বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

শুরু হলো হুয়াওয়ের সিডস ফর দ্য ফিউচার বাংলাদেশ ২০২১

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩৭

সিডস ফর দ্য ফিউচার ২০২১' বাংলাদেশ অনলাইন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারাশুরু হলো হুয়াওয়ের ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার ২০২১’ বাংলাদেশ। আজ শুক্রবার এক অনলাইন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ প্রোগ্রামের উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এসটিইএম (বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশলবিদ্যা ও গণিত) এবং নন-এসটিইএম বিষয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য হুয়াওয়ের একটি ফ্ল্যাগশিপ সিএসআর প্রোগ্রাম ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’। ২০০৮ সালে থাইল্যান্ডে চালু হওয়ার পর থেকে ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ বিশ্বের প্রায় ১৩০টি দেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে চালু হওয়া এই প্রোগ্রামটি সারাবিশ্বে প্রায় ১০ বছর ধরে মেধা বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে। স্থানীয় শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ, জ্ঞান প্রদান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত সম্পর্কে আরও জানাশোনা ও আগ্রহ তৈরিতে কাজ করে।

‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ আইসিটি বিষয়ে মেধাবীদের ভবিষ্যৎ গড়ে তুলতে সাহায্য করছে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এ ধরনের উদ্যোগ কেবল আমাদের যুব সমাজের ভবিষ্যৎ উপযোগী তথ্য ও প্রযুক্তিগত দক্ষতা বিকাশেই নয়, পাশাপাশি এটি এমন একটি ইকোসিস্টেম গড়ে তুলছে যা ইন্ডাস্ট্রিতে এই খাতে দক্ষ ব্যক্তিদের কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে।

অনুষ্ঠানে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপের প্রেসিডেন্ট জর্জ লিন বলেন, আগামীতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিগত দক্ষতার ওপর বিশ্বের নির্ভরশীলতা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাবে। হুয়াওয়ের এই প্রোগ্রামটি বাংলাদেশের তরুণদের প্রয়োজনীয় দক্ষতা ও নেতৃত্বের গুণাবলী বিকাশের মাধ্যমে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’-এর স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহায়তা করছে। 

এই বছরের সিডস ফর দ্য ফিউচার প্রোগ্রামে দেশের বিভিন্ন বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করবে। তাদের অ্যাকাডেমিক রেজাল্ট, জ্ঞান, উদ্ভাবনী চিন্তার ওপর ভিত্তি করে বাংলাদেশ থেকে ১৮ জন বিজয়ী নির্বাচিত করা হবে। যারা সারা বিশ্বের অন্যান্য বিজয়ীদের সাথে পরবর্তী পর্যায়ে অংশগ্রহণ করবে। সারা বিশ্বের প্রায় নয় হাজার শিক্ষার্থী এবং পাঁচশো’র অধিক বিশ্ববিদ্যালয় এখন পর্যন্ত এই প্রোগ্রাম থেকে উপকৃত হয়েছে।

ভার্চ্যুয়াল এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. রফিকুল ইসলাম শেখ ও আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির উপাচার্য ড. মো. ফজলে ইলাহী। বিশেষ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. মো. রুবাইয়াত তানভীর হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    কেলেঙ্কারির মধ্যেও ফেসবকের মুনাফা ৯০০ কোটি ডলার মুনাফা  

    ভারতে ভুয়া তথ্যের বিস্তার রুখতে হিমশিম খাচ্ছে ফেসবুক

    আন্তর্জাতিক আইসিটি সম্মেলন শুরু ১১ নভেম্বর 

    ফ্রি ফায়ার গেম বন্ধের রিটে সিঙ্গাপুরি প্রতিষ্ঠানের পক্ষভুক্তির আবেদন খারিজ

    অস্ট্রেলিয়ায় শিশুদের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে লাগবে মা-বাবার অনুমতি

    ডানপন্থী রাজনীতির জন্য সহায়ক টুইটারের অ্যালগরিদম

    মহালছড়িতে ৪ ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হলেন যারা

    সাম্প্রদায়িকতায় নতজানু ‘আমাদের শুক্রবার’

    সব আসামিই জামিনে

    বিদ্যালয়ের সীমানা দেয়ালে রাস্তা বন্ধের শঙ্কা

    মাস্টার আপা

    আমি কলা খাব না হারুন ভাই

    চরমোনাইতে নৌকা প্রার্থীর সমন্বয়কারী বিএনপি নেতা