি অভিযোগে এসব শিশুদের আদালতে হাজিরা দিতে হতো। এর ফলে শিশুদের ভবিষ্যৎ নিয়ে তৈরি হয় এক অনিশ্চয়তা। তাদের শিক্ষাজীবন ব্যাহত হচ্ছিল। স্বাভাবিক জীবনে শিশুদের বেড়ে ওঠা হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। শিশুদের এসব অসুবিধা থেকে মুক্তি দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিতে মামলাসমূহ দ্রুত নিষ্পত্তি করে দিলেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ও শিশু আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসেন। 
 
কারাগারের পরিবর্তে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে থেকে সংশোধনের কতিপয় পথ বাতলে দিয়ে বিচারক অভিযুক্ত শিশুদের তাদের বাবা মায়ের জিম্মায় ফেরত পাঠালেন। 
 
যে ছয় শর্তে শিশুদের মুক্তি দেওয়া হলো, প্রতিদিন ২টি ভালো কাজ করা এবং তা আদালত কর্তৃক প্রদত্ত ডায়েরিতে লিখে রাখা ও বছর শেষে ডায়েরি আদালতে জমা দেওয়া, বাবা মাসহ গুরুজনদের আদেশ নির্দেশ মেনে চলা, বাবা মায়ের সেবা যত্ন করা ও কাজে কর্মে তাদের সাহায্য করা, নিয়মিত ধর্মগ্রন্থ পাঠ করা এবং ধর্মকর্ম পালন করা, অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করা, মাদক থেকে দূরে থাকা, ভবিষ্যতে কোন অপরাধের সঙ্গে নিজেকে না জড়ানো। 

প্রবেশন কর্মকর্তা মো. শফিউর রহমান বলেন, যে সব শর্তে শিশুদের সংশোধনের সুযোগ দিয়ে পরিবারে ফেরত পাঠানো হল সেগুলো প্রতিপালিত হচ্ছে কিনা তা আগামী এক বছর পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করা হবে। এছাড়া প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর প্রতিটি শিশুর অভিভাবককে আদালতে এসে সে বিষয়ে অবহিত করতে হবে। 

সুনামগঞ্জ শিশু আদালতের অতিরিক্ত পিপি হাসান মাহবুব সাদি বলেন, আদালতের এমন রায় একটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এই রায়ের মধ্য দিয়ে ৭০ জন শিশু তাদের সুন্দর ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাবে এমনটা আমরাও প্রত্যাশা করি।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ভেড়ামারায় গৃহবধূর ধর্ষণ মামলায় ‘মামা শ্বশুর’ গ্রেপ্তার

    বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

    নিখোঁজ নয় পরিকল্পিত আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী

    অভাবের তাড়নায় কৃষকের আত্মহত্যার অভিযোগ

    খুতবায় সরকারবিরোধী কথা বলার অভিযোগে ইমামের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ

    গর্ভবতী স্ত্রীর পেটে লাথি মারার অভিযোগে স্বামী গ্রেপ্তার

    ভেড়ামারায় গৃহবধূর ধর্ষণ মামলায় ‘মামা শ্বশুর’ গ্রেপ্তার

    বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

    নিখোঁজ নয় পরিকল্পিত আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী

    কলিন পাওয়েল বিশ্বাসঘাতক: ট্রাম্প

    টেক্সাসে উড্ডয়নের পরই উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত

    নৌকার এমপি হয়ে লাভবান হয়েছেন: শাহজাহানকে জেলা আ. লীগ সভাপতি