রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

১০১ পাখি পেল নতুন জীবন, তিন শিকারির জেল-জরিমানা

আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪১

সিংড়ার চলনবিলের পাখি শিকারির কাছ থেকে উদ্ধারকৃত শতাধিক পাখি অবমুক্ত করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রফিকুল হাসান ও পরিবেশকর্মীরা। ছবি: আজকের পত্রিকা চলনবিলে শিকারির কিল্লা ঘরের ফাঁদ থেকে রক্ষা পেয়ে নতুন জীবন পেল বকসহ বিভিন্ন প্রজাতির ১০১টি পাখি। আজ সোমবার ভোরে পরিবেশ কর্মী সাইফুল ইসলাম ও হাসান ইমামের নেতৃত্বে বিয়াস ও ঠেঙ্গাপাকুরিয়া বিলে অভিযান চালান চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সদস্যরা। এ সময় তারা প্রায় ৩ কিলোমিটার কাঁদা পানি মাড়িয়ে ধানখেত থেকে পাখিসহ তিন জন শিকারিকে আটক করেন। এরপর তাদের বিয়াস বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করেন তারা। 

এলাকা সূত্রে জানা যায়, সোমবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চলনবিলের বিয়াস ও ঠেঙ্গাপাকুরিয়া থেকে শতাধিক পাখি সহ তিন জনকে আটক করা হয়। ধ্বংস করা হয় পাঁচটি কিল্লা ঘর। আটককৃতরা হল পার্শ্ববর্তী তাড়াশ উপজেলার পলাশী গ্রামের শাহাদৎ হোসেন (৪০), মাহতাব প্রামাণিক (৪৫) এবং দিঘরিয়া গ্রামের নাজমুল ইসলাম (৩৫)। পরে সিংড়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রকিবুল হাসান তিন শিকারিকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে প্রত্যেককে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। 

সিংড়ার চলনবিলের পাখি শিকারের সময় দুই পাখি শিকারিকে আটক করেন পরিবেশকর্মীরা। ছবি: আজকের পত্রিকা উদ্ধারকৃত পাখিগুলো সকাল সাড়ে ১০টায় চলনবিল গেট এলাকার একটি পাখি কলোনিতে অবমুক্ত করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সহসভাপতি হাসান ইমাম, সাংবাদিক ও পরিবেশ কর্মী জুলহাস কায়েম, খান মো. শারফুল ইসলাম খোকন, জুবায়ের হক, আবু বকর সিদ্দিক, আবু কাহার প্রমুখ।

এ বিষয়ে চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বলেন, বর্ষার শেষ ভাগে চলনবিলে মাছের সঙ্গে পাখির আনাগোনা বেড়ে গেছে। আর সেই সঙ্গে কিছু লোভী পাখি শিকারি, বিলের ধানখেতে কলা-খেজুরপাতা দিয়ে বিশেষ ভাবে তৈরি কিল্লা ঘরে শত শত পাখি শিকারে মেতে উঠেছেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চলনবিলের বিয়াস ও ঠেঙ্গাপাকুরিয়া থেকে শতাধিক পাখি সহ তিন জনকে আটক করা হয়। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    এক যুগের আইনি লড়াই শেষে স্বপদে ফিরলেন অধ্যক্ষ

    পেশার স্বীকৃতি চান মোবাইল ফোন মেরামতকারীরা

    নবরূপে এল আলতাফ শাহনেওয়াজের ‘আলাদিনের গ্রামে’

    গোপালগঞ্জে ৭টি দোকান পুড়ে ছাই, কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

    বৃদ্ধার লাশ দাফনের মুহূর্তে মৌমাছির হানা

    চট্টগ্রাম কমনওয়েলথ যুদ্ধসমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে ভারত

    সেরা ছন্দের মোস্তাফিজকে খেলা কঠিন

    ভালো অবস্থানে আছে সাকিব

    এক যুগের আইনি লড়াই শেষে স্বপদে ফিরলেন অধ্যক্ষ

    পেশার স্বীকৃতি চান মোবাইল ফোন মেরামতকারীরা

    চোখ থাকবে যাঁদের ওপর

    একসময়ের ‘বেকার’ গোলরক্ষকই বাঁচালেন চেলসিকে