রোববার, ১৬ জুন ২০২৪

সেকশন

 

ব্যবসায়ীর টাকা আত্মসাৎ: দুদকের মামলায় পুলিশের এএসআই আশরাফুল কারাগারে

আপডেট : ১৬ মে ২০২৪, ১৭:২২

প্রতীকী ছবি চট্টগ্রামের এক ব্যবসায়ীকে ঢাকায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নামার পর তুলে নিয়ে ব্যাংক চেকে স্বাক্ষর নেওয়ার পর টাকা আত্মসাতের ঘটনায় দায়ের করা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় পুলিশের এক এএসআইকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও সিনিয়র বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আস্ সামছ জগলুল হোসেন কারাগারে পাঠানোর এই নির্দেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো পুলিশের এএসআই হলেন মো. আশরাফুল আলম। তিনি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিমে এএসআই হিসেবে কর্মরত ছিলেন। কিন্তু এই ঘটনার পর তাকে দিয়াবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ি উত্তরায় বদলি করা হয়েছে।

সকালে আসামি আশরাফুল তার আইনজীবী সৈয়দ মিজানুর রহমানের মাধ্যমে আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। দুপুরে শুনানি শেষে আদালত তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

দুদকের বিশেষ পিপি রেজাউল করিম আসামিকে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ‘ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে উনত্রিশ লাখ টাকা চাঁদাবাজি ডিবি পুলিশের’- শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয় একটি দৈনিক পত্রিকায়। বিষয়টি দুদকের নজরে এলে দুদক অনুসন্ধান শুরু করে। পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামের ওই ব্যবসায়ী কে এম আক্কাছ কোম্পানির কাজে একটি বিমানে ঢাকায় এসে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন। 

সেখান থেকে ডিবি পুলিশের একটি দল তাকে তুলে নিয়ে যায় এবং অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ২০ লাখ ৪০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। তারা আরো ৮০ লাখ টাকা দাবি করে। পরে বিকাশ ও এস এ পরিবহনের মাধ্যমে আরও টাকা নেয়।

দুদক বিষয়টি তদন্ত করে জানতে পারে, টাকা কেড়ে নেওয়া এবং বিকাশ ও এস এ পরিবহনের মাধ্যমে টাকা নেওয়ার বিষয়টির কোনো প্রমাণ নেই। তবে ওই ব্যবসায়ীর স্বাক্ষরিত দুইটি ব্যাংক চেক এর মাধ্যমে এ এস আই আশরাফুল আলম দুটি ব্যাংক থেকে (এবি ব্যাংক ও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক) পাঁচ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। এএসআই আশরাফুল এই টাকা উত্তলনের কথা স্বীকার করেন এবং তিনি জানান কে এম আক্কাছ ডিবিতে কাজ করতেন এবং পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে তার দুইজন আত্মীয়ের চাকর দেওয়ার বিষয় টাকা নিয়েছিলেন। ওই টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ফেরত দেওয়ার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। 

এই পুলিশের এসআই একজনের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তা আত্মসাৎ করার কারণে দুদক পরে মামলা করেন। মামলায় বলা হয়, এএসআই আশরাফুল সরকারি চাকরিজীবী হিসেবে তার সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহার এর মাধ্যমে টাকা আত্মসাৎ করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

২০২১ সালের ২১ সেপ্টেম্বর দুদকের সমন্বিত কার্যালয়-১ এ এই মামলাটি দায়ের করেন উপপরিচালক (মানি লন্ডারিং) জালাল উদ্দিন আহম্মদ। ঘটনাটি তদন্ত করে দুদকের উপপরিচালক মো. আহসানুল কবীর পলাশ ২০২৩ সালের ৩০ জুলাই এসআই আশরাফুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সাভারে উত্তরবঙ্গমুখী সড়কে বেড়েছে শেষ মুহূর্তের চাপ

    কমলাপুর থেকে ছাদ ভর্তি হয়ে ছাড়ছে ট্রেন

    চট্টগ্রাম থেকে কুরিয়ারে ঢাকায় আনা ৭ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ

    পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী কেরানীগঞ্জ গিয়ে নিখোঁজ

    রাজধানীতে ঈদের দিন হতে পারে বৃষ্টি

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সুদের টাকা দিতে না পারায় কৃষকের ষাঁড় নিয়ে গেল দাদন ব্যবসায়ীরা

    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা দশে রিশাদ

    ‘তুফান’ সিনেমার ট্রেলার, শাকিব-চঞ্চলের সেয়ানে সেয়ানে লড়াইয়ের পূর্বাভাস