বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

সেকশন

 

আবদুল আহাদ

আপডেট : ১৫ মে ২০২৪, ০৭:৫৯

আবদুল আহাদ আবদুল আহাদ একাধারে ছিলেন সুরকার, প্রশিক্ষক, পরিচালক, সংগঠক ও গায়ক। বাঙালির ঘরে ঘরে সংগীতের প্রবেশ ঘটানোর ক্ষেত্রে যাঁরা যুগান্তকারী ভূমিকা রেখেছিলেন, সুরস্রষ্টা আবদুল আহাদ তাঁদের মধ্যে অন্যতম। এ দেশে রবীন্দ্রনাথের গান প্রচার ও চর্চায় তিনিই প্রথম উদ্যোগী হন। শুধু তা-ই নয়, তিনি আধুনিক ও দেশাত্মবোধক সংগীতের প্রধান পথিকৃৎ। সিনেমার সংগীত পরিচালক হিসেবেও তিনি বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন।

আবদুল আহাদের জন্ম ১৯১৮ সালের ১৯ জানুয়ারি রাজশাহী শহরে। তবে তাঁর পৈতৃক নিবাস ছিল ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ফুকুরহাটি গ্রামে।

শৈশবেই সংগীতের প্রতি অনুরক্ত ছিলেন আহাদ। রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পাস করার পর কলকাতা সিটি কলেজে ভর্তি হন। এ সময়ই তিনি উচ্চাঙ্গসংগীতের তালিম নেন। সে সময় তিনি কলকাতা বেতারে সংগীত পরিবেশনের জন্য মনোনীত হন এবং বাংলা ঠুংরি পরিবেশন করেন। ১৯৩৬ সালে ‘সারা বাংলা সংগীত প্রতিযোগিতায়’ ঠুংরি ও গজলে প্রথম স্থান অধিকার করেন। ১৯৩৮ সালে সরকারি বৃত্তি নিয়ে তিনি শান্তিনিকেতনে ভর্তি হন। তখনকার দিনে তাঁর এ ভূমিকা ছিল অত্যন্ত সাহসদীপ্ত। কারণ তখন এ দেশের মুসলিম সমাজে সংগীতের তেমন প্রচলন ছিল না। শান্তিনিকেতনে ছাত্রদের একটি অনুষ্ঠানে ‘দিনের পর দিন যে গেল’ গানটি গেয়ে তিনি কবিগুরুর আশীর্বাদ লাভ করেন।

১৯৪১ সালে তিনি কলকাতার এইচএমভি (হিজ মাস্টার্স ভয়েস) কোম্পানিতে সংগীত প্রশিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। দেশভাগের পর তিনি ঢাকায় চলে আসেন এবং পরের বছর ঢাকা বেতারকেন্দ্রে সুরকার ও প্রযোজক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি প্রায় দুই যুগ বেতারের ‘সংগীতশিক্ষার আসর’ পরিচালনা করেন এবং এর মাধ্যমে বেতারের সংগীতজগৎকে সংগঠিত ও সমৃদ্ধ করেন।

আবদুল আহাদ সুরকার হিসেবেও বিশেষ প্রসিদ্ধি অর্জন করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনের সংগীতানুষ্ঠানে সুরকার হিসেবে তিনি নিয়মিত অংশগ্রহণ করতেন। উর্দু গজল ও গীত এবং বাংলাসহ এক হাজারের বেশি গানে তিনি সুরারোপ করেন।

অকৃতদার এ মানুষটি ১৯৯৪ সালের ১৫ মে মৃত্যুবরণ করেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    কামাল লোহানী

    হেমন্ত মুখোপাধ্যায়

    হাসান হাফিজুর রহমান

    মেহেদী হাসান

    আনা ফ্রাঙ্ক

    বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত

    বন্ধুর গোপনাঙ্গ কেটে নিজেরও কাটলেন তরুণ, হাসপাতালে মৃত্যু

    এবারও চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা, নাকি অন্য কেউ

    বিদেশি ফলে ভরছে দেশের মাঠ, ৫টির চাষ সবচেয়ে বেশি

    বাংলাদেশের সুপার এইটের ম্যাচ দেখবেন কোথায় 

    রোহিঙ্গাদের কারণে এনআইডি পেতে ৩২ উপজেলার মানুষের ভোগান্তি

    রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২