রোববার, ১৬ জুন ২০২৪

সেকশন

 

নাটোরে ২৯ গভীর নলকূপের মধ্যে ২৫টিই অকেজো

আপডেট : ০৭ মে ২০২৪, ১১:২১

নাটোরের লালপুরে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের উদ্যোগে স্থাপন করা গভীর নলকূপের সিংহভাগের যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে গেছে। এতে সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন চাষিরা। উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের উধনপাড়া মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে প্রকল্পের একটি ঘর। ছবি: আজকের পত্রিকা নাটোরের লালপুরে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) উদ্যোগে স্থাপন করা হয় ২৯টি গভীর নলকূপ। সেগুলোর মধ্যে ২৫টিই দীর্ঘদিন ধরে অকেজো পড়ে আছে। এতে ফসলে সেচ দিতে কৃষকের ভোগান্তি ও খরচ বেড়েছে। শুষ্ক মৌসুমে অগভীর নলকূপে ঠিকমতো পানি না পাওয়ায় দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।

বিএডিসির ক্ষুদ্র সেচ জোন নাটোরের বড়াইগ্রাম অফিস থেকে জানা গেছে, বিএডিসির সমন্বিত সেচ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় লালপুরের বিভিন্ন এলাকায় সেচ-সংকট দূর করতে দুই কিউসেক ক্ষমতাসম্পন্ন ২৯টি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়। প্রতিটির বার্ষিক ভাড়া ছিল ২৩ হাজার ৫০০ টাকা। ১৯৭০ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে পাম্পের মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্ব, ভাড়া বকেয়াসহ বিভিন্ন কারণে ২৫টি পাম্প বন্ধ হয়ে যায়। এগুলোর মধ্যে ৫টি বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অধিগ্রহণ করেছে। বর্তমান মাত্র ৪টি চালু রয়েছে। ২০১৭ সালের জুন মাসে প্রকল্পটি বন্ধ হয়ে যায়।

উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের উধনপাড়ার শাফায়েত উল্লাহ বলেন, অসৎ কর্মকর্তাদের যোগসাজশে প্রকল্পের ড্রাইভার ও ম্যানেজার সেচের বেশি মূল্য নির্ধারণ করতেন। আদায় করা অতিরিক্ত অর্থ নিজেরাই ভাগ-বাঁটোয়ারা করে নিতেন। দেখা যেত গভীর নলকূপের চেয়ে ডিজেলচালিত শ্যালো ব্যবহারে লাভবান হতেন চাষিরা। তদারকি কমিটি, কর্মকর্তা, ড্রাইভার ও ম্যানেজারের কারণেই সরকারের এই প্রকল্প মুখ থুবড়ে পড়েছে।

গত শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের উধনপাড়া মাঠে পরিত্যক্ত ছোট একটি ঘর। ঘরের ভেতরে-বাইরে গজিয়েছে গাছ, ময়লার স্তূপ। সেচপাম্পগুলো অকেজো পড়ে থাকায় নষ্ট হয়ে গেছে যন্ত্রাংশ।

কৃষক জিয়াউর রহমান বলেন, কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে স্থাপন করা গভীর নলকূপগুলো কোনো কাজে আসছে না। কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় উদ্যোগও নেয়নি। এখন পানিসংকটে হাজার হাজার বিঘা জমি পতিত পড়ে আছে।

লালপুর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপসহকারী প্রকৌশলী রবিন আহমেদ বলেন, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পানির স্তর পরীক্ষা করে দেখা গেছে, গড়ে ৩৪ ফুট নিচে নেমে গেছে। কোথাও যেন সুপেয় পানির সংকট না থাকে, এ জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

লালপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা প্রীতম কুমার হোড় বলেন, কৃষকেরা অগভীর নলকূপ স্থাপন করে চাষাবাদ করায় খরচ বাড়ছে। শুষ্ক মৌসুমে সেচ-সংকট দেখা দিচ্ছে।

বিএডিসির ক্ষুদ্র সেচ জোন বড়াইগ্রামের সহকারী প্রকৌশলী জিয়াউল হক বলেন, লালপুর ও বড়াইগ্রামে ৮৯টি সেচপাম্প রয়েছে। এগুলোর মধ্যে ৫০টি চালু আছে। আটটি বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অধিগ্রহণ করেছে। বাকি ৩১টি চালুর চেষ্টা চলছে।

উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতি এবং লালপুরের ইউএনও শারমিন আখতার বলেন, ‘কৃষকেরা আবেদন করলে সেচ কমিটির মাধ্যমে বরাদ্দ এনে পাম্পগুলো চালুর ব্যবস্থা করা হবে। সেচ কমিটির পরবর্তী মিটিংয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সুদের টাকা দিতে না পারায় কৃষকের ষাঁড় নিয়ে গেল দাদন ব্যবসায়ীরা

    সাভারে উত্তরবঙ্গমুখী সড়কে বেড়েছে শেষ মুহূর্তের চাপ

    কুকুর মারার ফাঁদ বানাতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে কৃষকের মৃত্যু 

    পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী কেরানীগঞ্জ গিয়ে নিখোঁজ

    রাজধানীতে ঈদের দিন হতে পারে বৃষ্টি

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সুদের টাকা দিতে না পারায় কৃষকের ষাঁড় নিয়ে গেল দাদন ব্যবসায়ীরা

    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা দশে রিশাদ

    ‘তুফান’ সিনেমার ট্রেলার, শাকিব-চঞ্চলের সেয়ানে সেয়ানে লড়াইয়ের পূর্বাভাস