বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

কেন হিসাব তলব, সে প্রশ্ন তথ্যমন্ত্রীর

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৭

হাছান মাহমুদ সাংবাদিকের ব্যাংক হিসাব চাওয়ার কারণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদও। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘এটি কেন হলো সেটি আমার কাছেও একটা বড় প্রশ্ন। সরকার অবশ্যই যে কারও হিসাব তলব করতে পারে। কিন্তু কেন সাংবাদিক নেতাদের হিসাব তলব করা হলো, তা জানার চেষ্টা করছি।’

এ সময় তথ্য মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যমের যে অবাধ স্বাধীনতা আছে অন্য কোন দেশে এমন নেই। সমাজ, রাষ্ট্র সংস্কারের জন্য অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রয়োজন আছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে এই সব রিপোর্টে মানুষের ব্যক্তিগত অধিকার লঙ্ঘিত হয়। তবে আমাদের দেশে গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে কাজ করছে বিধায় যেকেউ যেকোনো কিছু করে পার পেতে পারে না। আইনের ফাঁক দিয়ে হয়তো অনেক সময় পার পেয়ে যায়। কিন্তু গণমাধ্যমে খবর আসার পর জনগণের কাছে পার পায় না।

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই মিডিয়ায় যে বিশৃঙ্খলা ছিল তা দুর করতে কাজ করেছেন জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘টেলিভিশন চ্যানেল গুলোর সিরিয়াল নিয়ে আগে অর্থ লেনদেন হতো। আইপি টিভির নামে অনেকগুলো অনুমোদনহীন চ্যানেল চলছে। ১২০ টি মতো পত্রিকা বন্ধ করা হয়েছে। অনেক সংবাদপত্রের সম্পাদক, এডিটর, রিপোর্টার একজনই। তাকে যদি জিজ্ঞেস করেন, রিপোর্টারের কাজ কি? তিনি বলতে পারবে না। এগুলো নিয়ে কাজ চলছে।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের কোন সিদ্ধান্ত হলে আমার জবাবদিহি করতে হয়। আমার যেমন সরকারের প্রতিনিধিত্ব করতে হয় তেমনি সরকারেরও প্রতিনিধিত্ব করতে হয়। ডিজিটাল আইন ভারতে আছে, পাকিস্তানেও আছে। এর চেয়ে কঠিন ধারা সিঙ্গাপুরের আইনে আছে। ডিজিটাল নিরাপত্তার জন্য এমন আইন ফ্রান্স, জার্মানি সহ অনেক দেশে আছে। ডিজিটাল মাধ্যমে কারও চরিত্র হননের চেষ্টা হলে কোন আইনে বিচার চাইবেন? কিন্তু এই আইন কোনোভাবে সাংবাদিকদের দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা না হয় সেদিকে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া আছে।’

বার্ষিক সাধারণ সভায় সাংবাদিক নেতারা জানান, সাংবাদিক নেতাদের টার্গেট করে তাদের সম্পত্তির হিসাব চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সাংবাদিকদের মাথার ওপর খড়্গ হয়ে ঝুলছে। করোনার সময় দেওয়া সহযোগিতার দশ কোটি টাকার অর্ধেক টাকা কল্যাণ তহবিলে রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। এই সব সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে সাংবাদিকদের হেয় করা হচ্ছে।

সাংবাদিক নেতারা এ সময় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকদের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আলাদা একটি ধারা সংযোজন, আপত্কালীন চাকরির ব্যবস্থা, ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়ন, বেকার ও প্রবীণ ভাতা চালু করাসহ নানা দাবি জানান।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু প্রমুখ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    কবুতরের সঙ্গে দিন কাটছে ইব্রাহীমের

    সেতু পুনর্নির্মাণের দাবি

    পোকার আক্রমণে বিবর্ণ ধান

    ধনু নদীর রুদ্র রূপ

    শেরপুরে ১৭ জামায়াত নেতা-কর্মী আটক

    ইসলামপুরে টিকা নিতে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত

    সুপার টুয়েলভসের টিকিট পেল শ্রীলঙ্কা 

    বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    গোমস্তাপুরে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের হামলায় দুধ বিক্রেতা নিহত

    আশুগঞ্জে সৎ মায়ের বিরুদ্ধে শিশু হত্যার অভিযোগ

    ওবায়দুল কাদের মিথ্যুক: কাদের মির্জা

    আওয়ামী লীগ দেশের প্রভু হয়ে থাকতে চায়: মির্জা ফখরুল