শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

সেকশন

 

এসএমসির ইলেকট্রোলাইট ড্রিংক প্রত্যাহার করে দুই দিনের মধ্যে জানানোর নির্দেশ

আপডেট : ২২ মে ২০২৪, ১৯:৫৩

এসএমসি প্লাস ইলেকট্রোলাইট ড্রিংক বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ। ছবি: সংগৃহীত ইলেকট্রোলাইট ড্রিংক এসএমসি প্লাস তাৎক্ষণিক বাজার থেকে প্রত্যাহার করে দুই কার্যদিবসের মধ্যে লিখিতভাবে জানানোর নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ।

এসএমসি প্লাস পানীয়টির উৎপাদক প্রতিষ্ঠান দ্য একমি এগ্রিভেট অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড, আর এটি বাজারজাত করে মেসার্স এসএমসি এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড।

আজ বুধবার বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা পরিচালক (প্রয়োগ ও প্রতিপালন) মো. আখতার মামুন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত–২, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নিরাপদ খাদ্য প্রচলিত আইন ও আইনের অধীন নির্ধারিত মানদণ্ড প্রতিপালন হয়নি। আদালতে দোষ স্বীকার করায় প্রতিষ্ঠান দুটিকে ১৬ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। আসামি কর্তৃক স্বীকৃত ত্রুটিপূর্ণ খাদ্যপণ্যটি নিরাপদ খাদ্য আইনের ৪৩ (২) ধারা নিম্নমানের, ঝুঁকিপূর্ণ বা বিষাক্ত পদার্থযুক্ত খাদ্যদ্রব্য প্রত্যাহার প্রবিধানমালা-২০২১ মোতাবেক খাদ্যপণ্যটি বাজার থেকে সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যাহার কার্যক্রম শুরুর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়।

২০১৩ সালে নিরাপদ খাদ্য আইনের ৪৩ (২) ধারায় বলা আছে, কোনো ব্যক্তি কর্তৃক যেসব খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ উৎপাদন, প্রক্রিয়াকরণ, সরবরাহ বা বিক্রি করা হয়েছে, সেগুলোর ক্ষেত্রে এই আইন বা অন্য কোনো আইনের অধীন নির্ধারিত মানদণ্ড প্রতিপালিত হয়নি অথবা তাতে কোনো দূষক, তেজস্ক্রিয়তাযুক্ত, বিকিরণযুক্ত বা অন্য কোনো ঝুঁকিপূর্ণ বা বিষাক্ত পদার্থের উপস্থিতি বিদ্যমান, তাহলে কর্তৃপক্ষ, সন্দেহজনক প্রশ্নবিদ্ধ খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ বাজার বা ভোক্তার কাছ থেকে প্রত্যাহারের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে নির্দেশ দেবে এবং ওই ব্যক্তি নির্দেশনা অনুযায়ী উপ–ধারা (১)–এর বিধান অনুসরণে সংশ্লিষ্ট খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ প্রত্যাহারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

এর আগে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পরিদর্শক কামরুল হাসান অনুমোদনবিহীন ইলেকট্রোলাইট ড্রিংক তৈরি ও বাজারজাত এবং মিথ্যা বিজ্ঞাপন প্রচার করার অপরাধে পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতে নিরাপদ খাদ্য আইনের ৩২ ধারা (খ) উপধারা, ৩৯, ৪১ ও ৪২ ধারায় মামলা করেন।

গত মঙ্গলবার (১৪ মে) বাজারে বিক্রি হওয়া অনুমোদনহীন পাঁচটি কোম্পানির ইলেকট্রোলাইট ড্রিংকসের মালিকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতের বিচারক আলাউল আকবরের আদালত।

সেই সঙ্গে পাঁচটি কোম্পানির মালিককে আগামী ৫, ৬ ও ৯ জুন আদালতে উপস্থিত হয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। এসএমসি প্লাস, প্রাণের অ্যাকটিভ, ব্রুভানা, আকিজের রিচার্জ এবং টারবো—এগুলো ওষুধ নাকি এনার্জি ড্রিংকস সে বিষয়ে তাঁরা ব্যাখ্যা দেবেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    ঘরে বসেই কোরবানির পশু কেনা যাবে নগদে

    ঈদের আগমুহূর্তে জমজমাট ওয়ালটন ফ্রিজের বিক্রি

    বগুড়ার উপশাখায় চুরির ঘটনায় আইএফআইসি ব্যাংকের বক্তব্য

    বিশ্বায়নের যুগে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই: প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী 

    বিকাশে সম্মানী পাবেন ৪র্থ অর্থনৈতিক শুমারির কর্মীরা

    বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্টে ব্যবসায়িক পরিবেশের উন্নয়ন প্রয়োজন: বিজনেস সংলাপে বক্তারা 

    পশুর হাটে বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা গেল দুটি গরু, শিশুসহ আহত খামারি

    ঢাকা–চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২১ কিলোমিটারজুড়ে যানজট 

    জাপানি ব্যান্ডের মিউজিক ভিডিও নিয়ে আপত্তি, কোক স্টুডিও থেকে প্রত্যাহার

    ঘরে বসেই কোরবানির পশু কেনা যাবে নগদে

    ঈদের আগমুহূর্তে জমজমাট ওয়ালটন ফ্রিজের বিক্রি

    বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানের বিদায়, সুপার এইটে যুক্তরাষ্ট্র