বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকা পুলিশ সদস্যের ওপর প্রতিপক্ষের হামলা

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪১

মাতৃত্বকালীন ছুটিতে এসে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত সুমাইয়া খাতুন (৩১)। ছবি: সংগৃহীত মাতৃত্বকালীন ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে এসে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়েছেন সুমাইয়া খাতুন (৩১) নামের এক নারী পুলিশ সদস্য। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহের সদর উপজেলার চর ভবানীপুরে এ ঘটনা ঘটে। সুমাইয়া খাতুন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে কন্ট্রোল রুমে কর্মরত। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার সিরতা ইউনিয়নের চর ভবানীপুরে ২৩ বছর ধরে জমিজমা নিয়ে আলী আকবর এবং আজিজুল হক পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। এ ঘটনায় একাধিক মামলাও চলমান। শনিবার বিকেলে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে মীমাংসার কথা থাকলেও আজিজুল হকের লোকজন রাস্তায় গাছ দিয়ে ব্যারিকেড সৃষ্টি করে। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে আজিজুল হকের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আলী আকবরের পরিবারের ওপর হামলা করে। এ সময় আলী আকবরের বোন সুমাইয়া খাতুন তাঁর শিশু বাচ্চাকে নিয়ে বারান্দায় বসে থাকার সময় তাঁর মাথায় রামদা দিয়ে কোপ দেন তাঁরা। এতে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় সুমাইয়ার বোনও আহত হন। 

কোতোয়ালী মডেল থানার উপপরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বলেন, জমি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ১৯৮৮ সাল থেকে দ্বন্দ্ব চলছে। আলী আকবরের দাদা আব্দুল মান্নানের ৭৪ শতাংশ জমি তাঁর ভাই আব্দুল জব্বারের কাছ থেকে আজিজুল হক বিআরএস মূল্যে কিনেন। এ নিয়ে আদালতে মামলা হলে আলী আকবরদের পক্ষে দুটি রায় আসে। মূলত এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই দ্বন্দ্ব চলছে। 

আহত পুলিশ সদস্য সুমাইয়া খাতুন বলেন, ‘আজ সালিস হওয়ার কথা থাকলেও আজিজুলরা যায়নি। পরে উল্টো তাঁরা আমাদের বাড়ির সামনের রাস্তা গাছ দিয়ে বন্ধ করে দেয়। রাস্তা বন্ধের কারণ জানতে চাইলেই পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমার মাথায় রামদা দিয়ে কোপ দিলে অজ্ঞান হয়ে পড়ি, জ্ঞান ফিরে দেখি হাসপাতালে ভর্তি।’ 

এ বিষয়ে আজিজুল হক বলেন, বিরোধের জমিটি ক্রয় সূত্রে মালিক তিনি। সেই জমি তাঁরা দাবি করে একটা ঝামেলা তৈরি করে চলছে দীর্ঘদিন ধরে। তাঁরা আমাদের ওপর চড়াও হলে আমরাও পাল্টা হামলা করি আত্মরক্ষার্থে। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম বাদশা বলেন, জমি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। অনেকবার সালিস করেও সমাধান হয়নি। আজও জমি বিরোধকে কেন্দ্র করেই মারামারির ঘটনা ঘটেছে। 
 
কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ বলেন, নারী পুলিশ সদস্য সুমাইয়া আক্তার ছুটিতে এসে হামলার শিকার হয়েছেন। তাঁর অবস্থাও গুরুতর। তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    সিদ্ধিরগঞ্জে 'ভুয়া' চিকিৎসক আটক

    মাধবপুরে ভিমরুলের কামড়ে ১০ দিন পর মৃত্যু

    গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানালেন সেই ইকবালের মা

    বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    সিদ্ধিরগঞ্জে 'ভুয়া' চিকিৎসক আটক

    মাধবপুরে ভিমরুলের কামড়ে ১০ দিন পর মৃত্যু

    ধর্মান্ধ রাজনীতির বলি হচ্ছে সংখ্যালঘুরা: জাফরউল্লাহ চৌধুরী

    সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

    গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানালেন সেই ইকবালের মা

    সুপার টুয়েলভসের টিকিট পেল শ্রীলঙ্কা