রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

১৪ বছর পর ফেসবুকের মাধ্যমে মায়ের কাছে ফিরলেন মেয়ে

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৯

মা স্যালগ্যাডো ও মেয়ে জ্যাকুলিন। ছবি: ক্লারমন্ট পুলিশের ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়া ছোটবেলায় অপহরণের শিকার হওয়ার ১৪ বছর পর ফেসবুকে নিজের মাকে দেখেন জ্যাকুলিন হার্নান্দেজ (১৯)। এরপর মাকে মেসেজ পাঠিয়ে নিজেকে তাঁর কন্যা বলে দাবি করেন। এরপর মা এনজেলিকা ভেন্সেস স্যালগ্যাডো পুলিশের সহায়তায় তাঁর কন্যার পরিচয় নিশ্চিত করেন। দীর্ঘ ১৪ বছর পর ফেসবুকের মাধ্যমে মা ও মেয়ে একত্রিত হয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। গত শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে তাঁরা মিলিত হন।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্লারমন্ট পুলিশ বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায়, জ্যাকুলিন চলতি মাসের শুরুর দিকে তাঁর মাকে ফেসবুকে দেখে মেসেজ দেন। এ সময় তিনি মেক্সিকোতে আছেন বলে তাঁর মাকে জানান। এ ছাড়া গত ২ সেপ্টেম্বর একটি মেয়ে স্যালগ্যাডোকে ফেসবুকে মেসেজ দিয়ে নিজেকে তাঁর হারিয়ে যাওয়া মেয়ে বলে দাবি করেন। ১০ সেপ্টেম্বর তাঁকে টেক্সাস ও মেক্সিকোর সীমান্তে দেখা করার জন্যও অনুরোধ করেন। 
 
এই তথ্যের সূত্র ধরে, ফ্লোরিডা এবং টেক্সাসের তদন্ত কর্মকর্তারা জ্যাকুলিনকে তাঁর পরিচয় নিশ্চিতের জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করেন। দীর্ঘ এক ঘণ্টা তাঁর বিভিন্ন প্রমাণপত্র যাচাই বাছাই এর পর নিশ্চিত হন যে, জ্যাকুলিনই স্যালগ্যাডোর হারিয়ে যাওয়া মেয়ে। 

এই বিজ্ঞপ্তিটি ফেসবুকে প্রকাশ করা হলে নেটিজেনরা এই ঘটনাকে অবিশ্বাস্য বলে উল্লেখ করেন। এ ছাড়া মা ও মেয়েকে মিলিত হওয়ার জন্য সহযোগিতা করায় ক্লারমন্ট পুলিশ বিভাগকে ধন্যবাদ জানান। 

উল্লেখ্য, বিবিসির ২০০৭ সালের ২২ ডিসেম্বরের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্যালগ্যাডো অভিযোগ করেন তাঁর স্বামী পাবলো হার্নান্দেজ তাঁর ছয় বছরের মেয়ে জ্যাকুলিনকে অপহরণ করে নিয়ে গেছেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     কাশ্মীরে মুসলিম মন জয়ের চেষ্টা ভারত সরকারের

    জাপানি রাজকুমারীর শেষ জন্মদিন

    আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান চালাতে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহার করবে যুক্তরাষ্ট্র

    কাবুলকে অন্ধকারে ডোবাল আইএস

    মার্কিন ড্রোন হামলায় সিরিয়ায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা নিহত

    নতুন প্রসাধনী ব্যবহারের আগে

    একসঙ্গে তিন নবজাতকের প্রসব

    রামেকে করোনা উপসর্গে দুজনের মৃত্যু

    নোট, গাইড, কোচিং থাকছে অন্য নামে

    ঐক্যের অভাবই কি বড় ঝুঁকি?

    অন্তর্ভুক্তিমূলক সহযোগিতাধর্মী জাতিসংঘ গড়ে তুলতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর