মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

সেকশন

 

সংকট সমাধানের উপায় খুঁজতে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন সংসদীয় কমিটির

আপডেট : ১২ মে ২০২৪, ২১:২১

 ফাইল ছবি রোহিঙ্গা সমস্যার উত্তরণের উপায় খুঁজতে কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবির পরিদর্শন করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। আজ রোববার সকালে কমিটির সভাপতি এ কে আবদুল মোমেনের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধিদল পরিদর্শন করেন। বিকেলে কক্সবাজারের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের সেমিনার কক্ষে স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাঁরা ৪ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বিশ্ব খাদ্য সংস্থা (ডব্লিউএফপি) এর একটি ই-ভাউচার আউটলেট, ক্যাম্প-৫ এর একটি লার্নিং সেন্টার পরিদর্শন শেষে রোহিঙ্গা কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। পরে প্রতিনিধিদল ঘুমধুম ট্রানজিট ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। সেখানে এ কে আবদুল মোমেন বলেন, সরেজমিনে পরিস্থিতি দেখার জন্যই এ সফর। 

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দিন দিন জটিল হচ্ছে। এ থেকে উত্তরণের উপায় খুঁজে বের করতে এ পরিদর্শন। রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপকালে তারা স্বদেশে ফেরত যেতে চায় বলে জানিয়েছেন তিনি। 

প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন—কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ, সাইমুম সরওয়ার কমল, নাহিম রাজ্জাক, হাবিবুর রহমান ও জারা জাবীন মাহবুব। এ সময় শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. মিজানুর রহমান ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

বিকেলে কক্সবাজারের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের সেমিনার কক্ষে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী হাছান মাহমুদও অংশগ্রহণ করেন। 

সংসদ সচিবালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রোহিঙ্গাদের সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ এবং প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া জোরদারকরণে করণীয় সম্পর্কে বৈঠকে আলোচনা করা হয়। বৈঠকে ইউএনএইচসিআর, আরআরআরসি, স্থানীয় প্রশাসন, এনজিও ও রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয় এবং শান্তিপূর্ণ প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন নিয়ে সার্বিকভাবে পর্যালোচনা করা হয়। 

বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি আবদুল মোমেন আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘বৈঠকে আমাদের বলা হয়েছে ইদানীং রোহিঙ্গারা ক্যাম্পের বাইরে গিয়ে স্থানীয় জনগণের চাকরি নিয়ে নিচ্ছে। সেখানে আমরা সুপারিশ করেছি চাকরিরত রোহিঙ্গাদের আইনের আওতায় আনার পাশাপাশি যেসব মালিক তাদের চাকরি দিচ্ছে, তাদেরও কঠোর শাস্তি দেবে, যেটা বিদেশে হয়।’ 

আবদুল মোমেন বলেন, ‘প্রায় ১১ হাজার প্রবাসী বিভিন্ন দেশে জেলে আছেন। এর মধ্যে অর্ধেকই সৌদি আরবে, ভারতে প্রায় দেড় হাজার। তাই আমরা মন্ত্রণালয়কে বলেছি কাউন্সিলরদের জেলে গিয়ে আমাদের দেশের কতজন নাগরিক বন্দী আছে সেই তথ্য যাচাই করবেন। সেখানে প্রচেষ্টা চালাবেন তাদের জেল থেকে বের করার জন্য।’ 

সন্ত্রাসী ও ফ্যানাটিক গ্রুপগুলো রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে তাদের সদস্য রিক্রুট করছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘এসবের কারণে শুধু আমাদের দেশে সমস্যা তৈরি হচ্ছে তা নয়, আশপাশের দেশেও সন্ত্রাসী নেটওয়ার্ক বিস্তারজনিত সমস্যা তৈরি হচ্ছে।’ 

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে এবং অন্যান্য দেশের সঙ্গেও নিয়মিতভাবে আমরা আলাপ-আলোচনা করে যাচ্ছি, যাতে করে নিজেদের নাগরিকদের পূর্ণ অধিকারসহ ফেরত নিতে মিয়ানমারের ওপর কার্যত চাপ প্রয়োগ করা হয়।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    সেন্ট মার্টিনের কাছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্ট গার্ডের টহল 

    বাংলাদেশিদের জন্য ওমানের ভিসা: আবেদন নিয়ে যা বলল দূতাবাস

    দেশে রোহিঙ্গা ভোটারের সংখ্যা জানতে চান হাইকোর্ট

    নেদারল্যান্ডস ও ইতালিতে নতুন রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত

    অনুদান সংকট ও মুদ্রাস্ফীতিতে ভুগছে রোহিঙ্গারা, সহায়তার আহ্বান কারিতাসের

    জর্ডান ও ব্রুনেইয়ে নতুন রাষ্ট্রদূত

    ছাগলের চামড়ার ‘নামমাত্র’ মূল্য, পড়ে আছে বাগানে

    রায়বেরেলি রেখে ওয়েনাড ছাড়ছেন রাহুল, প্রিয়াঙ্কাকে সংসদে আনার তোড়জোড়

    জুরাইনে কোরবানির গরুর মাংস বিক্রির হাট

    জাপান সফরের যাত্রাপথে প্লেন বিড়ম্বনায় নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

    সখীপুরে নিখোঁজের ১ দিন পর গৃহবধূর লাশ মিলল পুকুরে

    কারস্টেনকে কেন পাকিস্তানের চাকরি ছাড়তে বলছেন হরভজন