সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

সেকশন

 

বিসিএস লিখিত: ইংরেজি বিষয়ে ১০ পরামর্শ

আপডেট : ৩০ মে ২০২৪, ১০:৩৭
বিসিএসের তিনটি ধাপের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। লিখিত পরীক্ষায় ভালো করতে পারলে কাঙ্ক্ষিত ক্যাডার পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বিসিএস লিখিত ইংরেজি বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিয়েছেন ৪৩তম বিসিএসে কৃষি ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত মো. ইমাম হোসেন জ্যোতি

প্রতীকী ছবি বিসিএস লিখিত ইংরেজি প্রস্তুতিতে নির্দিষ্টভাবে পড়ার কিছু নেই। তবে বেসিক গ্রামার ও ফ্রি হ্যান্ড রাইটিংয়ে দক্ষ প্রার্থীরা নিঃসন্দেহে অনেক এগিয়ে থাকবেন। ইংরেজি প্রস্তুতির ব্যাপারে সবচেয়ে কার্যকর হচ্ছে ইংরেজি পত্রিকা পড়া। এর কোনো বিকল্প নেই। শুধু পড়লেই হবে না। পাশাপাশি কী ধরনের শব্দ ও ব্যবহার করা হচ্ছে, সেটি পত্রিকা পড়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে। এর মধ্য দিয়ে পত্রিকায় লেখা কোনো একটি বাক্যকে আপনার নিজের লেখার সঙ্গে তুলনা করে নিজের লেখার মান বাড়াতে পারবেন। 

গুরুত্বপূর্ণ ১০ পরামর্শ 
১.     প্রতিদিন সম্পাদকীয় অনুবাদ অনুশীলন করা। এ ক্ষেত্রে ডেইলি স্টারসহ অন্যান্য ইংরেজি পত্রিকা বেছে নিতে পারেন।
২.     Parts of speech, tense, parallelism, condition, voice, narration, right form of verb, sentence transformation–এসব বিষয়ে জানা থাকলে সহজেই স্বাভাবিক ও সুন্দর বাক্য গঠন করতে পারবেন। আর বেসিক গ্রামারে ধারণা কম থাকলে, বিষয়গুলো ভালোভাবে আয়ত্ত করুন।
৩.     সংশয় থাকলে চ্যাট জিপিটির মাধ্যমে নিজের গ্রামার দক্ষতা যাচাই করতে পারেন।
৪.     প্রশ্নের উত্তরের জন্য প্যাসেজ থেকে হুবহু বাক্য কপি করে লিখবেন না। এতে আপনার সৃজনশীলতার প্রতি পরীক্ষকের সন্দেহ তৈরি হবে।
৫.     বাক্য রচনার ক্ষেত্রে প্রথমে গ্রামাটিকাল ভুল যেন না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন। পাশাপাশি ভোকাবুলারি ব্যবহারের দিকে খেয়াল রাখতে হবে।
৬.     লিখিত পরীক্ষার ক্ষেত্রে ভোকাবুলারি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এতে ভালো করতে নিয়মিত পত্রিকা পড়ুন।
৭.     ইংরেজিতে বেশি নম্বর পেতে অনুবাদ খুব সহায়ক। তাই ভাবানুবাদ করবেন। এ জন্য প্রতিদিন বাংলা থেকে ইংরেজি এবং ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার অনুশীলন করবেন। প্রয়োজনে শিক্ষক হিসেবে চ্যাট জিপিটির সাহায্য নেবেন।
৮.     লিখিত পরীক্ষায় বানান ভুল হওয়ার বিষয়টি খুবই দৃষ্টিকটু। তাই ইংরেজিসহ সব বিষয়েই বানান সম্পর্কে সচেতন হন।
৯.     রচনা ৫০ নম্বরের। এই অংশে গ্রামার ব্যবহার, ভোকাবুলারি ভান্ডার, সৃজনশীলতা, ধৈর্যসহ সবকিছুরই প্রয়োগ করতে হবে। রচনার উপস্থাপনা যত বেশি সুন্দর হবে, তত বেশি নম্বর আপনার ক্যাডার হওয়ার প্রতিযোগিতায় যুক্ত হবে। তাই বেশি বেশি ফ্রি হ্যান্ড রাইটিং চর্চা করুন।
১০.    সময়ের প্রতি পরিপূর্ণ খেয়াল রাখবেন। অনুবাদ প্রস্তুত করতে অনেক সময় প্রয়োজন পড়বে। এ ছাড়া রচনাতে পর্যাপ্ত সময় ব্যয় না করলে রচনার মানও কমে যেতে পারে। তাই ইংরেজিতে সময় বণ্টন করে পরীক্ষা দেওয়া প্রার্থীরা খুব সহজে ইংরেজি পরীক্ষা শেষ করতে পারে। এ জন্য প্রয়োজন মডেল টেস্ট দিয়ে নিজের প্রস্তুতি ঝালাই করে নেওয়া, যার মধ্য দিয়ে সময় ব্যবস্থাপনায় ভারসাম্য তৈরি হবে। 

অনুলিখন: আনিসুল ইসলাম নাঈম

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    জাতীয় বাতজ্বর ও হৃদ্‌রোগ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে চাকরি

    বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি

    ৯ পদে চাকরি দেবে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ

    ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী পদে চাকরি

    ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনে চাকরি

    বিআইএফপিসিএলে চাকরির সুযোগ 

    ছাগলের চামড়ার ‘নামমাত্র’ মূল্য, পড়ে আছে বাগানে

    রায়বেরেলি রেখে ওয়েনাড ছাড়ছেন রাহুল, প্রিয়াঙ্কাকে সংসদে আনার তোড়জোড়

    জুরাইনে কোরবানির গরুর মাংস বিক্রির হাট

    জাপান সফরের যাত্রাপথে প্লেন বিড়ম্বনায় নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

    সখীপুরে নিখোঁজের ১ দিন পর গৃহবধূর লাশ মিলল পুকুরে

    কারস্টেনকে কেন পাকিস্তানের চাকরি ছাড়তে বলছেন হরভজন