বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

হারানো রঞ্জনে গোলকধাঁধা

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:০৯

আটক বাদশা মিয়া। চট্টগ্রামে নিখোঁজ এক যুবকের ব্যাপারে দায়ের করা সাধারণ ডায়েরি (জিডি) তদন্ত করে প্রতিবেদনে থানার পুলিশ বলেছিল, ওই যুবক খুন হয়েছেন। কয়েকজন মিলে তাঁকে হত্যা করে লাশ গভীর জঙ্গলে ফেলে দেয়। এ অভিযোগে গ্রেপ্তার দুজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছিলেন।

পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে মামলাটির নতুন করে তদন্তের দায়িত্ব পায় অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তদন্ত প্রতিবেদনে তারা বলেছে, ওই যুবক খুন হননি। মারা গেছেন সড়ক দুর্ঘটনায়। মৃত যুবকের ডিএনএ টেস্ট ও চিকিৎসকের মতামতসহ অন্যান্য পারিপার্শ্বিক তদন্তের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে সিআইডি।

এখন প্রশ্ন, রঞ্জন রায় (২০) নামের ওই যুবক কি আদৌ খুন হয়েছিলেন, নাকি সড়ক দুর্ঘটনায় তাঁর মৃত্যু হয়? যদি খুন না হয়ে থাকেন, তাহলে গ্রেপ্তার হয়ে দুই বছরেরও বেশি সময় কারাগারে থাকা অভিযুক্তরা তো বিনা দোষে শাস্তি পাচ্ছেন। তাঁরা কি প্রভাবশালী কোনো চক্রের ফাঁদে পড়েছেন? এর পেছনে কী স্বার্থ রয়েছে? ডিএনএ প্রতিবেদনে ভুল থাকলে প্রশ্ন উঠবে—রঞ্জন বেঁচে নেই তো? এক রঞ্জন হারিয়ে রেখে গেছেন কত-শত প্রশ্ন।

মামলা, পুলিশ ও স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের জুলাই মাসে মিরসরাই উপজেলার সুফিয়া রোড এলাকা থেকে নিখোঁজ হন রঞ্জন রায়। ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ এলাকা থেকে মিরসরাইয়ে শ্রমিকের কাজ করতে এসেছিলেন তিনি। দীর্ঘদিন তাঁর খোঁজ না পেয়ে বাবা যতীশ রায় মিরসরাই থানায় জিডি করেন।

জানা যায়, এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন মিরসরাই পৌরসভার তালবাড়িয়া গ্রামের মো. লাদেনের ছেলে মো. বাদশা ও ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ থানার রসনী রায়ের ছেলে দীপু রায়।

থানা-পুলিশের তদন্ত
জিডির সূত্র ধরে তদন্তে নামে মিরসরাই থানার পুলিশ। নিখোঁজ যুবকের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বাদশাকে আটক করে পুলিশ।

মিরসরাই থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবির তখন বলেছিলেন, বাদশার দেওয়া তথ্যে জানা যায়, নিখোঁজ রঞ্জনকে তাঁর সহকর্মীরা ডেকে নিয়ে আবুতোরাব বড়তাকিয়া সড়কে কালভার্টের নিচে হত্যা করেন। পরে লাশ বস্তায় ভরে সিএনজি অটোরিকশায় করে মিরসরাই দুর্গম পাহাড়ের চূড়া থেকে ফেলে দেওয়া হয়। কিন্তু তাঁর দেওয়া তথ্যমতে, পরে পুলিশ ও পিআইবি যৌথ অভিযান চালিয়েও মৃতদেহ সেখানে খুঁজে পায়নি।

ওই সময় আলোচনায় ছিল, রঞ্জনকে হত্যার পর অভিযুক্তরা তাঁর লাশ গহিন জঙ্গলে ফেলে দেওয়ায় হিংস্র বন্য প্রাণীর খাবারে পরিণত হয়। এ কারণে তাঁর লাশ পাওয়া যাচ্ছে না।

সিআইডির তদন্ত
সিআইডির মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক মো. মোজাহেদুল ইসলাম। গত আগস্টে তিনি মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেন। মোজাহেদুল জানান, রঞ্জন রায় অপহৃত হননি। সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। তদন্তে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৮ জুলাই মিরসরাই এলাকায় অজ্ঞাতনামা এক যুবক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে চিকিৎসক মতামত দিয়েছিলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় তাঁর মৃত্যু হয়। এরপর বেওয়ারিশ হিসেবে লাশ দাফন করা হয়। বিষয়টি জানার পর সিআইডি কবর থেকে লাশের নমুনা সংগ্রহ করে ডিএনএ পরীক্ষা করায়। ডিএনএ পরীক্ষার ফলাফল ৯৯.৯৯ শতাংশ মিলে যায় রঞ্জন রায়ের মা পার্বতী রানী রায়ের সঙ্গে।

সিআইডির চূড়ান্ত প্রতিবেদনে কারাগারে থাকা মামলার দুই আসামিকে হত্যার দায় থেকে অব্যাহতি দিতে আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

সিআইডির তদন্তসংশ্লিষ্টরা বলেন, মূলত রঞ্জন রায় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন। কিন্তু একটি চক্র তাঁকে হত্যা করেছে মর্মে নিরীহ কয়েকজনকে ফাঁসানোর অপচেষ্টা করেছে।

পিপির মতামত
সিআইডির প্রতিবেদন অগ্রাহ্য করে গত রোববার চট্টগ্রাম জেলা আদালতের পিপি সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী মতামত দেন। মতামতে বলা হয়, ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আসামির প্রদত্ত স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির বিষয়টি আদালত বিচারান্তে সাক্ষ্য-প্রমাণে নিষ্পত্তি করবেন। মামলায় অন্য কোনো বিপরীত মন্তব্য, মতামত বা সিদ্ধান্ত উপনীত হওয়ার ক্ষমতা বা এখতিয়ার তদন্তকারী কর্মকর্তা বা অন্য কারোর নেই।

পিপি সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী আজকের পত্রিকাকে বলেন, এ মামলায় এখনো অভিযোগপত্র হয়নি। তদন্তাধীন। সিআইডির দেওয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন গৃহীত হয়নি। নতুন কোনো সিআইডি কর্মকর্তাকে দিয়ে মামলাটি পুনরায় তদন্তের জন্য মতামত দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, খুনের মামলায় গ্রেপ্তার আসামি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে নিজেই খুনের কথা স্বীকার করেছেন। এখন আসামি নির্দোষ না নিরীহ, এটা আদালতেই বিচার হবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    নিখোঁজ নয় পরিকল্পিত আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী

    চাঁদাবাজির অভিযোগে আখাউড়া স্থলবন্দরে অঘোষিত ধর্মঘট

    বাসার তালা ভেঙে দিনে-দুপুরে দুর্ধর্ষ চুরি

    এক স্টেশনে অভিযানে সাড়ে ৫৯ হাজার টাকা আদায়

    মোটরসাইকেলে ইয়াবা পাচারকালে আটক এক

    ভেড়ামারায় গৃহবধূর ধর্ষণ মামলায় ‘মামা শ্বশুর’ গ্রেপ্তার

    বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

    নিখোঁজ নয় পরিকল্পিত আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী

    কলিন পাওয়েল বিশ্বাসঘাতক: ট্রাম্প

    টেক্সাসে উড্ডয়নের পরই উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত

    নৌকার এমপি হয়ে লাভবান হয়েছেন: শাহজাহানকে জেলা আ. লীগ সভাপতি