বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

বিএনপির ধারাবাহিক বৈঠক

নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫৫

দ্বিতীয় দিনের সভায় আন্দোলনের যথাযথ পরিকল্পনার তাগিদ দিয়েছেন নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলার নেতারা। ছবি: আজকের পত্রিকা

ধারাবাহিক বৈঠকের প্রথম দফার মতো বিএনপির দ্বিতীয় দফার সভায়ও আন্দোলনের কথা উঠে এসেছে। ‍সব নেতাই বলছেন, বিএনপির ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য আন্দোলনের বিকল্প নেই। তবে বুধবার দ্বিতীয় দিনের সভায় আন্দোলনের যথাযথ পরিকল্পনার তাগিদ দিয়েছেন নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলার নেতারা। তাঁদের মতে, সঠিক পরিকল্পনা না হলে আবারও আগের অবস্থা হতে পারে।

বিএনপির দ্বিতীয় দফার ধারাবাহিক মতবিনিময় সভার দ্বিতীয় দিনে চট্টগ্রাম, সিলেট, রংপুর, ময়মনসিংহ ও কুমিল্লা বিভাগের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলার সভাপতিরা অংশ নেন। যুক্তরাজ্য থেকে ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হয়ে সভায় সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বক্তারা মতামত দিতে গিয়ে বলেছেন, তাঁরা আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত। দল থেকে যখনই আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে, তাঁরা মাঠে নামবেন। কিন্তু সেই আন্দোলনের আগে দলকে আরও অনেক প্রস্তুতি নিতে হবে। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে, দলের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনকে ঢেলে সাজাতে হবে। ত্যাগী ও যোগ্যদের দিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি গঠন করতে হবে। দলের কূটনৈতিক ব্যর্থতার কথা তুলে ধরে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শও আসে বৈঠকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সভায় উপস্থিত এক নেতা বলেন, নেতারা নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এ বিষয়ে সবার বক্তব্যই ছিল অভিন্ন। কোনো অবস্থায়ই আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়া যাবে না। এ জন্য কোনো রাজনৈতিক ফাঁদেও পড়া যাবে না।

দলের কর্মপন্থা নির্ধারণে গত মঙ্গলবার থেকে দ্বিতীয় দফার ধারাবাহিক সভা শুরু হয়। ওই দিন ঢাকা ও ফরিদপুর বিভাগের দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও এই দুই বিভাগের জেলা বিএনপির সভাপতিরা অংশ নেন। দ্বিতীয় দিনের সভায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সেলিমা রহমান প্রমুখ অংশ নেন।

প্রথম দফায় ১৪ থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের ধারাবাহিক বৈঠক হয়। তিন দিনের ধারাবাহিক বৈঠকে মোট ২৮৬ জন নেতা উপস্থিত ছিলেন, যাঁদের মধ্যে ১১৮ নেতা বক্তৃতা করেন। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ধর্মান্ধ রাজনীতির বলি হচ্ছে সংখ্যালঘুরা: জাফরউল্লাহ চৌধুরী

    আওয়ামী লীগ দেশের প্রভু হয়ে থাকতে চায়: মির্জা ফখরুল

    চরমোনাই পীরের দুর্গ ভাঙতে আ.লীগ-বিএনপি এককাট্টা

    নৌকার এমপি হয়ে লাভবান হয়েছেন: শাহজাহানকে জেলা আ. লীগ সভাপতি

    পেছনের কুশীলবদের খুঁজে বের করার দাবি ১৪ দলের

    মডার্না ও জনসনের বুস্টার ডোজের অনুমোদন দিল যুক্তরাষ্ট্র

    বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

    সিদ্ধিরগঞ্জে 'ভুয়া' চিকিৎসক আটক

    মাধবপুরে ভিমরুলের কামড়ে ১০ দিন পর মৃত্যু

    ধর্মান্ধ রাজনীতির বলি হচ্ছে সংখ্যালঘুরা: জাফরউল্লাহ চৌধুরী

    সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী