সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

সেকশন

 

ডলার সংকটের জন্য বিদেশিরা দায়ী: জ্বালানি উপদেষ্টা

আপডেট : ০৯ মে ২০২৪, ১৯:৩৮

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত বাংলাদেশের ডলার সংকটের জন্য বিদেশিরা দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে পেট্রোসেন্টারে বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক জরিপ অধিদপ্তর (জিএসবি) আয়োজিত সেমিনারে এ মন্তব্য করেন তিনি। 

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য জিওলজি’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জিএসবির মহাপরিচালক তাহমিনা ইয়াসমিন।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী বলেন, ‘পশ্চিমারা যুদ্ধবিগ্রহ শুরু করে এখন এসে বুদ্ধি দিচ্ছেন কীভাবে অর্থনীতি চালাতে হবে। ওয়াশিংটন থেকে এসে বুদ্ধি দেয়, অনেক সময় গ্রহণ করতে হয়। সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ, তাঁরা যেন প্রকৃত কারণ তুলে ধরেন।’ 

সেমিনারে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ‘আজকে বিশ্বে যারা উন্নত হয়েছে, সবাই খনিজ সম্পদের ওপর নির্ভর করে। আমাদের যতটুকু সম্পদ রয়েছে, তার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। বিজ্ঞানীরা অনেকে নীরবে কাজ করেন, কিন্তু সেগুলো পরে আর আমাদের পর্যন্ত সেভাবে আসে না। আপনারা রিপোর্ট করে নিয়ে বসে থাকেন। কিছু রিপোর্ট প্রকাশ করে দেন।’ 

তিনি বলেন, ‘অনেক সময় গেছে এখন আর বসে থাকার সুযোগ নেই। দেশের খনিজ সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। জিএসবিকে আরও আধুনিক ও শক্তিশালী করতে হবে। এসব প্রস্তাবনা আপনাদের দিক থেকে আসা উচিত।’ 

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নুরুল আলম বলেন, ‘তাত্ত্বিক বিষয় আলোচনা করলে হবে না। তাত্ত্বিক দিকের পাশাপাশি প্রায়োগিক বিষয় যুক্ত থাকতে হবে। প্রকল্পটি কীভাবে বাণিজ্যিকভাবে সফল হবে, তার দিকনির্দেশনা থাকতে হবে। তাহলেই আর্থিকভাবে সফল প্রকল্প গ্রহণ করা সম্ভব হবে।’ 

সেমিনারে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান জনেন্দ্র নাথ সরকার বলেন, ‘জিএসবিকে আরও শক্তিশালী করা দরকার, একই সঙ্গে বাপেক্সসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সমন্বয় থাকা দরকার। বাপেক্স যেখানে কূপ খনন করছে, সেখান থেকে নমুনা নিয়ে তারা কাজ করতে পারে। এতে করে আলাদা করে কূপ খননের বাড়তি টাকার প্রয়োজন হবে না। সময়ও সাশ্রয় হবে।’

জিএসবির পরিচালক আব্দুল আজিজ পাটওয়ারী বলেন, ‘জিএসবি আবিষ্কৃত খনিজ সম্পদের মোট আর্থিক মূল্য ২৪৮ ট্রিলিয়ন টাকার বেশি। যমুনা নদীর বালিতে উন্নতমানের খনিজ পদার্থ আবিষ্কার করা হয়েছে। এসব খনিজ উপাদানের বিষয়ে দেশি-বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান ব্যাপক আগ্রহ দেখাচ্ছে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    সেন্ট মার্টিনের কাছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্ট গার্ডের টহল 

    নিষিদ্ধ হেলোসিন পাওয়া গেলে কঠোর আইনি ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

    ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে টিকিট বিক্রি করেন কালোবাজারিরা

    ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১ হাজারের বেশি স্কুল-কলেজ

    গোয়েন্দা তথ্য না থাকলে ঈদযাত্রায় যানবাহনে তল্লাশি নয় 

    ইউনিফর্মে পুলিশ টিকটক করলে কঠোর ব্যবস্থা

    খাবারে ব্লেড পাওয়া যাত্রীকে অফার দিয়ে শান্ত করতে চাইল এয়ার ইন্ডিয়া

    পাহাড়ি ঢল ও ভারী বৃষ্টিতে সিলেটের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

    মসজিদের শয়নকক্ষে ঢুকে ইমামকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

    এবার লেখিকার ভূমিকায় আলিয়া ভাট

    বাংলাদেশ এত বেশি ম্যাচ আর কোনো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে জেতেনি

    ঈদুল আজহা কোন দেশে কেমন